খেলাধুলাআরও পড়ুন

যমজ সন্তানের বাবা হলেন উসেইন বোল্ট

এবার যমজ সন্তানের বাবা হলেন উসেইন বোল্ট। গতকাল তাঁর স্ত্রী কাসি বেনেট নেটমাধ্যমে একটি ছবি পোস্ট করেছেন। তাঁর সন্তানদের নাম ভাইরাল হয়ে গিয়েছে নেটমাধ্যমে। বোল্ট তাঁর দুই যমজ সন্তানের নাম রেখেছেন ‘থান্ডার বোল্ট’ এবং ‘সেন্ট লিয়ো বোল্ট’। ছবিতে রয়েছে বোল্ট দম্পতির প্রথম সন্তান অলিম্পিয়া লাইটনিং বোল্টও। যদিও পিতৃ দিবস উপলক্ষে কাসি এই ছবি পোস্ট করেছেন।

তার পাশাপাশি বোল্টের উদ্দেশ্যে লিখেছেন, 'আমাদের পরিবারে তুমি একমাত্র মূল স্তম্ভ। আমাদের সন্তানের কাছে তুমি সব থেকে সেরা বাবা। আমরা তোমাকে খুব ভালোবাসি'. এদিকে যমজ সন্তানের বাবা হয়ে খুশি হলেন বোল্ট।আর পরিবারকে নিয়ে সেই ছবি পোস্ট করা হল নেটমাধ্যমে।


পিতৃ দিবসে আবেগাপ্লুত সচিন
বৃষ্টিতে পণ্ড প্রথম সেশনের খেলা
ইউরো কাপে করোনার থাবা
ফরাসি ওপেন থেকে সরে দাঁড়ালেন রজার ফেডেরার
অবশেষে খুনের মামলায় গ্রেফতার পদকজয়ী কুস্তিগীর সুশীল কুমার
বাবা খেলেছেন ইস্টবেঙ্গলে, ছেলে সুযোগ পেল ম্যাঞ্চেস্টার সিটিতে
শ্রীলঙ্কা সফরে ভারতীয় দলের কোচ হচ্ছেন রাহুল দ্রাবিড়
সমস্ত লাক্সারি গাড়ি পাঠিয়ে দিচ্ছেন অন্য কোথাও, রোনাল্ডোকে নিয়ে জল্পনা

লাইফস্টাইলআরও পড়ুন

পাথুরে জীবন

করোনা অতিমারিতে গোটা দেশ বিধ্বংসী অবস্থায়। তারমধ্যে লকডাউন থাকার দরুন অনেকেই আজ কর্মহারা। তবে কেউ কেউ আবার জীবিকা পরিবর্তন করেছে এই লোকডাউনে। অন্ন জোগাতে এবার শুধু পুরুষরাই নয়,মহিলারা কাজ করতে এগিয়ে আসছে। দুর্গাপুরে সকাল থেকেই চলছে পাথর ভাঙার কাজ যদিও ইস্পাত তৈরির পর যে পাথর পরে থাকে সেগুলোই ভেঙে তামা,ব্রোঞ্জ,লোহা বাজারে বিক্রি করে।  কিন্তু দরিদ্রের অভাবের সংসারে তাঁরা এই কাজ করে কতই  বা টাকা পাচ্ছেন। প্রতিদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অক্লান্ত পরিশ্রম করার পর মোটে  নাকি ১৫০ টাকা টাকা তাঁরা পাচ্ছে ।  যা দিয়ে তাদের এই সংসার চলছে। দুর্গাপুরেই নয়,আরও অন্যান্য জায়গায় এই কাজ করা  হয়। 

যেমন গোপালনগর,অন্ডাল এই জায়গাগুলিতেও কাজের তাগিদে মানুষ প্রতিনিয়ত ঘুরে  ঘুরে বেড়ায়। তবে বেশ কিছু মহিলারা  পাথর ভাঙার পাশাপাশি, বোল্ডারের কাজ করছে। ট্রলারে ডাস্ট বোঝাই করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তবে পারিশ্রমিক হিসেবে পাচ্ছে ১২০ টাকা। এদিকে কাঁকসার পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য রমেন্দ্রনাথ মন্ডল জানান,' রাজ্য সরকার সবসময় পাশে আছে।  যারা প্রকৃত দারিদ্রসীমার নিচে তারা এইকাজ করে তাদের সংসার চালাচ্ছে। তাছাড়া সরকার একাধিক প্রকল্প নিয়ে  হাজির গ্রামে। তবে লকডাউনে বহু মানুষ তো কাজ হারিয়েছে। যারা ধনী তাদের হয়তো জীবন-যাপন স্বাভাবিক। কিন্তু মধ্যবিত্ত  দরিদ্র মানুষদের ক্ষেত্রে প্রতিদিন চিন্তা একটা থেকেই যায় কিভাবে এই পরিস্থিতিতে চলবে তাঁদের। অনেকে আবার তাদের জীবিকা বদলে নিতে হচ্ছে এই পরিস্থিতে বলা যায়। 


5 days ago

ভিডিও খবর

বেহাল বহরমপুর- করিমপুর রাজ্য সড়ক
রাজ্য | 11 minutes ago
রাজ্যে জঙ্গিদের আস্তানা? কালিয়াচককাণ্ডে রাজনৈতিক তরজা
রাজ্য | 12 minutes ago
কালিয়াচককাণ্ডে ঘণীভূত রহস্য, উঠে আসছে নানা তথ্য
রাজ্য | 14 minutes ago
বিনামূল্যে টিকাকরণ ক্যাম্প, উদ্যোগী শশী পাঁজা, বিবেক গুপ্তা
কলকাতা | 15 minutes ago
ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত ১২৯৬ জন! ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে মৃত ৭২৯ জন!
দেশ | 16 minutes ago
দুঃস্থ মানুষকে রান্না করা খাবার, লেকটাউনে উদ্যোগী সুজিত বসু
কলকাতা | 22 minutes ago
সিএনজি ও ইলেকট্রিক বাসে জোর, সমস্যা মিটবে, আশ্বাস ফিরহাদের
কলকাতা | 23 minutes ago
সারাদিনে চলবে ৪০টি মেট্রো , জরুরি পরিষেবায় যুক্তদের ছাড়
কলকাতা | 24 minutes ago
জ্ঞানেশ্বরী কাণ্ড, মন্তেশ্বরে প্রমোটারি অমৃতাভর
রাজ্য | 25 minutes ago
সিএনের খবরের জের, সাহায্য পেলেন কেষ্টকান্ত
রাজ্য | 26 minutes ago
পেটে টান, ফুচকা বিক্রি করে সংসার
রাজ্য | 35 minutes ago
বাকি পেনশন ও গ্র্যাচুইটি, পুরসভার সামনে বিক্ষোভ
রাজ্য | 36 minutes ago