ব্রেকিং নিউজ
  (15:40 PM)-ফের আগামি কাল গোয়া সফর করবেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়     (15:37 PM)-রাজ্য সরকারের সামাজিক প্রকল্পের জন্য ১০০০ কোটি টাকা ঋণ অনুমোদন করল বিশ্ব ব্যাঙ্ক     (14:19 PM)-কালিম্পং জেলার সামসিং ফাঁড়ির মণ্ডলগাও এবং খাসমহল গ্রামে ভল্লুকের আতঙ্ক      (14:17 PM)- বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাটিতে হাতির দলের তাণ্ডব। জখম ও মৃত একাধিক গবাদিপশু      (14:15 PM)-বাসন্তীতে উদ্ধার চারটি বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র। ধৃত এক। এলাকায় চাঞ্চল্য      (14:14 PM)-অবৈধ গ্যাস সিলিন্ডার রাখার অভিযোগে মঙ্গলকোটে গ্রেপ্তার এক ব্যক্তি     (14:13 PM)-ডোমজুড়ে পাওয়ার হাউসে অগ্নিকাণ্ড। একটি স্পঞ্জ কারখানায় আগুন     (14:12 PM)-বোমা বিস্ফোরণে জখম তিন শিশু। বহরমপুরের টিকটিকিপাড়া এলাকার ঘটনা     (10:42 AM)-মুম্বাইয়ের বহুতলে সকাল ৭টা নাগাদ আগুন, মৃত ২, হাসপাতালে ভর্তি ১৫     (10:40 AM)-৫ বি তিলজলা রোডে এক প্রৌঢ়ের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, প্রাথমিক ধারণা আত্মহত্য়া     (10:03 AM)-প্রয়াত প্রাক্তন ফুটবলার তথা কোচ সুভাষ ভৌমিক     (08:15 AM)-২৪ ঘণ্টায় দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪,৭৭৪, সুস্থ ২,৫১,৭৭৭      (08:07 AM)-করোনায় মৃত ৩৫, সংক্রমণের হার কমে ১২.৫৮ শতাংশ      (08:06 AM)-গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত ৯,১৫৪     (07:59 AM)-২২ থেকে ২৪ জানুয়ারি হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা     (07:58 AM)-পশ্চিমী ঝঞ্ঝার জেরে রাজ্য জুড়েই বৃষ্টির সম্ভাবনা  
future-speaker-baba-vanga
Baba Vanga: আগামী বছরগুলিতে কী ঘটতে চলেছে? দেখুন, কী বলে গেছেন 'বাবা ভাঙা'


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-12-19 14:29:00


নস্ট্রাদামুসের নাম সকলেই কম-বেশি শুনেছেন। আর যাঁরা জানেন না কে এই নস্ট্রাদামুস, তাঁদের বলে রাখি, বিশ্বের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ভবিষ্যৎবক্তা হিসেবে মানা হয় ১৬০০ শতকের পদার্থবিদ ও জ্যোতির্বিদ নস্ট্রাদামুসকে। ১৯৫৫ সালে তিনি মোট ৯৪২ টি ভবিষ্যদ্বাণী করে গিয়েছিলেন। যার বেশিরভাগটাই ফলে গিয়েছে বলে দাবি করা হয়। 

আর আধুনিক বিশ্বের 'নস্ট্রাদামুস' বলা হয় বুলগেরীয় নারী ভ্যাঞ্জেলিয়া প্যানদেভা দিমিত্রোভাকে। তাঁর জন্ম ১৯১১ সালের ৩১ জানুয়ারি উস্মানীয় সাম্রাজ্যের (বর্তমান ন্যাসডোনিয়া প্রজাতন্ত্র) স্টোমিকাতে। যদিও তিনি জীবনের অধিকাংশ সময় কাটিয়েছেন বুলগেরিয়ার কুজহু পার্বত্য অঞ্চলের রুপুটিতে।

কথিত রয়েছে, ভ্যাঞ্জেলিয়া প্যানদেভা দিমিত্রোভা ১২ বছর বয়সে বন্ধুদের সঙ্গে খেলার সময় এক ভয়ানক ঝড়ে উড়ে যায়। তাকে দুদিন পর খুঁজে পাওয়া গেলে দেখা যায়, তার চোখের অবস্থা খুবই খারাপ। অন্ধ হয়ে যায় সে। এই ঘটনার পর তিনি দাবি করেন, ওই ঝড়ে যখন তাঁর দৃষ্টিশক্তি হারাল, তখন কোনও এক ঐশ্বরিক ক্ষমতা তাঁর মধ্যে ভর করেছিল। তিনি তাঁর দৈবশক্তির মাধ্যমে ভবিষ্যতে পৃথিবীতে কী ঘটতে চলেছে, তা দেখতে পাচ্ছেন। কেবল তা নয়, তাঁর মধ্যে রয়েছে আরেক বিশেষ ক্ষমতা। তাঁর স্পর্শের মাধ্যমে মানুষকে সুস্থ করে তোলার ক্ষমতা। এই রহস্যময়ী অন্ধ নারী তারপর থেকেই 'বাবা ভাঙা' নামে পরিচিতি লাভ করেছেন।

এখন মনে প্রশ্ন উঠতেই পারে, তাঁর করা কী কী ভবিষ্যৎবাণী মিলে গেছে? ১৯৮৯ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ারে সন্ত্রাসী হামলার বিষয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন। যা ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর টুইন টাওয়ারে সন্ত্রাসী হামলার সঙ্গে মিলে যায়। এছাড়া তিনি বলে গিয়েছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৪ তম প্রেসিডেন্ট হবেন একজন আফ্রিকান-আমেরিকান। আশ্চর্যজনকভাবে ৪৪ তম প্রেসিডেন্ট হন বারাক ওবামা। এছাড়াও তিনি পঞ্চাশের দশকে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন, শীতল অঞ্চলগুলি উষ্ণ হয়ে উঠবে...। এবং আগ্নেয়গিরি জেগে উঠবে। সবকিছু বরফের মতো গলে যাবে। এই ভবিষ্যদ্বাণীকে তাঁর ভক্তরা বিশ্ব উষ্ণায়নের সঙ্গে তুলনা করেন।

২০০৪ সালের বক্সিং-ডে অর্থাৎ ২৬ ডিসেম্বর ভারত মহাসাগরের তলদেশে এক ভয়ানক ভূমিকম্প হয়েছিল, রিখটার স্কেলে যার মাত্রা ছিল প্রায় ৯.১। কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে ভারত, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, আফ্রিকাসহ বিভিন্ন দেশ জলের তলায় চলে যায়। প্রাণ হারায় প্রায় দুই লক্ষ ত্রিশ হাজার। ভক্তরা এই সুনামিকে বাবা ভাঙার ভবিষ্যদ্বাণীর করা সেই প্রলয়ের সঙ্গে মেলান। তাঁদের দাবি ছিল, এই প্রলয়ের কথায় আগাম বলে গিয়েছিলেন বাবা ভাঙা।

এছাড়া পুতিনের ওপর হামলা, মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরল রোগ এশিয়ায় বড় দ্গরনের সুনামি ইত্যাদি ভবিষ্যদ্বাণী করে গিয়েছিলেন। এখন প্রশ্ন, আগামী বছরগুলি নিয়ে কোনওরকম ভবিষ্যদ্বাণী করেননি বাবা ভাঙা? হ্যাঁ, তিনি গণনা করে বলে গিয়েছেন আগামী বছরগুলিতে কী ঘটতে চলেছে।

২০২৮-এ মানুষ শুক্রগ্রহে পৌঁছে যাবে। পৃথিবীতে খাদ্যের অভাব হবে না। ২০৩৩ এ গলতে শুরু করবে মেরুর বরফ। উঠে আসবে সমুদ্রের জলস্তর। ২০৩৩ থেকে ২০৪৬  সালে বিশাল উন্নতি হবে বিশ্ব অর্থনীতির। ২০৪৩ সালে ইওরোপ দখল করবে মুসলিমরা।। ২০৬৬ সালে ইসলামিক রোমে হামলা করবে আমেরিকা। ২০৭৬ সালে মুছে যাবে সব নিম্ন- উচ্চ শ্রেণি ভেদাভেদ। ২০৮৪ তে সৃষ্টি হবে নতুন প্রকৃতির। নতুন ধরনের অসুখ ছড়াবে ২০৮৮ থেকে ২০৯৭ তে, যাতে মানুষ খুব তাড়াতাড়ি বুড়ো হয়ে যাবে। ২০৯৭-এর মধ্যে মানুষ সেই অসুখের অ্যান্টিবডি খুঁজে পাবেন।

২১০০-২১৩০ সালে মানুষ রোবটে পরিণত হবে। ২১৩০-র মধ্যে পৃথিবীতে আসবে ভিন গ্রহের প্রাণীরা। এলিয়ান মানুষকে জলের নীচে বসবাস করা শেখাবে। ২১৭০-তে ভয়াবহ খরার মুখে পড়বে পৃথিবী। আগের করা ভবিষ্যদ্বাণী কতটা সত্যি, তা নিয়ে অনেক জল্পনা রয়েছে। অনেকে আবার বলেছেন, এ সব বাবা ভাঙার ভক্তদের বানানো গল্প। 

যদিও গোটা বিশ্ব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিলেন এই ভবিষ্যতদ্রষ্টা। ১৯৯৬ সালে তিনি স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি যে আলোড়ন তৈরি করেছিলেন, তা তাঁর শেষকৃত্যে আসা বিভিন্ন দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের দেখে স্পষ্ট। 




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us