তৈরি বিশ্বের দীর্ঘতম হাইওয়ে সুড়ঙ্গ, মানালি থেকে লে যেতে সময় কমবে ৪ ঘন্টা

0
669

৯.২ কিমি দীর্ঘ অটল টানেলের কাজ সম্পূর্ণ হল। মানালি থেকে লাদাখের লে যাওয়ার পথে বিশ্বের দীর্ঘতম হাইওয়ে টানেল তৈরির কাজ ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে। প্রায় ১০ হাজার ফুট উচ্চতায় এই সুড়ঙ্গ বা টানেল লে-র দূরত্ব অনেকটাই কমিয়ে দেবে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, খুব শীঘ্রই এই টানেলটি সর্ব সাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হবে। হিমাচল প্রদেশের রোটাং পাস, দুর্গম এই গিরিপথের নীচেই তৈরি হয়েছে অটল টানেল। প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর নামেই এই সুড়ঙ্গের নাম দেওয়া হয়েছে। সুরঙ্গটির কাজ ৬ বছরের মধ্যে শেষ করার কথা থাকলেও এটি শেষ হল ১০ বছরে।

কারণ রোটাং পাসে কাজ করার সময় পাওয়া যায় বছরে মাত্র ৪ থেকে ৫ মাস। প্রবল ঠান্ডা ও বরফের জন্য বছরের বাকি সময় বন্ধই থাকে এই পথ। এই টানেল চালু হলে সারা বছরই যাতায়াত করা সম্ভব হবে মানালি-লে হাইওয়েতে। তবুও ভারতীয় ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের এক অদ্ভূত নিদর্শন এই অটল টানেল। ১০ হাজার ফুট উচ্চতায় এই ধরনের কাজ যথেষ্ট কঠিন বলেই জানিয়েছেন নির্মানকারী সংস্থার আধিকারিকরা। টানেলের নির্মাণের প্রধান ইঞ্জিনিয়ার কি পি পুরুষোত্তম সংবাদমাধ্যম এএনআই-কে জানিয়েছেন, টানেলের মধ্যে প্রতি ৬০ মিটার অন্তর বসানো রয়েছে সিসিটিভি। প্রতি ৫০০ মিটার অন্তর রয়েছে বেরিয়ে যাওয়ার সুড়ঙ্গ। রয়েছে অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা।

টানেলের ভিতরে আগুন লাগলেও যাতে দ্রুত ভিতরে আটকে থাকা মানুষদের বের করে আনা যায় তারও ব্যবস্থা রয়েছে। টানেলটি চওড়া সাড়ে দশ মিটার। রাস্তার দুপাশে ১ মিটার করে ফুটপাত তৈরি করা হয়েছে। এই টানেলটি মানালি থেকে লে শহরের দূরত্ব ৪৬ কিলোমিটার কমিয়ে দেবে। ফলে পাহাড়ি রাস্তায় প্রায় ৪ ঘন্টা সময় কমে যাবে। সামরিক দিক থেকেও খুব গুরুত্বপূর্ণ এই টানেল। লাদাখে ভারত-চিন সীমান্ত উত্তেজনার মধ্যে সেনা ও সেনাবাহিনীর রসদ আরও দ্রুত পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে।