হাড়ি কাবাব

0

কাবাবপ্রেমিদের কাছে হাড়ি কাবাব প্রিয় একটি নাম। নাম থেকেই বোঝা যাচ্ছে হাড়িতে তৈরি হয় এই হাড়ি কাবাব। স্বাদে অন্য কাবাবের চেয়ে কোনও অংশে কম নয়। পোলাওয়ের বা নানের সাথে এই কাবাব বেশ যায়।


উপকরণ

হাড় ছাড়া মাংস – ১ কেজি, টক দই – ১ কাপ, পেঁয়াজ বাটা – ১ কাপ, পেয়াজ কুঁচি – ২ টেবিল চামচ (বেরেস্তার জন্য), রসুন বাটা – ২ টেবিল চামচ, আদা বাটা – ১ টেবিল চামচ, কাঁচা লঙ্কা বাটা – ১/২ চা চামচ, জায়েত্রী বাটা – ১/৪ চা চামচ (ইচ্ছা), জায়ফল বাটা – ১/৪ চা চামচ (ইচ্ছা), গোল মরিচের গুঁড়ো – ১/২ চা চামচ, লাল লঙ্কা গুঁড়ো – ২ চা চামচ, জিরে গুঁড়ো– ১ চা চামচ, ধনে গুঁড়ো– ২ চা চামচ, হলুদ গুঁড়ো – ১ চা চামচ, কাঁচা লঙ্কা – ২ টো (ইছামতো), চিনি – ১ চা চামচ (স্বাদ অনুযায়ী), ভিনিগার (অথবা লেবুর রস) – ১ টেবিল চামচ, তেল – ১ কাপ, তেজপাতা – ২টি, এলাচ – ৩টি, দারচিনি – ৪ টুকরো, লবঙ্গ – ৪/৫টি, নুন – পরিমাণমতো

পদ্ধতি

মাংস ধুয়ে জল ঝরিয়ে নিন। এবার বাটিতে মাংসের টূকরাগুলোতে আস্ত কাচামরিচ আর ভিনেগার বাদে বাকী সমস্ত মশলা এবং অন্য উপকরণগুলো দিয়ে ভাল করে মেখে নিন মেরিনেট করার জন্য। ভালো করে মশলা মাখানো হলে এবার ভিনিগার (অথবা লেবুর রস) মেশান। এই অবস্থায় মাখানো মাংস ২ ঘন্টা (৫-৬ ঘণ্টা রাখলে আরো ভালো) ফ্রিজে রাখুন (ডিপ ফ্রিজে রাখবেন না)। রান্নার জন্য এবার হাড়িতে দেড় কাপ তেল দিয়ে গরম হলে পেয়াজ কুঁচি দিয়ে বাদামি করে ভেজে বেরেস্তা করুন। হাফ বেরেস্তা আলাদা একটি পাত্রে তুলে রাখুন পরে কাবাবের উপর ছড়িয়ে দিতে হবে।

 

 

এবার হাড়িতে বাকি তেলের উপর ম্যারিনেট করা মাংস ছেড়ে দিয়ে খানিকক্ষণ নাড়ুন। কয়েক মিনিট পরে আস্ত কাঁচা লঙ্কা ও সামান্য জল দিয়ে দিন। নেড়ে ভালো করে মিশিয়ে দিয়ে পাত্রে ঢাকনা তুলে দিয়ে উনুনের আঁচ কমিয়ে দিন। এ অবস্থায় রান্না হয়ে মাংস সিদ্ধ হবে। মাঝে মাঝে ঢাকনা তুলে নেড়ে দিবেন। মাংস সিদ্ধ হয়ে পানি শুকিয়ে এলে আরেকবার নেড়ে দিন, তুলে রাখা বেরেস্তা দিয়ে কিছুক্ষন দমে রাখুন। কিছুক্ষণ পর মাংসের উপর তেল উঠে এলে কাবাবের হাড়ি উনুন থেকে নামিয়ে রাখুন। হাড়ি কাবাব তৈরি।