মিরাটিতে এই প্রথম কর্তাহীন, প্রণবহীন দুর্গাপুজো

0

প্রতিবছরই নিয়ম করে এখানে আসতেন তিনি। কিন্তু ছেদ পড়ল এই বছর, কারণ তিনি ইহোলোক ত্যাগ করে আনন্দলোকে গমণ করেছেন। যদিও বীরভূমের কীর্ণাহারের মিরাটি গ্রামে তাঁর পৈত্রিক বসত বাড়িতে দুর্গাপুজায় ছেদ পরেনি। তবুও মন খারাপ মিরাটির। কারণ এবারই পুজোয় নেই মিরাটির নয়নের মনি ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ভারতরত্ন প্রণব মুখোপাধ্যায়। চলতি বছরই ৩১ আগষ্ট দীর্ঘদিন লড়াই চালিয়ে প্রয়াত হয়েছেন প্রণববাবু। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায় যতই গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকুন না কেন এমনকি রাষ্ট্রপতি থাকার সময়ও ছেদ পড়েনি তাঁর পুজোয় অংশগ্রহনে।

 

বছরের পর বছর নিজেই করে এসেছেন চণ্ডীপাঠ। যা পরে পুরোটাই তাঁর কন্ঠস্থ হয়ে গিয়েছিল। বাড়ির দুর্গাপুজোয় শুধু চণ্ডীপাঠই করতেন না, নবপত্রিকা স্নান–সহ বিভিন্ন রীতিনীতি নিজে হাতে পালন করতেন। সেই পুজোয় আজ তিনি নেই। যেহেতু অসৌচ চলছে সেহেতু তাঁর ছেলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়ও নেই পুজোর দায়িত্বে। প্রণববাবু না থাকলেও এবারও কোনও প্রথাই বাদ যাচ্ছে না বলে জানালেন ছেলে অভিজিৎবাবু। তবে দীর্ঘ জীবনে মাত্র বার কয়েক প্রণববাবু মিরাটি আসতে পারেননি। ১৯৭৮ সালের বন্যায় একবার ঘটপুজো হয়েছিল। কিন্তু এই বছরটা সত্যিই মন খারাপের, কারণ মিরাটিতে এই প্রথম কর্তাহীন, প্রণবহীন দুর্গাপুজো।