৩০ মে, ২০২৪

Bangladesh: বয়স শুধু নম্বর! ৬৭-তে মাধ্যমিক পরীক্ষায় বসে সফল ভাবে উত্তীর্ণ শেরপুরের আবুল
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2022-11-29 18:12:11   Share:   

শেখার আর শিক্ষার কোনও বয়স (Age) হয় না। ইচ্ছে থাকাটাই আসল। তা আরেকবার প্রমাণ করে দিলেন ৬৭ বছরের আবুল কালাম আজাদ। মাধ্যমিক পরীক্ষায় (Madhyamik examination) বসেছিলেন তিনি। সফলভাবে উত্তীর্ণ হন তিনি। বাংলাদেশের (Bangladesh) শেরপুরের বাসিন্দা আবুল, নিজের এলাকায় অন্য একটি নাম বেশি জনপ্রিয়। আর তা হল ‘কবি কালাম’।

পরীক্ষায় পাশ করার পর বাংলাদেশের এক প্রথম শ্রেণির সংবাদ মাধ্যমকে সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ২০২২ সালে চন্দ্রাবাজ রশিদা বেগম হাইস্কুল থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষায় বসেন আবুল। সোমবার দুপুরে সেই পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়। ভালো নম্বর পেয়েই পাশ করেছেন তিনি।  এই বয়সে এসে ফের পরীক্ষায় বসবেন কিনা তা ভেবেছিলেন প্রথমে। তারপর সিদ্ধান্ত নেন। এরপর ২০২০ সাল থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য পড়াশুনো করতে শুরু করেন কবি কালাম। তারপর ২০২২ সালে পরীক্ষায় বসেন।

১৯৫৫ সালে লঙ্গরপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন আবুল। পড়াশুনোর প্রতি বরাবরই টান ছিল আবুলের। কিন্তু হঠাৎ একদিন বাড়িতে আগুন লেগে যাওয়ায় পরিবার নিয়ে ডাকে চলে জিতে বাধ্য হন। এর ফলে তিনি দশম শ্রেণি পর্যন্তই কেবল পড়াশোনা করতে পেরেছিলেন। ঢাকায় এসে সংসার চালানোর জন্য ডকইয়ার্ডে চাকরি করা শুরু করেন।

বিয়েও করেন তিনি। এরপর চাকরির উদ্দেশ্যে পারি দেন সৌদি আরবে। ২০১৩ সালে সৌদি আরব থেকে আবার গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসেন তিনি। কিন্তু পড়াশোনার প্রতি ঝোঁক তখনও কমেনি। অপূর্ণ মনের বাসনা পূরণ করতেই আবার পড়াশোনা শুরু করার কথা ভাবেন। যেমন ভাবা তেমনি কাজ। শেষমেশ বিজয়ী হয়েই ফেরেন তিনি।

আবুল বলেন, ‘‘পড়ালেখার প্রতি আমার ভীষণ দুর্বলতা। সব সময় সংবাদপত্র ও বই পড়ি। গান লিখি। কবিতা লিখি। কয়েকটি উপন্যাস এবং ছোট গল্প লিখেছি। এসবের পাণ্ডুলিপি যত্নের সঙ্গে সংরক্ষণ করছি।’’ নারীদের শিক্ষাগ্রহণের বিষয়েও গুরুত্ব দেন তিনি। তাঁর মতে, পড়াশোনার ক্ষেত্রে বয়স কোনও বাধা নয়। ইচ্ছা থাকলেই সব কিছু করা যায়।


Follow us on :