শ্যাম্পেনের ‘বোতল’ সঙ্কট

0
99

করোনায় কমে গিয়েছে বিক্রি। এখন এবছর কত পরিমাণ শ্যাম্পেন তৈরি করে বোতালে ভরা হবে আর কতটা মজুত করা হবে তা নিয়ে বিবাদ বেঁধেছে ফ্রান্সের মদ প্রস্তুতকারীদের মধ্যে। মদ বানান যাঁরা, তাঁরা চাইছেন অনেকটা কম মদ তৈরি করতে। আর আঙুর চাষিরা আপত্তি তুলছেন, কম মদ তৈরি হলে অগাধ জলে পড়বেন চাষীরা।
প্রথাগতভাবেই মদ কারখানার মালিক আর চাষিরা নিজেদের মধ্যে বসে ঠিক করে নেন কোনও বছরে কতটা শ্যাম্পেন তৈরি করা হবে। অনেক শ্যাম্পেন চাষিই পমেরি বা ভিউবে ক্লিকোঁর মতো নামী ব্র্যান্ডের কাছেই তাদের ফসল বিক্রি করতেন। আলোচনার উদ্দেশ্য, কম ফলন ও দামের দোলাচলে কারও যেন ক্ষতি না হয়।

কিন্তু এবার ব্যবসায়ীরা বলছেন, তাঁরা ইতিমধ্যেই প্রচুর মাল মজুত করে ফেলেছেন। ফলে লোকসান হচ্ছে প্রচুর। তাই বোতল বিক্রি না হওয়া পর্যন্ত আর উৎপাদন করবেন না। চাষিরা চাইছেন হেক্টরে লাড়ে আট কেজি উৎপাদন করতে, ব্যবসায়ীরা কোনওমতেই তা ৬ থেকে ৭ হাজার কেজির বেশশি উঠতে চাইছেন না। কিলো প্রতি দাম সাড়ে ছয় ইউরো হলেও ঝুঁকি এবার বিশাল। এবার ফলন হয়েছে খুবই ভালো। তা হলেও এবার শ্যাম্পেন গতবারের তুলনায় ১ কোটি বোতল কম বিক্রি হবে বলে মনে করছে ব্যবসায়ীমহল। বিক্রি কমবে ৩৮ শতাংশ। তার উপর সেলারে বহু বছর ধরে জমে রয়েছে ১০ কোটি বোতল।