ষষ্ঠী থেকেই ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টির সতর্কবার্তা

0

কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে এমনিতেই পুজো মণ্ডপে ঢোকা নিষেধ আমজনতার। তাও একটু ঘুরে ঘুরে বাইরে থেকেই বাহারি পুজো প্যান্ডেল দেখার পরিকল্পনা করছিলেন অনেকে। এবার তাঁদের আশায় জল ঢেলে দিতে আসছে বৃষ্টি। পূর্বাভাস ছিলই, সাগরে তৈরি হচ্ছে নিম্নচাপ। এবার সেই নিম্নচাপই শক্তি সঞ্চয় করে বাংলার উপকূলের কাছে চলে এল। প্রতিনিয়ত শক্তি বাড়িয়ে এখন সেটি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। যদিও নিম্নচাপটির অভিমুখ বাংলাদেশের দিকে। তবুও এর প্রভাবে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি করেছে।

আলিপুর হাওয়া অফিস জানাচ্ছে নিম্নচাপটি শক্তি বাড়িয়ে ওড়িশা-পশ্চিমবঙ্গ উপকূল হয়ে বাংলাদেশের দিকে এগিয়ে যাবে। তবে সেটি উপকূলের কাছাকাছি এসে অতি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে। এর ফলে সমুদ্রও হবে উত্তাল, বইবে ঝোড়ো হাওয়া। হাওয়া অফিস জানিয়েছে, সপ্তমী থেকেই বৃষ্টিতে ভাসবে কলকাতা সহ উপকূলীয় জেলাগুলি। তবে ষষ্ঠী থেকেই পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ঝোড়ো হাওয়া শুরু হবে, হাওয়ার গতিবেগ থাকবে ৪০ কিমি প্রতিঘন্টার কাছাকাছি। সপ্তমী ও অষ্টমীতে হাওয়ার গতিবেগ আরও বাড়বে, সর্বোচ্চ গতিবেগ হতে পারে ৫০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা।

দক্ষিণবঙ্গের সব জেলাতেই হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে। আগামী ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত মৎসজীবীদের গভীর সমুদ্রে মাছ ধরতে যেতে নিষেধ করছেন আবহবিদরা। পাশাপাশি শুক্র ও শনিবার সুন্দরবনে ফেরি সার্ভিসও বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ফলে পর্যটকদের সুন্দরবনে যেতে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। একইভাবে বকখালি, দিঘা ও মন্দারমনিতেও পর্যটকদের জন্য থাকছে সতর্কবার্তা। সবমিলিয়ে দুর্গতিনাশিনীর আরাধনায় এবার ঘোর দুর্গতি।