ব্রেকিং নিউজ
Aminiya-Special-Curry-was-Uttamkumars-hot-favourite
Restaurant: আমিনিয়া স্পেশাল কারি ছিল উত্তমকুমারের হট ফেভারিট

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-07-30 20:34:10


শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায়: মহানায়ক উত্তমকুমার (UttamKumar) ছিলেন অসম্ভব খাদ্যরসিক। অন্যান্য খাবারের পাশাপাশি মোগলাই (Moglai) খাবার খেতে খুব ভালোবাসতেন। কলকাতার বিভিন্ন মোগলাই রেস্তোরাঁর খাবার খেলেও কলকাতার ৯৩ বছরের ঐতিহ্যবাহী আমিনিয়া (Aminia) রেস্তোরাঁর মাটন ও চিকেন আমিনিয়া স্পেশাল কারি (Special Curry) পদটির প্রতি মহানায়ক উত্তমকুমারের বিশেষ দুর্বলতা ছিল। কখনও আমিনিয়া থেকে আনিয়ে, কখনও আমিনিয়াতে গিয়ে এই পদটি খেতে খুব পছন্দ করতেন তিনি। কখনও শুটিং-এর শেষে মুড হলে বা ওই চত্বরে ইংরেজি সিনেমা দেখতে গেলে শো শেষ হওয়ার পর বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে হাজির হতেন আমিনিয়াতে। তবে ভিতরে ঢুকতেন না। কারণ ভিতরে ঢুকে খাবার খাওয়ার উপায় ছিল না ওনার খ্যাতির বিড়ম্বনায়। অবশ্য ওনার গাড়ি আমিনিয়ার সামনে এসে থামলেই কর্মীরা দৌড়ে হাজির হয়ে যেতেন। আমিনিয়ার সব খাবারই পছন্দ করতেন মহানায়ক। তবে সবচেয়ে বেশি দুর্বলতা ছিল আমিনিয়া স্পেশাল কারির প্রতি। একটা বড় ট্রে-র মধ্যে মাটন বা চিকেন আমিনিয়া স্পেশাল কারি, সঙ্গে তন্দুরি রুটি, স্যালাড ও ফিরনি পরিবেশন করা হত। গাড়ির মধ্যে বসে পরম তৃপ্তি সহকারে খেতেন উত্তমকুমার। আমিনিয়ার সিগনেচার ডিশ হল এটি। এক পিস মাটন বা চিকেনের সঙ্গে এক পিস করে আলু, পেঁয়াজ, টমেটো, গাজর ও ডিম সহ সুস্বাদু এক বাটি ঝোল। গরম তন্দুরি রুটি চুবিয়ে খাওয়ার মজাই আলাদা।

এই আমিনিয়া স্পেশাল কারির জনপ্রিয়তা আজকের প্রজন্মের খাদ্যরসিকদের কাছেও অটুট। আমিনিয়ার কর্ণধার মহম্মদ আতারের বয়স এখন ৬৬। সত্তরের দশকে তিনি যখন যুবক, তখন থেকেই আমিনিয়াতে আসতেন বাবাকে সাহায্যে করতে। তখন কয়েকবার রাতের দিকে উত্তমকুমারকে আসতে দেখেছেন। তখন এই চত্বরে রাতের দিকে এখনকার মতো এত ভিড় থাকত না। গাড়িতে বসে নিশ্চিন্তে খেতেন মহানায়ক। এত বছর বাদে সেই স্মৃতি হাতড়ে আতারসাহেব জানালেন, তিনি হিন্দি, বাংলা মিলিয়ে উত্তমকুমারের বেশ কিছু সিনেমা দেখেছিলেন। উনি পছন্দ করতেন উত্তমকুমারের অভিনয়। আতারসাহেব বেশ উত্তেজিত হয়ে বললেন, He was very handsome। আমি গর্বিত যে ওনার মতো কিংবদন্তী অভিনেতা আমাদের রেস্তোরাঁর খাবার পছন্দ করতেন। মহম্মদ আতার জানালেন, ১৯২৯ সালে কলকাতার জ্যাকারিয়া স্ট্রিটে যখন তাঁর ঠাকুরদা আব্দুল রহিম প্রথম আমিনিয়া রেস্তোরাঁ চালু করেন, তখন থেকেই এই আমিনিয়া স্পেশাল মাটন কারি তিনি চালু করেন। আব্দুল রহিমসাহেবের মস্তিষ্কপ্রসূত এই পদটি পরবর্তীকালে তাঁর পুত্র আব্দুল কায়ুম ১৯৪৭ সালে যখন নিউ মার্কেটের কাছে আমিনিয়ার অপর শাখা চালু করেন, তখন মাটন/চিকেন বিরিয়ানি, চাপ, আফগানি প্রভৃতির সাথে আমিনিয়া স্পেশাল মাটন ও চিকেন কারি পরিবেশন করা হয়। শুরুর কিছুদিনের মধ্যেই এই আমিনিয়া স্পেশাল কারি খাদ্যরসিকদের মন জয় করে তুমুল জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।


মহম্মদ আতার জানালেন, আজও তাঁর ঠাকুরদার গোপন রেসিপি মেনে সিদ্ধ করা পেঁয়াজবাটা, আদা, রসুনবাটার রস, বেরেস্তা বাটা, এলাচ, দারচিনি, লবঙ্গ, জয়িত্রি, জায়ফলের গুঁড়ো  সহযোগে সিদ্ধ করা আলু, গাজর, ডিম, টমেটো, পেঁয়াজ দিয়ে তৈরি হয় মাটন বা চিকেনের আমিনিয়া স্পেশাল কারি। সুস্বাদু এই পদের মধ্যে একই সাথে অনেক কিছু পাওয়া যায়। তন্দুরি রুটি সহযোগে এর মহিমা তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করেছে কয়েক প্রজন্মের বাঙালি খাদ্যরসিকরা। উত্তম ভক্তরা চাইলে আমিনিয়াতে গিয়ে মহানায়কের পছন্দের এই পদের স্বাদ গ্রহণ করে আসতে পারেন। এই পদটির দাম ২১০ টাকা।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন