কলকাতা
প্যান-নম্বর হাতিয়ে অভিনব জালিয়াতি

কলকাতা  |  yesterday

তৃণমূলের খেলা হবে শ্লোগানে ভোট সন্ত্রাসের ছায়া দেখছে বিরোধীরা

কলকাতা  |  yesterday

ভোটের আগে সেজে উঠেছে তৃণমূল ভবন

কলকাতা  |  yesterday

আন্দোলন তুলে নিল আনএডেড মাদ্রাসার শিক্ষকরা

কলকাতা  |  yesterday

কলকাতা পুলিসে রদবদল

কলকাতা  |  yesterday

৩ পুলিস কর্মীর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়ের বিজেপির।

কলকাতা  |  yesterday

বিজেপির পরিবর্তন যাত্রার ট্যাবলো ভাঙা হলো কাদাপাড়ায়

কলকাতা  |  yesterday

১৩০টি আসনের সম্ভাব্য প্র্রার্থী তালিকা তৈরি করল বিজেপি

কলকাতা  |  yesterday

৮০ বছরের ঊর্ধ্ব এবং শারীরিকভাবে অক্ষম ব্যক্তিদের ভোটদানের জন্য পোস্টাল ব্যালট

কলকাতা  |  yesterday

এসএলএসটি চাকরিপ্রার্থীরা এখন আমরণ অনশনের পথে

কলকাতা  |  yesterday

বৌবাজারের গণেশচন্দ্র অ্যাভেনিউ-এর একটি গোডাউনে অগ্নিকাণ্ড

কলকাতা  |  yesterday

রবিবারের ব্রিগেড জমায়েত ফের নতুন নজির গড়বে- দাবি বামেদের

কলকাতা  |  yesterday

লাল শালু মোড়া স্বপ্ন রবির চোখে

কলকাতা  |  yesterday

লাল নিশানায় ব্রিগেড

কলকাতা  |  yesterday

কাস্তে হাতে জোট ব্রিগেডে ...

কলকাতা  |  yesterday

শিশু শ্রমের দায় উঠল খোদ কলকাতা পুরসভার বিরুদ্ধে

কলকাতা  |  2 days ago

উনিশ শতকের নিয়ে সন্দেহ থাকলেও মমতার 'নবজাগরণ' নিয়ে সংশয়াতীত ব্রাত্য

কলকাতা  |  2 days ago

এসএলএসটি-র অনশনের ১৮তম দিনে অসুস্থ এক

কলকাতা  |  2 days ago

পেঁয়াজের লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধিতে সমস্যায় সাধারণ মানুষ

কলকাতা  |  2 days ago

মুখ্যমন্ত্রীর কালীঘাটের বাড়িতে হোম-যজ্ঞ

কলকাতা  |  2 days ago

সর্বশেষ আপডেট
অনেকে পড়ছেন
পামেলাকাণ্ডে গ্রেফতার আরও একজন

পামেলাকাণ্ডে কলকাতা পুলিশ আরও একজনকে গ্রেফতার করল। রবিবার রাতে সূরযকুমার সাউ নামে একজনকে কলকাতার অরফ্যানগঞ্জ রোড থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে মাদক মামলায়। সেই সঙ্গে একটি স্কুটিও আটক করেছে পুলিশ। নিউ আলিপুরে বিজেপি নেত্রী পামেলা গোস্বামী গ্রেফতার হওয়ার সময় এই সূরযের স্কুটিতেই চড়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান অমৃত সিং নামে এক ব্যক্তি। যিনি বিজেপি নেতা রাকেশ সিংয়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলেই জানতে পেরেছে পুলিশ। এই মামলায় অমৃত সিং নামে ওই ব্যক্তিকেও খুঁজছে পুলিশ।

তদন্তকারীদের দাবি, এই মামলায় অমৃতের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। পামেলাকে গ্রেফতারের সময় অমৃতের সঙ্গে ছিলেন সূরয। এখন পুলিশ ওই স্কুটি করেই কোকেন আনা হয়েছিল কিনা সেটা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। কলকাতা পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, পামেলা জেরায় জানিয়েছেন, তাঁর ব্যাগে মাদক (কোকেন) রাখা হয়েছিল, কেউ বা কারা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে মাদক রেখেছিল। তাঁর অভিযোগ ছিল সরাসরি বিজেপি নেতা রাকেশ সিংয়ের দিকে। রাকেশকেও গ্রেফতার করে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। এবার আরও একজন ধরা পরল এই মামলা। আরও বেশ কয়েকজন সন্দেহভাজনকে জেরা করছে পুলিশ।

....

6 hours ago

ভিডিও খবর

Popular TV Programme

পামেলাকাণ্ডে গ্রেফতার আরও একজন

পামেলাকাণ্ডে কলকাতা পুলিশ আরও একজনকে গ্রেফতার করল। রবিবার রাতে সূরযকুমার সাউ নামে একজনকে কলকাতার অরফ্যানগঞ্জ রোড থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে মাদক মামলায়। সেই সঙ্গে একটি স্কুটিও আটক করেছে পুলিশ। নিউ আলিপুরে বিজেপি নেত্রী পামেলা গোস্বামী গ্রেফতার হওয়ার সময় এই সূরযের স্কুটিতেই চড়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান অমৃত সিং নামে এক ব্যক্তি। যিনি বিজেপি নেতা রাকেশ সিংয়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলেই জানতে পেরেছে পুলিশ। এই মামলায় অমৃত সিং নামে ওই ব্যক্তিকেও খুঁজছে পুলিশ।

তদন্তকারীদের দাবি, এই মামলায় অমৃতের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। পামেলাকে গ্রেফতারের সময় অমৃতের সঙ্গে ছিলেন সূরয। এখন পুলিশ ওই স্কুটি করেই কোকেন আনা হয়েছিল কিনা সেটা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। কলকাতা পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, পামেলা জেরায় জানিয়েছেন, তাঁর ব্যাগে মাদক (কোকেন) রাখা হয়েছিল, কেউ বা কারা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে মাদক রেখেছিল। তাঁর অভিযোগ ছিল সরাসরি বিজেপি নেতা রাকেশ সিংয়ের দিকে। রাকেশকেও গ্রেফতার করে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। এবার আরও একজন ধরা পরল এই মামলা। আরও বেশ কয়েকজন সন্দেহভাজনকে জেরা করছে পুলিশ।

ব্রিগেডে উধাও ‘বন্দেমাতরম’

রবিবারের ব্রিগেডে প্রায় সকলের ভাষণেই স্থান পেয়েছে ‘ইনকিলাব জিন্দাবাদ’। স্বাধীনতা সংগ্রামে সশস্ত্র আন্দোলনকারীদের কণ্ঠে থাকতো ইনকিলাব ধ্বনি। অবশ্য বন্দেমাতরমও থাকতো। বামেরা বিপ্লবের কথা ব্যবহার করতো বলে তাদের বিশ্ব কমিউনিস্টদের স্লোগান বিপ্লব দীর্ঘজীবী হোক অর্থাৎ ইনকিলাব জিন্দাবাদ ধ্বনি ভারতীয় স্লোগান হয়েছিল। আবার 'জয় হিন্দ' ধ্বনি হিন্দু দলগুলির না-পসন্দ ছিল, কারণ এই ধ্বনি নেতাজি ব্যবহার করতেন, যা নেতাজি সহযোগী জয়নাল আবেদিনের সৃষ্টি বলে কথিত আছে। তাই তাঁরা ‘ভারত মাতা কি জয়’ স্লোগান এনেছিলেন রাজনীতিতে।


কিন্তু ‘বন্দেমাতরম’ স্লোগান আসে বঙ্কিমচন্দ্রের লেখনী থেকে। বঙ্কিমচন্দ্রের লেখনীতে হিন্দু সংস্কৃতি স্থান পেয়েছিল, তাই বামেরা দেশকে মা হিসাবে বন্ধনা করতে নারাজ ছিলেন বলে শোনা যায়। অবশ্য এই নিয়ে বিতর্কও রয়েছে প্রচুর। কংগ্রেস কিন্তু ‘জয় হিন্দ’ এবং ‘বন্দেমাতরম’ দুইই ভাষণের শেষে ব্যবহার করে থাকে, তৃণমূলও তাই। বিজেপি আবার ভারত মাতার মতো বন্দেমাতরম ধ্বনি দিয়ে থাকেন। রবিবার কিন্তু কোনও বক্তা বন্দেমাতরম বললেন না। ভাষণ শেষে অধীর চৌধুরী বললেন, জয় হিন্দ, ইনকিলাব জিন্দাবাদ। ছত্রিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী বক্তব্য শেষে শুভ জয় হিন্দ বললেন।

ভোট ঘোষণার পর রাতেই বিজেপির পরিবর্তন রথ ভাঙচুর

ভোট ঘোষণার দিনই বিজেপির পরিবর্তন রথ ভাঙচুরের অভিযোগ উঠল মানিকতলা এলাকায়। অভিযোগের তির অবশ্যেই তৃণমূলের দিকেই। অভিযোগ, শুক্রবার রাতে মানিকতলার কাদাপাড়া এলাকায় একটি গোডাউনে রাখা বিজেপির পরিবর্তন যাত্রার রথ ভাঙচুর করে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। এছাড়াও ওই রথে থাকা এনইডি স্ক্রিন, মোবাইল ও ল্যাপটপও চুরি গিয়েছে বলে দাবি করেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপির অভিযোগ, ভোটের প্রচারের জন্য বিভিন্ন সামগ্রী রাখার জন্যই ওই গুদামঘরটি ভাড়া নেওয়া হয়েছিল। বিজেপির দাবি, শুক্রবার গভীর রাতে সেখানেই হানা দেয় ১৫ থেকে ২০ জনের একটি দুষ্কৃতী দল। তাঁরা নির্বিচারে ভাঙচুর শুরু করতে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন নিরাপত্তারক্ষী এবং পরিবর্তন রথের চালক ও খালাসি। গোলমাল শুনে সেখানে ছুটে আসেন আরও কয়েকজন। অভিযোগ তাঁদের মারধোর করে চম্পট দেয় ওই দুষ্কৃতীরা। খবর পেয়ে রাতেই সেখানে পৌঁছে যান বিজেপি নেতা সব্যসাচী দত্ত। পরে তিনি ফুলবাগান থানায় এই সংক্রান্ত লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ফুলবাগান থানার পুলিশ। যদিও শনিবার সকাল পর্যন্ত কোনও গ্রেফতারির খবর নেই।

পামেলা কাণ্ডে এবার নোটিশ অনুপম ও শঙ্কুকে

শুক্রবার কয়লা কাণ্ডে একদিকে যখন ইডি-সিবিআই তোলপাড় করে দিচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের নানান প্রান্ত। ঠিক তখনই কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার নোটিশ গেল বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা এবং শঙ্কুদেব পাণ্ডার বাড়িতে। বিষয় পামেলা কাণ্ড। বিজেপির যুবনেত্রী পামেলা গোস্বামী সম্প্রতি কলকাতা পুলিশের হাতে ড্রাগ সহ ধরা পড়েন। পামেলার বয়ানের উপর নির্ভর করে গ্রেফতার হয়েছেন আরও এক বিজেপি নেতা রাকেশ সিংকে। কোর্টের আদেশে এঁরা এখন পুলিশের হেফাজতে। সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে যে এদের জেরা করে উঠে এসেছে বিজেপির অরক দুই নেতা অনুপম হাজরা এবং শঙ্কুদেব পান্ডার নাম। এই কারণে দুই নেতাকে ইতিমধ্যেই নোটিশ পাঠানো হয়েছে বলে সূত্রের খবর।


যদিও নোটিসের বিষয়ে আলোকপাত করতে পারেননি অনুপম হাজরা। তবে এমনটি হলে তাতে প্রতিহিংসার গন্ধ পাচ্ছেন তাঁরা। এই বিষয়ে শঙ্কুদেব পান্ডার বক্তব্য জানা যায়নি কারণ তাঁর পরিচিত ফোন নম্বরটি বন্ধ। ধরা পড়ার পর পামেলা গোস্বামী রাকেশ সিংয়ের নাম উল্লেখ করেছিলেন। কিন্তু বাকি দুই নেতার সূত্র এর মধ্যে কি করে এল, তা নিয়ে এখনও পর্যন্ত সরকারি বক্তব্য জানা যায়নি।

কুঁদঘাটে ম্যানহোলে মৃত শ্রমিকদের ৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে কলকাতা পুরসভা

বৃহস্পতিবার কুঁদঘাটে মর্মান্তিকভাবে ম্যানহোল পরিস্কার করতে নেমে তলিয়ে যায় ৪ জন ঠিকা শ্রমিক। কলকাতা পুরসভার পাম্পিং স্টেশনের কাজ চলছিল। ৪ শ্রমিককে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠাতে ২ ঘন্টার বেশি সময় লেগে যায় বলেই অভিযোগ। অনেক পরে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর ডুবুরিরা তাঁদের উদ্ধার করে। কিন্তু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরই চারজনের মৃত্যু হয়।

এই ঘটনার পর পুরসভার কাজকর্ম নিয়ে প্রশ্ন ওঠে বিভিন্ন মহলে। নির্দিষ্ট সুরক্ষাবিধি ছাড়াই কিভাবে ওই ঠিকা শ্রমিকরা ম্যানহোলে নামানো হল সেটা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। ফলে নড়েচড়ে বসে কলকাতা পুরসভা। সূত্রের খবর, মৃত ৪ জনকে ক্ষতিপূরণ দেবে কলকাতা পুরসভা। নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে ৫ লাখ টাকা করে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি আহতদেরও দেওয়া হবে ১ লাখ টাকা করে। এই ঘটনার তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটিও গড়েছে কলকাতা পুরসভা। 

বিরোধীদের অভিযোগ, বারবারই একই ধরণের দুর্ঘটনা ঘটছে, তবুও হেলদোল নেই রাজ্য প্রশাসনের। কেন কোনও সুরক্ষা সরঞ্জাম ছাড়াই শ্রমিকদের ম্যানহোলে নামানো হচ্ছে সেই নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। এরমধ্যেই আসরে নামে পুরসভা। তড়িঘড়ি ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করে তদন্ত কমিটি গঠন করে ফিরহাদ হাকিমের নিয়ন্ত্রণাধীন সংস্থা। জানা যাচ্ছে, বৃহস্পতিবার সকালে কুঁদঘাটের কাছে ১১৪ নম্বর ওয়ার্ডে একটি পাম্পিং স্টেশনের জন্য পুরোনো জলের লাইনের সঙ্গে নতুন পাইপলাইন জোড়ার কাজ চলছিল।

 সেটা পরিস্কার করতে সাতজন ঠিকা শ্রমিক নীচে নামে বেলা ১২টা নাগাদ।  সহকর্মীদের চোখের সামনেই চারজন তলিয়ে যায়। পুরসভা সূত্রে জানা যাচ্ছে, ওই ম্যানহোলে যে জল আছে সেটা ধারণা ছিল না কারোর। তাই দীর্ঘদিনের জমা জল ও জঞ্জালে তৈরি হওয়া বিষাক্ত গ্যাস থেকেই দমবন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে ওই চার ঠিকা শ্রমিকের।

কুঁদঘাটে ম্যানহোলে কাজ করতে নেমে তলিয়ে মৃত্যু পুরসভার চার ঠিকাকর্মীর

কুঁদঘাটে কলকাতা পুরসভার পাম্পিং স্টেশন তৈরি কাজ চলছিল। কলকাতা পুরসভার ১১৪ নম্বর ওয়ার্ডে তার জন্য ম্যানহোল পরিস্কারের কাজ করতে নামেন পুরসভার চার ঠিকাকর্মী। মুহুর্তের মধ্যে তাঁরা তলিয়ে যান সহকর্মীদের চোখের সামনেই। বেশ কিছুক্ষণ ডাকাডাকির পরও তাঁদের সাড়া না পাওয়া গেলে খবর যায় পুলিশ ও দমকলে। এলাকায় ছুটে আসে দমকল ও পুলিশকর্মীরা। কিন্তু ঘন্টাখানেকের প্রচেষ্টাতেও তাঁদের খোঁজ করতে পারেননি দমকলকর্মীরা। এরপরই খবর দেওয়া হয় বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরে। তাঁদের ডুবুরিরা এসে ওই ম্যানহোলে নামেন। এরপরই ঘন্টা দুয়েক পর দুজনকে উদ্ধার করেন বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যরা। দ্রুতই তাঁদের পাঠানো হয় এসএসকেএম হাসপাতাল এবং বাঘাযতীন হাসপাতালে। তাঁদের প্রত্যেকেরই অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। কিন্তু পরে জানা যায় চারজনেই মৃত্যু হয়েছে। এই নিয়ে ক্ষোভও ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়।
স্থানীয় সূত্রে জানা যাচ্ছে বৃহস্পতিবার সকালে পুরসভার ১৪৪ নম্বর ওয়ার্ডে কুঁদঘাট পাম্প হাউসের কাছে ম্যানহোলে পুরনো ও নতুন পাইপ সংযুক্তিকরণের কাজ চলছিল। সেখানেই চারজন ঠিকাকর্মী কাজ করতে নামেন। এই ঘটনার পর এলাকায় ব্যপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। প্রায় দুই ঘন্টা খোঁজার পর ডুবুরি নামিয়েই উদ্ধার করা সম্ভব হয়। ওই এলাকায় কাজ করতে আসা পুর কর্মী এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, দমকল আসতেই অনেক দেরী হয়। আবার বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীকেও অনেক দেরীতে খবর দেওয়ার অভিযোগ উঠছে। কেন কোনও সুরক্ষাব্যবস্থা ছাড়াই ওই কর্মীদের ম্যানহোলে নামানো হল সেই প্রশ্নও উঠেছে বিভিন্ন মহলে। যদিও ঘটনাস্থলে যান রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। তিনিও অসুস্থ কর্মীদের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু হাসপাতালে ওই চারজনেই মৃত্যু হয়েছে বলে পরে খবর আসে।

রাকেশ কাণ্ডে সোজাসাপ্টা রুপা

ড্রাগকাণ্ডে রাকেশ সিং গ্রেফতার হওয়ার পর কি তাঁকে ছেঁটে ফেলতে চাইছে বিজেপি? বিজেপির অন্দরমহলে এমনটাই শোনা যাচ্ছে। যদিও রাকেশ সিং ইস্যুতে কোনও নেতাই এখন মুখ খুলতে চাইছেন না। কিন্তু দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, অকারণে রাকেশের ছেলেদের অকারণ হয়রানি করেছে পুলিশ। কিন্তু একই সাথে তিনি এও দেখে নিতে চাইছেন, ড্রাগ কর্মকাণ্ডতে গতি কোন পথে যায়। অন্যদিকে এই ইস্যুতে বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ রুপা গঙ্গোপাধ্যায় অনেকদিন বাদে মুখ খুললেন সংবাদ মাধ্যমের কাছে।
রুপা সোজাসাপ্টা জানালেন যে, যাকে যা অন্যায় করতে দেখা যাবে তাকে গ্রেফতার করে ফেলা হোক। অভিষেকের বাড়িতে কেন্দ্রীয় পুলিশের অভিযানের পাল্টা হিসাবে রাকেশ গ্রেফতার? এমন প্রশ্নের উত্তরে রুপা জানালেন, আমি পাল্টা বুঝি না, যে অন্যায় করবে তাঁকেই জেলে যেতে হবে। বুধবার আলিপুর কোর্টের বিশেষ নার্কোটিক আদালত নির্দেশ দিয়েছেন, রাকেশকে ১ মার্চ অবধি পুলিশি হেফাজতে থাকতে হবে।

ই-স্কুটারে নবান্নের পথে মমতা, চালক ফিরহাদ, জ্বালানীর মূল্যবৃদ্ধির অভিনব প্রতিবাদ

দেশে লাগামহীনভাবে বাড়ছে পেট্রল এবং ডিজেলের দাম। আর অভিনব কায়দায় প্রতিবাদে সামিল হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন ই-স্কুটারে চেপেই নবান্নে যাচ্ছে মুখ্যমন্ত্রী। স্কুটারটি চালাচ্ছেন কলকাতার মুখ্য প্রশাসক তথা রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। শুক্রবার সকাল ১১টা নাগাদ কালীঘাটের বাড়ি থেকে গাড়ির বদলে পায়ে হেঁটেই হাজরা মোড়ে চলে আসেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই একটি ইলেকট্রিক স্কুটার নিয়ে চলে আসেন ফিরহাদ হাকিম। তাতেই মাথায় হেলমেট পড়ে চেপে বসেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপর স্কুটারে বসিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে নবান্নের উদ্দেশ্যে রওনা হল ফিরহাদ হাকিম। মুখ্যমন্ত্রীর গলায় পেট্রল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়ে একটি ব্যানারও ঝোলানো ছিল। যদিও মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তাকর্মীরা বাইক নিয়েই তাঁর সঙ্গে যাচ্ছেন। দ্বিতীয় হুগলি সেতু হয়ে নবান্নের পথে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এই চার রাজ্য থেকে পশ্চিমবঙ্গে আসতে হলে অবশ্যই লাগবে করোনা রিপোর্ট

দেশের কয়েকটি রাজ্যে করোনা সংক্রমণ দিনে দিনে বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে বিশেষজ্ঞদের একাংশ দাবি করছেন এর জন্য দায়ী করোনার নতুন ভারতীয় প্রজাতি বা স্ট্রেন। মহারাষ্ট্র ও কেরলে করোনা নতুন করে ভয়াবহ রূপ ধারণ করছে। এরসঙ্গে কর্ণাটক ও তেলেঙ্গানাতেও দিনে দিনে বাড়ছে সংক্রমিতের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে বড় সিদ্ধান্ত নিল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। মহারাষ্ট্র, কেরল, কর্নাটক ও তেলেঙ্গানা থেকে কোনও ব্যক্তি কলকাতা বিমানবন্দরে অবতরণ করলে তাঁকে করোনা রিপোর্ট দেখাতেই হবে। শনিবার দুপুর ১২টা থেকে চালু হবে এই নতুন বিধি।

রাজ্যের স্বাস্থ্যসচিব হরেকৃষ্ণ দ্বিবেদী জানিয়েছেন, আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি বেলা ১২টা থেকে মহারাষ্ট্র, কেরল, কর্নাটক ও তেলেঙ্গানা থেকে বিমানে আগত ব্যক্তিদের RT-PCR পরীক্ষার রিপোর্ট দেখানো বাধ্যতামূলক করা হল। ওই রিপোর্ট নেগেটিভ হলে তবেই মিলবে এই রাজ্যে প্রবেশের অনুমতি। বিমান ছাড়ার সময়ের থেকে পরীক্ষার রিপোর্ট ৭২ ঘণ্টার বেশি পুরনো হলে চলবে না বলেও নির্দেশিকায় উল্লেখ রয়েছে। রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন আসন্ন, এই পরিস্থিতিতে বাংলায় ফের করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাক, সেটা চাইছে না নবান্ন। ফলে নতুন করে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া চার রাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের নিয়ন্ত্রিত ভাবেই রাজ্যে প্রবেশের অনুমতি দিতে চাইছে রাজ্য প্রশাসন। তবে বাকি রাজ্যের বাসিন্দাদের ক্ষেত্রে কোনও বিধিনিষেধ থাকছে না আপাতত।

এক মাসে ১০০ টাকা বাড়লো গ্যাসের দাম, ক্ষোভ প্রকাশ সাবিত্রীর

পেট্রোলিয়াম সামগ্রীর দাম আকাশচুম্বি | নিয়মিত বাড়ছে পেট্রল ডিজেলের দাম, একই সাথে পেট্রোপণ্যেরও | বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে গ্যাসের দাম বাড়লো আরো ২৫ টাকা, এই নিয়ে একমাসে ১০০ টাকা দাম বেড়ে আজ থেকে গ্যাসের দাম ৮২০ টাকা | স্বাভাবিক ভাবে আমজনতার নাভিশ্বাস উঠে গিয়েছে | একদিকে পেট্রোলিয়ামের দাম বাড়াতে তার প্রতিফলন পড়ছে পরিবহনের উপর কাজেই নিত্যপণ্যের দামও একই ভাবে বেড়ে চলেছে | মানুষের রোজগার বাড়েনি কিন্তু খরচ বেড়ে চলেছে প্রবল ভাবে | এবারে ফের হেঁসেলে টান পড়লো গ্যাসের দাম ফের বেড়ে যাওয়াতে |প্রবীণ অভিনেত্রী সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় CN ওয়েব পোর্টালকে জানালেন, এবার আমাদের জঙ্গলে গিয়ে থাকতে হবে, আদি যুগের মতো ফল পাকুড় খেতে হবে | তিনি খবর সঙ্গে জানান, মানুষের রোজগার নেই, একবার ভেবে দেখো কোথায় যাবো আমরা ?
সম্প্রতি তেলমন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান জানিয়েছিলেন যে একটা প্রস্তাব আনা যেতে পারে যাতে পেট্রোপণ্যকে জিএসটির অধীনে আনা যেতে পারে কিন্তু সেটি ভাবনার মধ্যেই আছে | প্রস্তাবনা বা লোকসভায় উঠবে কি না সে বিষয়ে কোনও আলোকপাত করেন নি মন্ত্রী|