ব্রেকিং নিউজ
  (08:15 AM)-২৪ ঘণ্টায় দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪,৭৭৪, সুস্থ ২,৫১,৭৭৭      (08:07 AM)-করোনায় মৃত ৩৫, সংক্রমণের হার কমে ১২.৫৮ শতাংশ      (08:06 AM)-গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত ৯,১৫৪     (07:59 AM)-২২ থেকে ২৪ জানুয়ারি হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা     (07:58 AM)-পশ্চিমী ঝঞ্ঝার জেরে রাজ্য জুড়েই বৃষ্টির সম্ভাবনা  
manipur-terrorist-khargram-bengal-dead
Manipur terrorist: মণিপুরে জঙ্গিহানায় শহিদ খড়গ্রামের শ্যামল


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-14 14:49:59


এক লহমায় সব শেষ। বিভীষিকাময় শনিবার ছিনিয়ে নিয়েছে বাংলারই এক তরতাজা যুবককে। মণিপুরে জঙ্গিহানায় অসম রাইফেলস-এর কর্নেল, তাঁর স্ত্রী-পুত্র এবং আরও তিন সেনা জওয়ানের সঙ্গে শহিদ হয়েছেন শ্যামল। আচমকা এই খবর বাড়ির লোকজনের মতো পাড়া-প্রতিবেশীদেরও যেন বাকরুদ্ধ করে দিয়েছে।

পুজোর আগেই ছেলে বাড়ি ফিরেছিল। কিন্তু দুর্গাপুজোর পঞ্চমীর দিন কর্মস্থলে ফিরে যায়। তখন বলে গিয়েছিল, অগ্রহায়ণ মাসে জমির নতুন ধানের নবান্ন উৎসবে অবশ্যই ফিরবে গ্রামে। কিন্তু তার আগেই ছেলের শহিদ হওয়ার খবর এল। কান্নাভেজা গলায় বলে চলেছেন মা। 

শনিবার সকালে মণিপুরে জঙ্গি হানায় নিহত হয়েছেন মুর্শিদাবাদের কান্দি মহকুমার খড়গ্রাম ব্লকের কীর্তিপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের নগর গ্রামের বাসিন্দা যুবক শ্যামল দাস। শনিবার রাতে বাড়িতে সেই খবর পৌঁছতেই গ্রামজুড়ে শোকের ছায়া নেমে আসে। রবিবার বাড়িতে গিয়ে দেখা গেল, সকাল থেকেই খোঁজখবর করার জন্য এবং সমবেদনা জানানোর জন্য কাতারে কাতারে গ্রামবাসী ভিড় জমিয়েছেন। চারদিকে শুধু কান্নার আওয়াজ। স্বামীর দুদিন আগেকার ফোনের বার্তালাপ বারবার মনে পড়ছে স্ত্রী রূপা দাসের। জানিয়েছেন, দু'দিন আগেই একমাত্র মেয়ে দিয়া দাসের জন্মদিন ছিল। মেয়েকে হ্যাপি বার্থডে জানিয়ে শেষ ফোন করেছিল ওর বাবা। জানিয়েছিল, খুব শিগগির হ্যাপি বার্থ ডের গিফট নিয়ে ফিরবে দেশে। শনিবার রাতে এল জঙ্গি হানায় নিহত হওয়ার খবর। 

বাবা ধীরেন দাস বলেন, আমরা খুবই দুঃস্থ পরিবারের। আমার দুই ছেলে। ছোট ছেলে কিছুদিন আগেই মারা গেছে। বড় ছেলে দেশরক্ষায় অসম রাইফেলস-এ কর্মরত ছিল মণিপুরে। ২০০৯ সালের নভেম্বর মাসে বড় ছেলে শ্যামল যোগদান করে। ছেলের মূল লক্ষ্য ছিল বড় হওয়া। জঙ্গিদের সাথে বহুবার মোকাবিলা হয়েছে। যখনই ছেলে বাড়ি এসেছে, তখনই শোনাত সেইসব কথা। কিন্তু এবার ওই জঙ্গিদের হাতেই সব শেষ হয়ে গেল। তবে ছেলের এই মৃত্যুতে আমি শোকাহত নই। কারণ আমি মনে করি, আমার ছেলে শহিদ হয়েছে। আর শহিদের প্রাণ সকলের ঊর্ধ্বে। জঙ্গিরা কাপুরুষ। সরকারের কাছে অনুরোধ, যেন ওদের খুঁজে বের করে ফাঁসিতে ঝোলানো হয়। 





All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us