বাহাত্তরে স্বপ্নসুন্দরী হেমা

0

একটা সময়ে একটা কথা চালু ছিল ৭২ বছর বয়স হলেই নাকি বুড়ো। এ সময়ে নাকি তারা খিটখিটে হয়ে যায়। কিন্তু এই কথাটা কি খাটে ড্রিম গার্ল হেমা মালিনীর ক্ষেত্রে? ষাটের দশকের শেষভাগে তামিল বালিকা হেমার বলিউডে প্রবেশ তাও রাজ কাপুরের বিপরীতে। সে ছবি কোনোমতে চললেও হেমা জায়গা করতে পারেননি।এরপর জিতেন্দ্রর ওয়ারিশ, সেটাও তেমন কিছু না। কিন্তু ব্রেক দিলেন এভারগ্রিন হিরো দেব আনন্দ, জনি মেরে নাম-এ তারপর আর পিছনে তাকাতে হয়নি।

ধর্মেন্দ্র, রাজেশ খান্না থেকে অমিতাভ বচ্চন হেমার অসাধারণ রূপে মুগ্ধ তৎকালীন দর্শক, তাঁর নামি দিয়ে দিলো ড্রিম গার্ল। এরপর ধর্মেন্দ্রর সাথে প্রেম,বিবাহ এবং দুই কন্যার জননী হলেন হেমা। রাজনীতিতে যুক্ত হলেন তখন যখন নায়িকা হিসাবে তিনি আর কাজ করতে চাইছিলেন না। আজ বেশ কিছুদিন ধরে তিনি বিজেপির সাংসদ। মাঝেমধ্যে সিনেমা করেন। কিন্তু আজকের ৭২-এর জন্মদিনেও হেমা মালিনী অপরূপা স্বপ্ন সুন্দরী |