সর্বাত্মক বনধে উত্তপ্ত উত্তরপূর্ব, সংঘর্ষ, আগুন, ভাঙচুর

0
526

বনধে উত্তপ্ত হয়ে উঠছে গোটা উত্তরপূর্ব। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে এই বনধের ডাক দিয়েছে উত্তরপূর্বের যৌথ ছাত্র সংগঠন নেসো। হর্নবিল উৎসবের জন্য বনধ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে নাগাল্যান্ডকে। বনধে মঙ্গলবার সকাল থেকেই গোটা ব্রহ্মপুত্র উপত্যকা সম্পূর্ণ স্তব্ধ হয়ে পড়েছে। অসমে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত হয়েছেন ছাবুয়া থানার ওসি। নিরাপত্তাবাহিনীর দুটি গাড়িতেও ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়েছে। পাথর মারা হয়েছে সিআইএসএফের গাড়িতে। আক্রান্ত হয়েছে বিমানবাহিনীর একটি গাড়িও। জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে একটি ট্রাক। অসমে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ট্রেন চলাচল। রঙিয়ায় রেলের সদর দফতর ঘেরাও করা হয়েছে। বাসে পাথর মারার খবর এসেছে গুয়াহাটির মালিগাঁও থেকেও। সচিবালয়, বিধানসভার বাইরে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের তুমুল সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে। ডিব্রুগড়ে সিআইএসএফের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছে। দুলিয়াগঞ্জে আহত হয়েছেন তিনজন। ত্রিপুরায় চলছে অনির্দিষ্টকালের বনধ। অরুণাচলপ্রদেশে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যাঙ্ক ও অফিস বন্ধ রয়েছে। রাস্তায় চলছে না গাড়ি। সরকারি অফিসে হাজিরা শূন্য। কয়েকটি জায়গায় বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের খবর এসেছে। এই বনধকে সমর্থন করেছে ১৬টি বামপন্থী সংগঠন। সমর্থন জানিয়েছে কংগ্রেস, এআইডিইউএফ, আসু, কৃষক মুক্তি সংগ্রাম সমিতিও। এই বিক্ষোভের পরিপ্রেক্ষিতে শোনিতপুর এবং লখিমপুরে জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা।