ব্রেকিং নিউজ
sil-panitanki-kharibari-border-open
panitanki border অবশেষে খুলল পানিট্যাঙ্কি বর্ডার

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-26 21:05:23


ভারত-নেপাল সীমান্তে অবশেষে খুলল শিলিগুড়ির খড়িবাড়ি ব্লকের পানিট্যাঙ্কি বর্ডার। ২০২০ সালের ২৪ মার্চ অতিমারী পরিস্থিতিতে সংক্রমণ মোকাবিলায় নিজেদের সীমান্ত আটকে দিয়েছিল নেপাল। দীর্ঘ ২০ মাস ধরে বন্ধ ছিল স্বাভাবিক যান চলাচল। সমস্যায় পড়েছিল পানিট্যাঙ্কি বর্ডার সংলগ্ন টোটো ও অটো চালকরা। বর্ডার বন্ধ থাকায় স্বাভাবিকভাবেই আর্থিক সংকটে পড়ে টোটো ও অটো চালকরা। এবার পানিট্যাঙ্ক দিয়ে টোটো ও অটো চলাচল শুরু হওয়ায় খুশি সর্বস্তরের মানুষ।

 টোটো ও অটো চলাচল বন্ধ থাকার কারণে  মেচী নদী উপর মেচী ব্রিজ হেঁটে পার করতে হতো, এমনই জানান স্থানীয়রা।  যার ফলে প্রচুর সমস্যার মুখে পড়তে হতো সাধারণ মানুষদের। অবশেষে কোভিড প্রটোকল মেনে নেপাল থেকে ভারতে প্রবেশের অনুমতি মিলেছে । ফলে মুখে হাসি ফুটেছে স্থানীয় টোটো চালকদের। একদিকে সংসার চালানোর খরচ অপরদিকে টোটোর কিস্তির টাকা দিতে হিমশিম খেতে হত। সীমান্ত খুলে যাওয়ায় অনেক বেশি মানুষ এই বর্ডার দিয়ে যাতায়াত করছে যার ফলে তাদের রোজগারও বেড়ে গিয়েছে।

 টোটো চলার ফলে সুবিধা হয়েছে নেপাল ও ভারত থেকে যাতায়াতকারী যাত্রীদের। যারা নেপাল থেকে ভারতে প্রবেশ করছেন তাদের কোভিড প্রটোকল মেনেই  ভারতে প্রবেশ করার অনুমতি মিলছে। 

এতদিনে বর্ডারের মানুষ ফিরলেন আগের ছন্দে, স্বাভাবিক জীবনে। এই পদক্ষেপ নিয়েছিলেন স্থানীয় বিজেপি সাংসদ রাজু  বিস্তা। তার সেই প্রয়াস সফল হয়েছে বলে জানান স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব।

অন্য়দিকে পানিট্যাঙ্কি সীমান্ত খোলার ফলে স্বাভাবিক হল নেপাল-ভারত যাতায়াত। কোভিড সংক্রমণ যখন বেড়ে গিয়েছিল গোটা দেশে তখন মুখ্য়মন্ত্রী কেন্দ্রের কাছে সীমান্ত বন্ধের আর্জি জানিয়েছিলেন। এখন সংক্রমণ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে বলে রাজ্য়ের মুখ্য়মন্ত্রীই সাধারণ মানুষের কথা ভেবে সীমান্ত খুলে দেওয়ার আর্জি জানান। তার ফলস্বরূপ খুলে গেল পানিট্য়াঙ্কি বর্ডার, জানালেন স্থানীয় তৃণমূলের দার্জিলিং জেলার জেলা সভাপতি পাপিয়া ঘোষ। 

অতিমারী পরিস্থিতিতে স্তব্ধ হয়েছিল জনজীবন। দীর্ঘ ২০ মাস পরে ফের মুখে হাসি ফিরল পানিট্যাঙ্কি সীমান্তবর্তী মানুষদের। ফের স্বস্তিতে পানিট্যাঙ্কি।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন