Cyclone: ধেয়ে আসছে গুলাব ঘূর্ণিঝড়, ভাসবে বাংলা

ইয়াসের পর ফের আরও এক ঘূর্ণিঝড় আসতে চলেছে। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, ওড়িশা-অন্ধ্রপ্রদেশ সীমানার কলিঙ্গপত্তনমে আছড়ে পড়বে ঘূ্ণিঝড়় 'গুলাব' ।  রবিবার বিকেল ৩টে থেকে ৫টার মধ্য়ে ল্যান্ডফলের আশঙ্কা। এর প্রভাবে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলোতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বেশি প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে কলকাতা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুরে। শহরের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকবে। মাঝে মধ্য়ে কয়েক পশলা বৃষ্টিতে ভিজতে পারে মহানগর। ।

কলকাতার তাপমাত্রা ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ঘোরাফেরা করবে। আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের চেয়ে ১ ডিগ্রি বেশি। গতকাল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের চেয়ে ১ ডিগ্রি কম। বাতাসে জলীয়বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ ৯৭ শতাংশ।পূর্ব মেদিনীপুরে কয়েক পশলা ভারী বৃষ্টি। সঙ্গে ৪০ কিলোমিটার বেগে দমকা হওয়া বইবে। সাগরে ঘনীভূত ঘূর্ণাবর্ত নিম্নচাপের রূপ নিলেই সোমবার রাতে ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ  শুরু হয়ে যাবে উপকূলবর্তী জেলায়।আর মঙ্গল ও বুধবার  বৃষ্টি চলতে পারে কলকাতা—সহ দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলাগুলোতেও। আর অনাগত সেই ঘূর্ণাবর্ত—নিম্নচাপের ধাক্কা সামলাতে প্রশাসনিকমহল ইতিমধ্যেই কোমর বেঁধে নেমেছে। নবান্নে খোলা হয়েছে কন্ট্রোলরুম।

রাজ্যে তার সরাসরি প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা কম। শুধু পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় ভারী বৃষ্টি হতে পারে। জারি হয়েছে হলুদ সর্তকতা। ঘূর্ণিঝড়ের এবারের নামকরণটি করেছে পাকিস্তান। এর অর্থ হল গোলাপফুল।হাওয়া অফিস জানিয়েছে, মঙ্গলবার থেকে বৃষ্টির সঙ্গে উপকূলের জেলাগুলিতে ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা থেকে সর্বোচ্চ ৭০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা এবং কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলাগুলিতে ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা থেকে সর্বোচ্চ ৫০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা গতিবেগে ঝোড়ো হাওয়া বইবে।


....

2 hours ago