মরুভূমিতে ফনা তুলল ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী মিসাইল ‘নাগ’

0

চিনের সঙ্গে সংঘাতের আবহেই একের পর এক মহা অস্ত্রের সফল পরীক্ষা করে চলেছে প্রতিরক্ষামন্ত্রক। এবার সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ট্যাংক বিধ্বংসী ‘নাগ’ মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করল প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থা (DRDO)। বুধবার ভোরে রাজস্থানের পোখরানের ফায়ারিং রেঞ্জে শুরু হয় মিসাইলটির পরীক্ষা। এরপর একের পর এক পরীক্ষায় নির্ভুলয়ভাবে লক্ষ্যে আঘাত হানে অ্যান্টি-ট্যাংক গাইডেড মিসাইল ‘নাগ’। DRDO জানিয়েছে, এটি ভূমি ও আকাশ থেকেও ছোড়া যাবে। ৪ থেকে ৭ কিলোমিটার পর্যন্ত দূরত্বে থাকা শত্রুপক্ষের ট্যাঙ্ককে ধ্বংস করতে সক্ষম ‘নাগ’।

সাপের মতোই তাঁর ঘ্রান শক্তি, ইনফ্রারেড সেন্সরের সাহায্যে শত্রুপক্ষের ট্যাঙ্ক খুঁজে নিয়ে নির্ভুলভাবেই আছড়ে পরবে মিসাইলটি। এক ধরণের বিশেষ প্রযুক্তির সেন্সর ‘সিকার’ ব্যবহার করা হয়েছে নাগ মিসাইলে। যার সাহায্যে রাতেও আঘাত হানতে সক্ষম নাগ ক্ষেপণাস্ত্র। প্রতিরক্ষামন্ত্রক সূত্রে জানা যাচ্ছে, বিগত দু’মাসে ভারত অন্তত ১০টি মিসাইল সফলভাবে পরীক্ষা করেছে। এরমধ্যো সুপারসনিক ক্রুজ প্রযুক্তির মিসাইলও রয়েছে। প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞদের মতে, মূলত চিনকে বার্তা দিতেই ভারত মিসাইল প্রযুক্তির পরীক্ষা চালাচ্ছে। লাদাখে বিগত মাস দুয়েক ধরে মুখোমুখি রয়েছে ভারত-চিনের সেনাবাহিনী। তীব্র শীতেও সেখান থেকে সেনা সরানোর চিন্তাভাবনা নেই আপাতত। এরমধ্যেই সেনাবাহিনীর মনোবল বাড়াতে দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি অত্যাধুনিক মিসাইলগুলি সেনাবাহিনীর হাতে তুলে দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।