করোনা সংক্রমণ কমল বাড়ল সুস্থতার সংখ্যা

 |  2 days ago

মূল মন্ত্র 'সচেতনতা' উদ্যোগী ফোরাম ফর দুর্গোত্সব, ক্ষতির মুখে ব্যবসায়ীরা

 |  3 days ago

ভ্যাকসিন সংকট, নাকাল গ্রহীতারা, শুরু হকারদের টিকাকরণ কর্মসূচি

 |  3 days ago

কোভিশিল্ডের দুই ডোজের ব্যবধান বাড়ল, অ্যান্টনি ফসির নিশানায় কেন্দ্র

 |  4 days ago

কোভিড রুখতে তত্পর প্রশাসন টিকাকরণ কর্মসূচি, সেফ হোম

 |  4 days ago

করোনা মোকাবিলায় একাধিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন পাশে দাঁড়াচ্ছেন একাধিক সমাজসেবী

 |  5 days ago

একদিনে রেকর্ড মৃত্যু দেশে

 |  5 days ago

রাজ্যে সংক্রমণ বাড়ছে করোনার

 |  5 days ago

'দেশের নেতারা ব্যর্থ' ',মানেননি গবেষকদের পরামর্শ' ,তীব্র সমালোচনা নেচার পত্রিকায়

 |  7 days ago

রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত ২০,১৩৬ কলকাতাকে ছাপিয়ে উঃ ২৪ পরগনা

 |  6 days ago

অক্সিজেন সিলিন্ডারে কালোবাজারি অভিযানে প্রশাসনের আধিকারিকরা

 |  6 days ago

নয়া বিপদ 'ব্ল্যাক ফাঙ্গাস' করোনার সঙ্গেই সংক্রমণের শঙ্কা ডেকে আনতে পারে মৃত্যুও

 |  6 days ago

দেশে কমল করোনা সংক্রমণ, সংক্রমণ সাড়ে ৩ লক্ষের নীচে

 |  7 days ago

ভ্যাকসিন সংকট অব্যাহত, বিধাননগরে চূড়ান্ত বিশৃঙ্খলা, পিজি-তে ফিরে গেলেন অনেকে

 |  7 days ago

রাজ্যে আরও সাড়ে ৭ লক্ষ কোভিশিল্ড, হাসপাতালগুলিতে অপ্রতুল ভ্যাকসিন

 |  a week ago

দেশে কমল করোনা সংক্রমণ, কমল মৃত্যুর সংখ্যাও

 |  a week ago

রোগী ভর্তিতে আবশ্যিক নয় রিপোর্ট, ডিআরডিও-র ড্রাগে ছাড়পত্র কেন্দ্রের

 |  a week ago

বিদেশ থেকে ভ্যাকসিন আমদানিতে ছাড়পত্র, আমদানি করতে পারবে বেসরকারি সংস্থা

 |  a week ago

সারা শহর জীবানুমুক্ত রাখতে উন্নত প্রযুক্তিসম্পন্ন ২০ টি স্যানিটাইজেশন মেশিনের ব্যবস্থা করল কলকাতা পুরসভা

 |  a week ago

অক্সিজেন সরবরাহ আরও বাড়ানোর দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি মুখ্যমন্ত্রীর।

 |  a week ago

সর্বশেষ আপডেট
অনেকে পড়ছেন
বন্ধ স্কুলেই ‘সেফ’ হোম তৈরির উগ্যোগ নিল রাজ্য সরকার

করোনা সংক্রমণের জেরে দীর্ঘদিন ধরেই বন্ধ রয়েছে রাজ্যের সমস্ত স্কুল-কলেজ। এবার করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের জেরে আপাতত স্থগিত মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষাও। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের স্কুলগুলিকে ‘সেফ হোম’ বানাতে চায় রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দফতর। সেইমতো সমস্ত জেলাশাসককে নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে যাতে স্কুলগুলি স্যানিটাইজ করে প্রয়োজনমতো সেফ হোম বানিয়ে নেওয়া যায়। সূত্রের খবর, গত রবিবারই এই সংক্রান্ত নির্দেশিকা জেলাশাসকদের পাঠিয়ে দেওয়া হয়। ওই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে এলাকায় প্রয়োজনমতো স্কুল বাছাই করে আগে পরিস্কার পরিচ্ছিন্ন এবং জীবানুমুক্ত করার জন্য। দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ থাকায় ধুলোবালি জমে থাকবে এটা বলাই বাহুল্য। তাই জরুরী ভিত্তিতে স্কুলগুলি পরিস্কার করা দরকার। এরপর সেই রিপোর্ট স্কুল শিক্ষা দফতরে পাঠাতে বলা হয়েছে জেলাগুলিকে। পরে প্রয়োজনমতো স্কুলগুলিতেই সেফ হোম তৈরি করার ছাড়পত্র দেবে দফতর। তবে সেখানে কী কী ধরণের সুবিধা পাওয়া যাবে সেটা এখনও জানা যায়নি।

....

2 hours ago

ভিডিও খবর

Popular TV Programme

বন্ধ স্কুলেই ‘সেফ’ হোম তৈরির উগ্যোগ নিল রাজ্য সরকার

করোনা সংক্রমণের জেরে দীর্ঘদিন ধরেই বন্ধ রয়েছে রাজ্যের সমস্ত স্কুল-কলেজ। এবার করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের জেরে আপাতত স্থগিত মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষাও। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের স্কুলগুলিকে ‘সেফ হোম’ বানাতে চায় রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দফতর। সেইমতো সমস্ত জেলাশাসককে নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে যাতে স্কুলগুলি স্যানিটাইজ করে প্রয়োজনমতো সেফ হোম বানিয়ে নেওয়া যায়। সূত্রের খবর, গত রবিবারই এই সংক্রান্ত নির্দেশিকা জেলাশাসকদের পাঠিয়ে দেওয়া হয়। ওই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে এলাকায় প্রয়োজনমতো স্কুল বাছাই করে আগে পরিস্কার পরিচ্ছিন্ন এবং জীবানুমুক্ত করার জন্য। দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ থাকায় ধুলোবালি জমে থাকবে এটা বলাই বাহুল্য। তাই জরুরী ভিত্তিতে স্কুলগুলি পরিস্কার করা দরকার। এরপর সেই রিপোর্ট স্কুল শিক্ষা দফতরে পাঠাতে বলা হয়েছে জেলাগুলিকে। পরে প্রয়োজনমতো স্কুলগুলিতেই সেফ হোম তৈরি করার ছাড়পত্র দেবে দফতর। তবে সেখানে কী কী ধরণের সুবিধা পাওয়া যাবে সেটা এখনও জানা যায়নি।

একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু দেশে, তবুও কমল দৈনিক সংক্রমণ

সোমবারই দেশে করোনার দৈনিক সংক্রমণ নেমে গিয়েছিল তিন লাখের নীচে। খানিকটা স্বস্তি বাড়িয়ে আরও নীচে নামল দৈনিক সংক্রমণের হার। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৬৩ হাজার ৫৫৩ জন। কিন্তু চিন্তা বাড়িয়ে দৈনিক মৃত্যুর হার আরও বাড়ল। গত ২৪ ঘন্টায় দেশে মারা গিয়েছেন ৪,৩২৯ জন করোনা আক্রান্ত। ভারতে করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে এখনও পর্যন্ত মোট সংক্রমিতের সংখ্যা আড়াই কোটি পেরিয়ে গেল। এখনও অবধি দেশে মোট সংক্রমিত হয়েছেন ২ কোটি ৫২ লাখ ২৮ হাজার ৯৯৬ জন। আবার করোনার জেরে দেশে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৭৮ হাজার ৭১৯ জনের। মৃত্যুর নিরিখে গত ২৪ ঘন্টায় মৃতের সংখ্যাই এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ।


বিশেষজ্ঞদের অভিমত, মহারাষ্ট্র, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, ছত্তীসগঢ়, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশ, বিহার, কেরলের মতো রাজ্যগুলিতে সংক্রমণের হার কমেছে। যার ফলে দেশের সার্বিক সংক্রমণ কমল অনেকটা। কিন্তু চিন্তা বাড়াচ্ছে তামিলনাড়ু, কর্নাটক, অন্ধ্রপ্রদেশের মতো রাজ্যগুলি। আপরদিকে পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যেও সংক্রমণ লাগামছাড়া। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৬৩ হাজার ৫৩৩ জন। সেখানে করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ২২ হাজার ৪৩৬ জন। এর জেরেই দেশে সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও কমছে। এখনও পর্যন্ত আশার আলো এটাই। বর্তমানে দেশে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৩৩ লাখ ৫৩ হাজার ৭৬৫।

প্রায় এক মাস পর দেশে দৈনিক সংক্রমণ নামল ৩ লাখের নীচে

প্রায় এক মাস পর দেশে দৈনিক সংক্রমণের হার ৩ লাখের নীচে নামল। যা কিছুটা হলেও স্বস্তির খবর বলেই মানছেন বিশেষজ্ঞরা। যদিও করোনার মৃতের সংখ্যা চার হাজারের উপরেই থাকল। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় দেশে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৮১ হাজার ৩৮৬ জন। করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন ৪,১০৬ জন। গত এক সপ্তাহ ধরেই দেশে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা তিন লাখের নীচে ছিল, এবার সেটা নেমে গেল তিন লাখের নীচেই। মহারাষ্ট্র, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাবের মতো রাজ্যগুলিতে লকডাউনের ফল বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞ মহল। কারণ দেশে গত ২৪ ঘন্টায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও কমল প্রায় ১ লাখের বেশি। মোট সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও নেমে গিয়েছে ৩৫ লাখের নিচে। সবমিলিয়ে আশার আলো দেখছেন চিকিৎসকরা। দেশজুড়ে টিকাকরণ প্রক্রিয়াও চলছে জোরকদমে। গত ২৪ ঘন্টায় ৭ লাখ ৬ হাজার ২৯৬ জন টিকা পেয়েছেন। দেশে মোট টিকা পেলেন ১৮ কোটির বেশি মানুষ।

সোমবারই বাজারে আসছে DRDO-র তৈরি করোনার নতুন ওষুধ

ভারতের প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থা বা ডিআরডিও শত্রুপক্ষের সঙ্গে লড়াইয়ের সাজ সরঞ্জাম তৈরি করে থাকে। এবার তাঁরা করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়াইয়ের ওষুধও তৈরি করে ফেলল। সোমবারই তা উদ্বোধন করবেন দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। ডিআরডিও সূত্রে জানানো হয়েছে নতুন এই করোনার ওষুধের নাম টু ডিজি (2-DG) বা টু ডিঅক্সি ডিগ্লুকোজ। সংস্থা আরও জানিয়েছে, ইতিমধ্যেই তাঁদের ল্যাবরেটরিতে এই ১০ হাজার অ্যান্টি কোভিড ড্রাগ তৈরি হয়ে গিয়েছে। সোমবারই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই মহার্ঘ ওষুধ জাতির উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করবেন দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।


জানা যাচ্ছে ডক্টর রেড্ডিস ল্যাবরেটরি ও ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশনের (ডিআরডিও) যৌথ উদ্যোগে তৈরি এই ওষুধ তৈরি করেছে। আরও জানা গিয়েছে, ২ ডিজি ওষুধটি অনেকটা গ্লুকোজের মতো। বাজারে পাউডার হিসেবে মিলবে এই ওষুধ এবং খেতে হবে জলে গুলে। সম্প্রতি ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর এই অ্যান্টি কোভিড ড্রাগ টু ডিজি-কে ছাড়পত্র দিয়েছে ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া (DCGI)। ডিআরডিও জানিয়েছে, আগামীদিনে এই ওষুধ যাতে বাজারে সহজসাধ্য হয় তাঁর জন্য যথাসাধ্য প্রচেষ্টা করছেন সংস্থার বিজ্ঞানী এবং কর্মীরা।