shantiniketan-pous-mela-viswabharati-bolepur-municipality
Viswabharati : পৌষ মেলা ফেরাতে উদ্যোগী পুরসভা, চিঠি বিশ্বভারতীকে


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-23 08:48:20

মেলা মানেই যার কথা বাঙালিদের মনে প্রথমে আসে, তা হল শান্তিনিকেতনের পৌষ মেলা। প্রতি বছর ৭ই পৌষ আয়োজন করা হয় এই মেলার। মেলা চলে তিনদিন ধরে। তারপর ভাঙা মেলা। ভোরবেলায় সানাই বাদনের পর বৈতালিক দল গান গাইতে গাইতে আশ্রম পরিক্রমা করে। এরপরই শুভারম্ভ হয় মেলার। আসেন বিভিন্ন রাজ্য থেকে শিল্পীরা। থাকে ফকির এবং বাউলদের গান।

জানা যায়, ১২৫০ সালের ৭ই পৌষ মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর রামচন্দ্র বিদ্যাবাগীশের কাছে ব্রাহ্মধর্মে দীক্ষা গ্রহণ করেন। সেই দিনটিকে কেন্দ্র করেই এই উৎসব এবং মেলার ভাবনা আসে দেবেন্দ্রনাথের। এক সময় এই মেলা ভুবনডাঙার মেলা নামে পরিচিত ছিল। মেলা প্রাঙ্গনে বসত প্রায় ১৫০০ টির উপর রকমারি দোকান। সরকারি হিসেব অনুযায়ী আনুমানিক প্রতিদিন গড়ে ৩৫০০ পর্যটকের সমাবেশ হত এই মেলা চত্বরে। তবে বিগত ২ বছর ধরে বাধ সেধেছে করোনা মহামারী। বন্ধ সমস্ত হই হট্টগোল। বন্ধ সমস্ত মেলা প্রাঙ্গনই।

ফের শান্তিনিকেতনের পৌষ মেলা ফেরাতে উদ্যোগ নিল বোলপুর পুরসভা। পুরসভার তরফ থেকে পদক্ষেপ হিসেবে সম্প্রতি বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষকে মেলা ফেরানোর দাবিতে একটি চিঠি দেওয়া হয়। সেই চিঠিতে বোলপুর পুরসভার তরফে উল্লেখ করা হয়, আপামর বোলপুরবাসী সহ পর্যটকরা চান, শান্তিনিকেতনে পৌষ মেলা ফিরে আসুক আবার। গত বছর থেকে করোনার কারণে পৌষ মেলা বন্ধ। 

তবে এই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ যদি মেলা না করার কথা জানিয়ে দেয়, তাহলে বিকল্প কোনও পথ বেছে নিতে পারে বোলপুর পুরসভা, এমন ইঙ্গিত মিলেছে। সোমবার বোলপুর পুরসভার প্রশাসক পর্ণা ঘোষ একথা পরিস্কার জানিয়ে দেন। যা ঘিরে জল্পনা তৈরি হয়েছে ইতিমধ্যেই। প্রশ্ন উঠছে, বোলপুর পুরসভা বিকল্প পথ হিসেবে কী পদক্ষেপ নিতে পারে? তাহলে কি বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ পৌষ মেলা না করালে পৌষ মেলার আদলে বোলপুর পুরসভা অন্য কোনও মেলার আয়োজন করবে?




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us