বর্ষা বিদায়ের পরও বৃষ্টির পূর্বাভাস

সোমবার থেকেই রাজ্যে শীতের আমেজ শুরু হয়ে গিয়েছে। রাত এবং সকালের দিকে হালকা শীত শীত ভাব অনুভূত হচ্ছে। এদিকে শুরু হয়ে গিয়েছে কুয়াশা পড়াও।  আলিপুর আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, আপাতত রাতে ও সকালের দিকে হালকা শীতের আমেজ বজায় থাকবে। পশ্চিমের জেলাগুলিতে শীতের আমেজ বেশি অনুভূত হবে। 

তবে বৃষ্টির সম্ভাবনাও রয়েছে। উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, নদিয়া এবং পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা। কলকাতায় আংশিক মেঘলা আকাশ। আলিপুর আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বৃষ্টি হলেও তা খুব জোরালো হবে না। দু-এক পশলা ছিটেফোঁটা বৃষ্টি হতে পারে। উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে হালকা বৃষ্টি চলবে। দার্জিলিং, কালিম্পংয়ের দু-এক জায়গায় বিক্ষিপ্তভাবে খুবই হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা। 

রবিবার আলিপুর হাওয়া অফিসের তরফে জানানো হয়েছিল, বঙ্গে বর্ষা বিদায় নিয়েছে। রাজ্যে এরপর প্রবেশ করবে শীত। তবে এখন উলোট-পুরাণ শুরু হয়েছে। ফের কতদিন এরকম চলে, সেটাই দেখার। কারণ এখনই ছাড়ছে না বৃষ্টি। মূলত ঘূর্ণাবর্তের জেরেই বৃষ্টি চলবে। এবছর তবে কি বৃষ্টিতেই কাটাতে হবে, প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।   

তবে রাতের তাপমাত্রা কমবে। সোমবার সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৩.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রবিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩১.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসে জলীয় বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ ছিল ৯৮ শতাংশ। বৃষ্টি হয়েছে ১.৮ মিলিমিটার। যদিও এবছর টানা বৃষ্টিতে নাস্তানাবুদ হয়ে পড়েছিল মানুষ। চারদিকে একেবারে জলযন্ত্রণা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। পুজোতে বৃষ্টির সম্ভাবনা ছিল। কিন্তু তা আর হয়নি। এটাই যা রক্ষে।  

তবে বর্ষা বিদায়পর্ব শুরু হতেই  উত্তর পশ্চিম ভারতে আসতে শুরু করেছে একের পর এক পশ্চিমী ঝঞ্ঝা। পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাবে জম্মু-কাশ্মীর, লাদাখ ও হিমাচল প্রদেশের কিছু অংশে তুষারপাতের সম্ভাবনা। বৃষ্টি হবে জম্মু ও কাশ্মীর, লাদাখ, পাঞ্জাব, হিমাচলপ্রদেশ-সহ উত্তর পশ্চিম ভারতের রাজ্যগুলিতে।


....

21 hours ago