Breaking News
Abhishek: দিল্লির থানা থেকে বেরিয়ে কলকাতায় রাজভবন অভিযানের ডাক অভিষেকের      Dengue: ডেঙ্গির থাবায় মৃত্যু আরও তিন জনের, নয়া পদক্ষেপ নবান্নের      ED: ইডিকে আগেই জানানো উচিত ছিল, অভিষেকের মামলায় মন্তব্য ডিভিশন বেঞ্চের      Abhishek: নিজের কথাই রাখছেন অভিষেক, যাচ্ছেন না ইডির তলবে      Delhi: লাঠি উঁচিয়ে তাড়া করে রাজঘাট থেকে তৃণমূলকে বের করে দিল দিল্লি পুলিস      Meeting: একদিকে ইডি, অন্যদিকে বঞ্চনার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ, সোম-মঙ্গলের প্লান কষতে দিল্লিতে বৈঠকে অভিষেক      Abhishek: দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, নজরে ৩ অক্টোবর      Accident: দুর্ঘটনার কবলে তৃণমূলের দিল্লিগামী বাস, আশঙ্কাজনক ১১ জন      Justic Sinha: জলে কুমির ডাঙায় বাঘ! রনংদেহী জাস্টিস সিনহার নির্দেশে মহাফাঁপরে ইডি ও অভিষেক      Delhi: তৃণমূলের বিশেষ ট্রেনের আবেদন খারিজ, বাসেই দিল্লি যাওয়ার ঘোষণা অভিষেকের     

Tet

Delhi: অনুমতি পায়নি তৃণমূল, কিন্তু যন্তর মন্তরে প্রাথমিক চাকরিপ্রার্থীদের ধরনায় সায় দিল দিল্লি পুলিস

'কেন্দ্রীয় বঞ্চনা'র অভিযোগে দিল্লির যন্তর মন্তরে (Jantar Mantar) ধরনা দিতে চেয়েছিল রাজ্যের তৃণমূল সরকার। ধরনার জন্য লিখিত আবেদনও দেওয়া হয়েছিল দিল্লি পুলিসের কাছে। শেষ পর্যন্ত তৃণমূলের ধরনার জন্য অনুমতি দেয়নি দিল্লি পুলিস। কিন্তু সেই জায়গাতেই ২০০৯-এর প্রাথমিক চাকরিপ্রার্থীদের আধ ঘণ্টা ধরনা করার ক্ষেত্রে সায় দিয়েছে দিল্লি পুলিস। ফলে সোমবার যন্তর মন্তরে ধরনায় বসেন দক্ষিণ ২৪ পরগনার ২০০৯ সালের প্রাথমিকের চাকরিপ্রার্থীরা।

কেন্দ্রীয় প্রকল্পে বাংলার প্রতি বঞ্চনার অভিযোগে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে দিল্লিতে রাজঘাটে আন্দোলনে বসেছে তৃণমূল। ফলে তৃণমূল সাংসদ-বিধায়করা যখন দিল্লির রাজঘাটে ধরনা-বিক্ষোভে সামিল হয়েছে, সেসময় রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে নিয়োগে বঞ্চনার অভিযোগে মোদী সরকারের দ্বারস্থ হয়ে দিল্লির যন্তর মন্তরে ধরনায় বসেন দক্ষিণ ২৪ পরগনার ২০০৯ সালের প্রাথমিকের চাকরিপ্রার্থীরা। তাঁরা এদিন হাতে পোস্টার নিয়ে বিক্ষোভ দেখান। তাঁরা জানিয়েছেন, তাঁরা ১৪ বছরের বঞ্চনার কথা বলতে এসেছেন দিল্লিতে।

চাকরিপ্রার্থীরা আরও জানিয়েছেন, তাঁরা চাকরির দাবিতে এখানে ধরনায় বসেছেন। বাংলায় একাধিক জায়গায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের সঙ্গে দেখা করতে গেলেও তাঁদের লালবাজারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে, গ্রেফতার করা হয়েছে। ফলে তাঁরা এবারে দিল্লি এসেছেন। এমনকি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যেখানে যেখানে ধরনায় বসবেন, সেখানেই তাঁরা বিক্ষোভ দেখাবেন বলে জানিয়েছেন চাকরিপ্রার্থীরা। প্রধানমন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রীর কাছে লিখিত ভাবে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হবে বলেও জানিয়েছেন তাঁরা।

2 days ago
Tet: নিয়োগ দুর্নীতির আবহেই ফের টেট রাজ্য, জানুন কবে!

২০২৩ সালে ডিসেম্বর মাসে প্রাথমিকের টেট পরীক্ষা হবে। আগেই জানিয়েছিল পর্ষদ। বুধবার সাংবাদিক বৈঠক করেন পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল। তিনি জানান, আগামী ১০ ডিসেম্বর টেট পরীক্ষা হবে। বুধবার সন্ধ্যায় পর্ষদের ওয়েবসাইটে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হবে। বৃহস্পতিবার থেকেই রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন পরীক্ষার্থীরা।

এনসিটিই-এর গাইডলাইন অনুযায়ী, গতবছর ডিসেম্বরেই টেট পরীক্ষা হয়। এক বছরের মধ্যেই ফের টেট পরীক্ষার ঘোষণা পর্ষদের। পর্ষদ সভাপতি এদিন জানিয়েছেন। এই বছর ওএমআর শিটের আসল কপি পর্ষদ নিয়ে নেবে, পরীক্ষার্থীরা কপি তাঁদের বাড়িতে নিয়ে যেতে পারবেন।

গতবছর টেটে প্রায় দেড় লক্ষ পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হন। তবে সেই নিয়োগ প্রক্রিয়াও আইনি জটিলতায় আটকে আছে। ফের টেট পরীক্ষা ঘোষণা করল পর্ষদ।

3 weeks ago
Tet: এক বছরের ব্যবধানে ফের প্রাথমিক টেট! জল্পনা তুঙ্গে

এক বছরের ব্যবধানে ফের প্রাথমিক টেট হতে চলেছে। সব ঠিক থাকলে ডিসেম্বরেই ফের টেট পরীক্ষা হতে পারে। পরীক্ষা নেবে পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

২০২২ সালের ডিসেম্বরে টেট পরীক্ষা হয়। এনসিটিই গাইডলাইন অনুযায়ী, প্রত্যেক বছর প্রাথমিকের টেট পরীক্ষা নিতে হবে। সেই অনুযায়ী ফের পরীক্ষা নিতে পারে পর্ষদ। তবে ২০২২ সালের নিয়োগ প্রক্রিয়া এখনও এগোয়নি। প্রায় দেড়় লক্ষ পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন। এরই মধ্যে ফের টেট পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নিতে পারে পর্ষদ।

সূত্রের খবর, আগামী ডিসেম্বরেই প্রাথমিক টেট হতে পারে। ডিসেম্বরের দ্বিতীয় বা তৃতীয় সপ্তাহে রবিবার এই টেট পরীক্ষা হবে। জানা গিয়েছে, আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই এই নিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করবে পর্ষদ।

4 weeks ago


Woman: বিনা চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ, কাঠগড়ায় হাসপাতাল

বিনা চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ। অভিযোগ উঠেছে বীরভূমের রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার দুপুরে। জানা গিয়েছে, মৃত ওই প্রসূতির নাম শাহিদা খাতুন। দ্বিতীয়বার সন্তানসম্ভবা হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই সন্তান জন্ম দেওয়ার আগেই গর্ভবতী অবস্থায় প্রাণ হারালেন তিনি। এই ঘটনাকে কেন্দ্র বেশ চাঞ্চল্য় ছড়িয়েছে গোটা হাসপাতাল চত্বরে। 

মৃতের পরিবারের অভিযোগ, রবিবার চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা শাহিদা খাতুন পেটে ব্যথা নিয়ে প্রথমে স্থানীয় মুরারই গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি হয়। এরপর সোমবার, সকালে সেখান থেকে রামপুরহাট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল স্থানান্তরিত করা হয় ওই প্রসূতিকে। অভিযোগ, সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ওই প্রসূতির কোনও চিকিৎসা হয়নি। বারংবার বলা সত্ত্বেও কোনও চিকিৎসক পর্যন্ত দেখতে আসেনি তাঁকে। চিকিৎসার অভাবে ওই প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ তাঁর পরিবারের। 

এরপর প্রসূতির মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে ময়না তদন্ত করানোর কথা বলেছেন চিকিৎসকরা। যদিও মৃত প্রসূতির পরিবার ময়না তদন্ত করতে রাজি নয়। অভিযোগ পেলে পুরো ঘটনার তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানান এমএসভিপি পলাশ দাস। পাশাপাশি ময়না তদন্ত করে সঠিক মৃত্যুর কারণ জানা যাবে বলেন তিনি। 

2 months ago
Mithun Chakraborty: আস্তাকুঁড়ে থেকে খুঁজে পাওয়া, মিঠুনের দত্তক কন্যার রূপকথার গল্প

১৮ জুন ফাদার্স ডে অর্থাৎ বাবাদের দিন। কেবলমাত্র যে জন্ম দিলেই বাবা হওয়া যায় তা নয়। ভালোবাসা-স্নেহ-পিতৃত্ব বাবাকে স্বর্গ থেকেও উচ্চতর আসনে বসাতে পারে। যেমনটা অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী (Mithun Chakraborty)। চার ছেলেমেয়েকে নিয়ে মিঠুনের ভরা সংসার। তবে অনেকেই জানেন না মিঠুনের মেয়ে দিশানী চক্রবর্তী (Dishani Chakraborty) আসলে তাঁর দত্তক কন্যা। তাঁকে খুঁজে পাওয়ার গল্প যেন একেবারে রূপকথার মতো।

যদিও মিঠুন যেই সময় মেয়েকে খুঁজে পেয়েছিলেন তখন তেমন পাপারাৎজিদের বাড়বাড়ন্ত ছিল না। যতটুকু খবর পাওয়া যায়, ফুটফুটে এই মেয়েকে পাওয়া গিয়েছিল কলকাতাতেই। মিঠুন তখন অভিনয় জগতে পসার করেছেন। অনেক ছবির কাজ রয়েছে হাতে। এমনই একদিন ডাস্টবিনের পাশে একটি বাচ্চার পড়ে থাকার খবর পাওয়া যায়। অভিনেতা ছুটে যান সেখানে। বাচ্চাটিকে বাড়ি নিয়ে যান।

ফুটফুটে এই শিশুকন্যাকে দেখে মায়া জেগেছিল মিঠুন পত্নী যোগিতা বালির মনেও। তাঁরা বাচ্চাটিকে দত্তক নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। দেরি না করে আইনি কাজ সেরে ফেলেন তাঁরা। সেই শিশুর নাম হয় দিশানী চক্রবর্তী। মুম্বইতে বড় হয়েছিলেন মিঠুন কন্যা। এরপর লস এঞ্জেলেস-এ গিয়ে অভিনয় নিয়ে নিজের পড়াশোনা শেষ করেন। বর্তমানেও সেখানেই থাকেন দিশানী। স্বপ্ন দেখেন বাবার মতো অভিনেতা হবেন।

4 months ago


Tet: টেট নিয়োগ সংক্রান্ত মামলায় অভিজিৎ বন্দোপাধ্যায়ের নির্দেশ খারিজ করল ডিভিশন বেঞ্চ

বিচারপতি (Judge) অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের (Avijit Ganguly) নির্দেশ (Order) খারিজ করে দিল কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। মঙ্গলবার প্রাথমিক স্কুলে নিয়োগ প্রক্রিয়ায় একটি মামলার শুনানি ছিল, সংশ্লিষ্ট সেই মামলায় অভিজিৎ বন্দোপাধ্যায়ের রায়কে খারিজ করে দিলো কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। পাশাপাশি খারিজ করে দেওয়া হয়েছে, ওই নিয়োগ সংক্রান্ত প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের বিজ্ঞপ্তি। সূত্রের খবর, মঙ্গলবার বিচারপতি সুব্রত তালুকদার এবং বিচারপতি সুপ্রতিম ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ তা খারিজ করে দিয়েছে।

সূত্রের খবর, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ সালে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে নিয়োগের কথা জানিয়েছিল পর্ষদ। তাতে জানিয়েছিল, প্রাথমিকে নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ যে সব প্রার্থী ২০২০-২২ সালে ডিএলএড প্রশিক্ষণের জন্য ভর্তি হয়েছেন, তাঁরা চলতি নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারবেন। পর্ষদের ওই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে মামলা করেন সৌমেন পাল-সহ কয়েক জন চাকরিপ্রার্থী। মামলাকারীদের আইনজীবী বিশ্বরূপ ভট্টাচার্যের বক্তব্য, ২০১৬ সালের নিয়ম অনুযায়ী ডিএলএড প্রশিক্ষণ সম্পূর্ণ করেছেন যাঁরা, তাঁরাই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারেন। এক্ষেত্রে ২০২০-২২ সালের প্রার্থীদের প্রশিক্ষণ সম্পূর্ণ হয়নি। ফলে তাঁরা কীভাবে চলতি নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারেন? বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় পর্ষদের সিদ্ধান্তই বহাল রেখেছিলেন। মঙ্গলবার ডিভিশন বেঞ্চ তা খারিজ করে দেয়।

6 months ago
Court: সরকারি স্কুল শিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশন বন্ধে হাইকোর্টে গৃহশিক্ষকরা

মনি ভট্টাচার্য: সরকারি স্কুল শিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশন বন্ধ করতে, এবার হাইকোর্টের দ্বারস্থ গৃহশিক্ষকরা (Private Tutor)। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টে (High Court) রাজ্যের ৩২ জন সরকারি স্কুল শিক্ষকের (Goverment Teacher) বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গৃহশিক্ষকদের একটি সংগঠন গৃহশিক্ষক কল্যাণ সমিতির সদস্যদের দাবি, যারা বেআইনি প্রাইভেট টিউশনে যুক্ত তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। তাদের আরও অভিযোগ, শিক্ষা দফতর, সংশ্লিষ্ট জেলার স্কুল পরিদর্শক ও স্কুলের প্রধান শিক্ষককে বারবার, এ বিষয়ে জানিয়ে কোনও লাভই হয়নি। তাই এবার অভিযুক্ত সরকারি শিক্ষকদের বিরুদ্ধে রাজ্যের শীর্ষ কোর্টের দ্বারস্থ তাঁরা।

২০১৮ সালে মার্চ মাসের ৮ তারিখে পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষা দফতর একটি নির্দেশিকায় স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিল, সরকারি স্কুল শিক্ষকরা কোনওভাবেই পয়সার বিনিময়ে গৃহশিক্ষকতা করতে পারবেন না। কিন্তু এই নিয়ম মানা হচ্ছে কই! অভিযোগ সরকারি স্কুল শিক্ষকদের একটি অংশ নির্দ্বিধায় পয়সার বিনিময়ে গৃহশিক্ষকতা করছেন। সরকারি নিয়মকে বুড়ো আঙ্গুল দেখানোর অভিযোগ বারবার আনা সত্ত্বেও, সরকারি শিক্ষকদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নয় কেন? এই প্রশ্নের উত্তরে সিএন -ডিজিটালের তরফে শিক্ষা দফতরের এক আধিকারিকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, 'এ বিষয়ে আমরা কিছুই জানিনা, এটা সংশ্লিষ্ট জেলার স্কুল পরিদর্শকের ব্যাপার।'


এই মামলায় গৃহশিক্ষকদের পক্ষে হাইকোর্টের আইনজীবী মুকুল বিশ্বাস বলেন, 'আইনভঙ্গকারী প্রতিটি শিক্ষকের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ শিক্ষা দফতরের। শিক্ষক সমাজের মেরুদন্ড। তাঁরা যদি আইন ভাঙ্গে, ছাত্ররা কী শিখবে? এই অবস্থায় শিক্ষা দফতর ধৃতরাষ্ট্র হয়ে থাকতে পারে না।' এ বিষয়ে গৃহশিক্ষক কল্যাণ সমিতি সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক দীপঙ্কর দাস বলেন, 'আমরা  সরকারি স্কুল শিক্ষকদের গৃহশিক্ষকতা বন্ধের জন্য ৩২ জনের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিয়েছি, গোটা রাজ্যের বিভিন্ন জেলায়, বিভিন্ন স্কুলে যুক্ত তাঁরা। এরই প্রতিবাদে সারা রাজ্যজুড়ে পথে নেমে আন্দোলনের ডাক দিয়েছি।'

6 months ago
Tet: 'মানিক ভট্টাচার্যর জুতোয় পা গলাবেন না' পর্ষদ সভাপতিকে সতর্ক করল হাইকোর্ট

পর্ষদ সভাপতিকে কড়া ভাষায় সতর্ক করল কলকাতা হাইকোর্টের (High court) বিচারপতি (Judge) অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় (Abhijit Gangopadhyay)। শুক্রবার বিচারপতি বলেন, 'মানিক ভট্টাচার্যর জুতোয় পা গলাবেন না।' আজ শুক্রবার পর্ষদ সভাপতির হাজিরা ছিল কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের সিঙ্গল বেঞ্চে। টেট সার্টিফিকেট দিতে দেরি হচ্ছে কেনো? সেই জন্য শুক্রবার, পর্ষদ সভাপতি গৌতম পালকে হাজিরার নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। শুক্রবার পর্ষদ সভাপতি আদালতে জানায়, '২০১৪-র টেট সার্টিফিকেট দিতে প্রচুর অর্থ খরচ হতে পারে।'

সে প্রশ্নের উত্তরে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের মন্তব্য, 'কোটি টাকা খরচ করে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রাখতে পারছেন, আর এটুকু খরচ করতে সমস্যা? যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তাঁদের টেট সার্টিফিকেট দিয়ে দিন।' পাশাপাশি কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি, অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় আরও মন্তব্য করেন, 'মানিক ভট্টাচার্যর জুতোয় পা গলাবেন না।' যদিও এবিষয়ে পর্ষদ সভাপতি গৌতম পাল কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি।


6 months ago


Manik: ২০১২ ও ২০১৪ টেট থেকে ১০০ কোটি তুলেছিলেন মানিক! ইডির জেরায় দাবি কুন্তলের

নিয়োগ দুর্নীতিতে (Education Scam) ক্রমশ ফাঁস হচ্ছে হাড়হিম করা তথ্য। পার্থ (Partha), অর্পিতা, মানিক, শান্তনু, অয়ন, কুন্তলের বাড়ি, অফিস তল্লাশি করে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে জাল গোটানোর চেষ্টা করছে ইডি (Ed)। ইডির দেওয়া রিমান্ড লেটার অনুযায়ী, বেঙ্গল প্রাইমারি বোর্ড অফ এডুকেশনের ছাত্রদের থেকে অফলাইন অ্যাপ্লিকেশনের জন্য মানিক ভট্টাচার্য ২০১৮-২০২২ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে কোটি কোটি টাকা তুলেছেন (Manik)।

ইডির প্রকাশ করা সেই তালিকা অনুযায়ী, ২০১৮-২০২০ বর্ষের জন্য ৩৫৩ ডিএলএড কলেজ থেকে ৯৫৪৯ প্রার্থীর থেকে মানিক তুলেছিলেন ৪ কোটি ৭৭ লক্ষ ৪৫ হাজার টাকা। ২০১৯-২০২১ বর্ষের জন্য ৩২২ কলেজ থেকে ১২,৮২৪ প্রার্থীর থেকে মানিক তুলেছিলেন ৬ কোটি ৪১ লক্ষ ২০ হাজার কোটি টাকা। পাশাপাশি ২০২০-২০২২ বর্ষে ৩৬০ কলেজ থেকে ১৯০৯১ প্রার্থীর থেকে মানিক তুলেছিলেন- ৯ কোটি ৫৪ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা। ২০১৮ থেকে ২০২২ সাল অর্থাৎ ৪ বছরের মধ্যে মানিক তোলেন ২০ কোটি ৭৩ লক্ষ ২০ হাজার টাকা। এমনকি এসবের পর ইডি কর্তারা জানিয়েছেন, এই বিপুল পরিমাণের অর্থ সংগ্রহের জন্য মানিক ভট্টাচার্য সেক্টর ফাইভের মহিষবাথানে অবস্থিত অল বেঙ্গল টিচার্স ট্রেনিং অ্যাচিভার্স অ্যাসোসিয়েশনের অফিসে লোক পাঠাতেন।

এছাড়া ইডি জানিয়েছে, কুন্তল ঘোষকে জেরা করে যে তথ্য উঠে এসেছে সেটা হল,  অয়ন শীল অনেক প্রার্থীর অবৈধভাবে সার্টিফিকেট মারফত শিক্ষাগত যোগ্যতার ব্যবস্থা করেছিলেন। ইডির দাবি, ২০১৪ টেট ও ২০১২ টেট থেকে অয়ন শীল মানিক ভট্টাচার্যের সম্মতিতে টেটের অযোগ্য প্রার্থীদের থেকে ১০০ কোটি টাকা তুলেছে।

7 months ago
Tet: 'বর্তমান শিক্ষামন্ত্রীও বেশিদিন বাইরে থাকবেন না', বিজেপি যুব নেতার পোস্টে কেন এই দাবি

অয়নের অফিসে উদ্ধার হয়েছিল বহু তথ্য, নথি, যা হাতড়ে এজেন্ট, পুরসভার চেয়ারম্যান, মেয়র, রহস্যময়ী নারী, আরও কত কী। সেই নথি ঘেটে ইডির অধিকারিকরা জানতে পারেন অয়নের অফিস থেকে উদ্ধার হওয়া নথির ২০১২ সালের প্রাইমারির তালিকা ও ওএমআর শিট আছে। সেই মোতাবেক মঙ্গলবারই তড়িঘড়ি ডেকে পাঠানো হয় প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সচিবকে।


ইডি সূত্রে দাবি, তাঁকে ২০১২ সালের নিয়োগের তথ্য নিয়ে আসতে বলা হয়েছিল। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হয়েছিল যে অয়নের বাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়া তথ্যের সমন্ধে আরও জানার জন্য তাঁকে নথি-সহ ডাকা হয়েছে। ইডির নির্দেশ মোতাবেক, মঙ্গলবার সমস্ত তথ্য সহ ইডির কলকাতা দফতর সিজিও কমপ্লেক্সে হাজির হন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের প্রতিনিধিরা, কিন্তু এদিন প্রাথমিকের সচিব এলেন না। ইডি সূত্রে খবর, প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরফে যে নথি পাঠানো হয়েছে সে সমস্ত খুঁটিয়ে দেখা হবে, এরপরে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। ২০১২ টেটের নথি উদ্ধার নিয়ে,  সোমবার ফেসবুক পোস্ট করে বিজেপি নেতা তরুণজ্যোতি তিওয়ারি বর্তমান শিক্ষামন্ত্রীর দিকে আঙ্গুল তোলেন। তিনি মঙ্গলবারের ফেসবুক পোস্টে বলেন, '২০১২ টেট খাতা খুলছে, মনে হচ্ছে বর্তমান শিক্ষামন্ত্রীও বেশিদিন বাইরে থাকতে পারবে না। যারা চাকরির জন্য সুপারিশ করেছিল তাদের বিষ্ণুমাতাও উদ্ধার করতে পারবে না।'

7 months ago


Durgapur: দুর্গাপুরে গোটা পরিবারের মৃতদেহ উদ্ধার, নেপথ্যে কি নিয়োগ দুর্নীতি! ধন্ধে পুলিস

মামা বাড়ির সঙ্গে প্রাথমিক নিয়োগ দুর্নীতির যোগ জানিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ (Whats App) মেসেজে সিবিআই তদন্তের দাবি। রাতারাতি সেই মেসেজ ঘনিষ্ঠদের পাঠিয়ে আত্মঘাতী (Suicide) দুর্গাপুরের (Durgapur) এক যুবক ও তাঁর পরিবার। রবিবার সকালে দুর্গাপুরের কুরুরিয়া ডাঙ্গা মিলনপল্লি এলাকার ঘটনা। পুলিস গিয়ে তাঁদের মৃতদেহ (Dead Body) উদ্ধার করে। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিস জানিয়েছে, ওই বাড়ির কর্তা অর্থাৎ মৃত অমিত মণ্ডল, তাঁর স্ত্রী রুপা মণ্ডল সহ তাঁদের আট বছরের সন্তান নিমিত মণ্ডল ও চোদ্দ মাসের নিকিতা মণ্ডলের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিস। রবিবার পুলিস আরও জানায় যে, ওই দুই শিশু সন্তানকে শ্বাসরোধ করে খুন (Murder) করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগে সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়ে অমিতের মোবাইল অমিতের মামাবাড়ির অনেকের প্রাথমিক শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগ দুর্নীতিতে যোগের কথা উল্লেখ আছে...থেকে রাতে স্থানীয় ও ঘনিষ্ঠদের কাছে ম্যাসেজ যায়। যেখানে অমিতের মামাবাড়ির অনেকের প্রাথমিক শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগ দুর্নীতিতে যোগের কথা উল্লেখ আছে। রবিবার কুরুরিয়া ডাঙ্গাতে একই পরিবারের চার জনের মৃত্যুর ঘটনায় পুলিস তদন্ত শুরু করেছে। যদিও গোটা ঘটনায় অমিতের মামা বাড়ির বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে অমিতের শাশুড়ি। রবিবার তিনি বলেন, 'আমার জামাইকে ওঁর মামা বাড়ির লোকেরা অত্যাচার করত, অপমান করত, ওঁরাই আমার জামাইকে খুন করেছে।'

রবিবার অমিতের পরিবারের মৃতদেহ উদ্ধার করতে গেলে বিশেষ ঝক্কি পোহাতে হয় পুলিসকে। অমিতের বাড়িতে স্থানীয়রা এসে ভিড় করে এবং পুলিসকে বাধা দেয়। এক স্থানীয়দের দাবি, 'অমিত ভালো ছেলে ছিল। কেন এমন ঘটনা ঘটাল সেটা পুলিস তদন্ত করুক।' দোষীদের উপযুক্ত সাজার দাবিতে এদিন স্থানীয়রা ক্ষোভে ফেটে পড়েন।

স্থানীয়দের দাবি, অমিতের পাঠানো মেসেজে লেখা ছিল অমিতের মামাবাড়িতে নাকি কোটি কোটি টাকা রয়েছে। এই দাবি করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলির তদন্তের দাবি জানায় সে। অমিতের এমন হোয়াটস অ্যাপ ম্যাসেজ পাওয়া মাত্রই অমিতের আত্মীয়রা কুরুরিয়া ডাঙ্গার বাড়িতে এসে দেখেন অমিতের দেহ ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে। তাঁর স্ত্রী রুপার দেহ বিছানায় পড়ে। আর মৃত অবস্থায় মেঝেতে পড়ে রয়েছে তাঁদের দুই সন্তান। এরপরই তাঁরা থানায় খবর দেন। দুর্গাপুর থানার পুলিস ঘটনাস্থলে এলে স্থানীয়রা অমিতের মামার বাড়ির বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতারের দাবি জানান।

পুলিস সূত্রে দাবি, পূর্বেই মামা বাড়ির সঙ্গে অমিতের জমিজমা সংক্তান্ত বিষয়ে বিবাদ ছিল। সেখান থেকে কিছু ঘটলো নাকি, অমিতের পাঠানো মেসেজের আদতে কোনও ভিত্তি আছে কিনা সেটার তদন্ত ইতিমধ্যেই শুরু করছে পুলিস।

7 months ago
TET: ডিসেম্বর টেটে প্রথম পূর্ব বর্ধমানের ইনা, দ্বিতীয় স্থানেও চার মহিলা!রেজাল্ট ওয়েবসাইটে

ডিসেম্বরে হওয়া প্রাথমিক টেটের (Primary TET) ফল প্রকাশ হল শুক্রবার বেলা ১টার পর। গত বছর ১১ ডিসেম্বর টেট হয়েছে, প্রায় ৭ লক্ষ পরীক্ষার্থী এই পরীক্ষায় বসেন। জানা গিয়েছে ফল, প্রকাশের পর পর্ষদ ওয়েবসাইটে দিয়ে দেওয়া হবে। বেলা তিনটে থেকে দেখা যাবে সেই ফল। এদিকে, বৃহস্পতিবার চূড়ান্ত উত্তরপত্র প্রকাশ করেছিল পর্ষদ (Primary Board)। ১১ ডিসেম্বর প্রাথমিক টেটের প্রশ্নপত্রের সঠিক উত্তর কী, তা ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে পর্ষদ। এই উত্তরের ভিত্তিতেই শুক্রবার প্রকাশিত প্রাথমিক টেটের ফল, আগেই জানিয়েছে পর্ষদ।

নিয়োগ দুর্নীতি-কাণ্ডের মধ্যেই এই ফল প্রকাশের দিকে তাকিয়ে রাজ্যের লক্ষাধিক চাকরিপ্রার্থী। পরীক্ষা গ্রহণের দু'মাস পর ফল ঘোষণা বলে পর্ষদ সূত্রে খবর। এদিন সাংবাদিক বৈঠক করেন পর্ষদ সভাপতি গৌতম পাল। তিনি জানান, '১১ ডিসেম্বর টেট পরীক্ষার দু মাসের মধ্যেই ফল প্রকাশ। নাম নথিভুক্ত করেছিলেন ৬ লক্ষ ৯০ হাজার ৯৩২ জন, এঁদের মধ্যে ৬ লক্ষ ১৯ হাজার ১০২ জন পরীক্ষা দিয়েছিলেন।' পরীক্ষায় পাশ করেন ১ লক্ষ ৫০ হাজার ৪৯১ জন, পাশের হার ২৪.৩১%। অকৃতকার্য পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৪ লক্ষ ৬৮ হাজার ৫৪৯ জন, এদিন সংবাদ মাধ্যমকে জানান গৌতমবাবু।

জানা গিয়েছে, টেট ২০২২ পরীক্ষায় প্রথম হয়েছেন পূর্ব বর্ধমানের ইনা সিংহ। তিনি ১৫৫-র মধ্যে ১৩৩ পেয়ছেন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন চার জন। ১৩২ পেয়েছেন হুগলির মৌনিশা কুন্ডু, পশ্চিম মেদিনীপুরের মেঘনা চক্রবর্তী এবং দীপিকা রায় আর পূর্ব মেদিনীপুরের অদিতি মজুমদার। অর্থাৎ মেধাতালিকার প্রথম এবং দ্বিতীয় দুই স্থানেই মহিলা চাকরিপ্রার্থীদের জয়জয়কার। জানা গিয়েছে,  প্রথম-দশমের মেধাতালিকায় স্থান পেয়েছেন ১৭৭ জন।



8 months ago
Reuslt: ডিসেম্বর টেটের ফল প্রকাশ, জানুন কীভাবে দেখবেন রেজাল্ট

ডিসেম্বরে হওয়া প্রাথমিক টেটের (Primary TET) ফল প্রকাশ হল শুক্রবার বেলা ১টার পর। গত বছর ১১ ডিসেম্বর টেট হয়েছে, প্রায় ৭ লক্ষ পরীক্ষার্থী এই পরীক্ষায় বসেন। জানা গিয়েছে ফল, প্রকাশের পর পর্ষদ ওয়েবসাইটে দিয়ে দেওয়া হবে। বেলা তিনটে থেকে দেখা যাবে সেই ফল। এদিকে, বৃহস্পতিবার চূড়ান্ত উত্তরপত্র প্রকাশ করেছিল পর্ষদ (Primary Board)। ১১ ডিসেম্বর প্রাথমিক টেটের প্রশ্নপত্রের সঠিক উত্তর কী, তা ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে পর্ষদ। এই উত্তরের ভিত্তিতেই শুক্রবার প্রকাশিত প্রাথমিক টেটের ফল, আগেই জানিয়েছে পর্ষদ।

নিয়োগ দুর্নীতি-কাণ্ডের মধ্যেই এই ফল প্রকাশের দিকে তাকিয়ে রাজ্যের লক্ষাধিক চাকরিপ্রার্থী। পরীক্ষা গ্রহণের দু'মাস পর ফল ঘোষণা বলে পর্ষদ সূত্রে খবর।  

8 months ago


Justice: সরকারের সঠিক ভূমিকায় মুখ্যমন্ত্রীর কাজের প্রশংসা করব: জাস্টিস অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

টেট ২০২২ (TET 2022) আয়োজনে পর্ষদের ভূমিকায় সন্তুষ্ট বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। মঙ্গলবারের পর বুধবারেও তাঁর অবস্থান একই। এদিন বিচারপতি (Justice Ganguly) বলেন, "শিক্ষা পর্ষদ (Primary Board) যদি ভালো কাজ করে তার প্রশংসা আমি করবোই। সরকারের যদি সঠিক ভূমিকা থাকে তবে মুখ্যমন্ত্রীর (CM Mamata) কাজের প্রশংসা করবো। আবার যদি দেখি শিক্ষা পর্ষদ কোনও ভুল কাজ করছে তবে তার সমালোচনাও আমি করবো। এর পেছনে অন্য কোনো কারণ নেই।"

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের একটি মামলা চলাকালীন এই মন্তব্য করেছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। এদিকে, রবিবার রাজ্যজুড়ে হওয়া টেটে বসেন ৭ লক্ষের বেশি পরীক্ষার্থী। এই বিরাট আয়োজনকে সুষ্ঠু রাখতে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করেছিল রাজ্য প্রশাসন। রবিবার ছুটির দিনেও পথে ছিল পর্যাপ্ত বাস, ছিল অতিরিক্ত ট্রেন।

কিন্তু প্রশাসনিক এই তৎপরতার সঙ্গেই একাধিক অব্যবস্থার অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিলেন কিছু পরীক্ষার্থী। কোথাও বায়োমেট্রিক বিকল, কোথাও অ্যাডমিট কার্ডে পরীক্ষা কেন্দ্রের ভুল ঠিকানার মতো অভিযোগ উঠেছে। তবে পরীক্ষার সন্ধ্যায় পর্ষদ সভাপতি দাবি করেছেন সুষ্ঠু হয়েছে চলতি বছরের টেট। এই আয়োজনের জন্য তিনি মুখ্যমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানান।

10 months ago
Avijit: টেট ২০২২ পরীক্ষার ব্যবস্থাপনায় সন্তুষ্ট বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়, কী বললেন তিনি

১১ নভেম্বর, ২০২২ আয়োজিত টেট (TET 2022) পরীক্ষার ব্যবস্থাপনায় সন্তোষপ্রকাশ বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের (Justice Ganguly)। 'টেট হওয়ার পর কার্বন কপি দিয়ে দেওয়া হয়েছে। মনে হচ্ছে কাজ ভালো হচ্ছে।' এই মন্তব্য করেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। একটি মামলার শুনানি চলাকালীন এহেন মন্তব্য কলকাতা হাইকোর্টের (Calcutta High Court) বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের।

নিয়ম অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত টেট-২০২২ ওএমআর শিট সংরক্ষণ করা থাকবে। ৫.৫ লক্ষের বেশি ওএমআর শিট সংরক্ষণ করা হচ্ছে। আদালতে জানালের প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের আইনজীবী। রবিবার রাজ্যজুড়ে টেটে বসেন ৭ লক্ষের বেশি পরীক্ষার্থী। আয়োজন সুষ্ঠু রাখতে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা রেখেছিল রাজ্য প্রশাসন। ছুটির দিন হলেও পথে ছিল পর্যাপ্ত বাস, ছিল অতিরিক্ত ট্রেনের ব্যবস্থা।

যদিও একাধিক অব্যবস্থার অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিলেন কিছু পরীক্ষার্থী। কোথাও বায়োমেট্রিক বিকল, কোথাও অ্যাডমিট কার্ডের পরীক্ষা কেন্দ্রের ভুল ঠিকানার মতো অভিযোগ উঠেছে। যদিও পরীক্ষার সন্ধ্যায় পর্ষদ সভাপতি দাবি করেছেন সুষ্ঠুভাবে হয়েছে চলতি বছরের টেট পরীক্ষা। এই আয়োজনের জন্য তিনি মুখ্যমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানান।

10 months ago