ব্রেকিং নিউজ
  (08:15 AM)-২৪ ঘণ্টায় দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪,৭৭৪, সুস্থ ২,৫১,৭৭৭      (08:07 AM)-করোনায় মৃত ৩৫, সংক্রমণের হার কমে ১২.৫৮ শতাংশ      (08:06 AM)-গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত ৯,১৫৪     (07:59 AM)-২২ থেকে ২৪ জানুয়ারি হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা     (07:58 AM)-পশ্চিমী ঝঞ্ঝার জেরে রাজ্য জুড়েই বৃষ্টির সম্ভাবনা  
crop-insurance-hopeless-cultivators
Durgapur: শস্যবিমার টাকা মিলছে না, দিশাহারা চাষিরা


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-12 09:54:37


মিলছে না শস্যবিমার টাকা। রাজ্যের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন খোদ কৃষি কর্মাধ্যক্ষই। প্রবল দুর্যোগের জেরে দুর্গাপুরের কাঁকসার বেশ কিছু অঞ্চলের কৃষকদের ফসল মাঠেই পড়ে নষ্ট হয়েছে। ক্ষতিপূরণ না পেলে না খেয়ে মরতে হবে, বলছেন ক্ষতিগ্রস্ত চাষিরা। 

প্রবল প্রাকৃতিক দুর্যোগের জেরে ধান তো গেছেই, বিকল্প পথ শীতকালীন সবজির চাষও নষ্ট হয়েছে। দুর্গাপুরের কাঁকসার বাসুদেবপুর, কাঞ্চনপুর, বিষ্টুপুর, শিবপুর, ফুলঝোড়, মানাচর সহ আরও বেশ কিছু এলাকায় কয়েক হাজার চাষি আজ ব্যাপক আর্থিক লোকসানের মুখে দাঁড়িয়ে। মূলত কৃষিকার্যের ওপরই নির্ভর করে কাঁকসার এই অঞ্চলগুলির মানুষ। আর সবটুকু খুইয়ে এখন দিশাহারা এই গ্রামগুলির চাষিরা। 

ক্ষতিগ্রস্ত চাষি সন্তোষ ভান্ডারি সহ অন্যদের অভিযোগ, বারংবার পঞ্চায়েতকে জানিয়েও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। মিলছে না সরকারের শস্যবিমার টাকা। এদিকে সারের দামও আগুন, বেড়েছে চাষের বাকি খরচও। ৫০ কেজি বস্তার যে সারের দাম বছর তিনেক আগে ছিল  ৮০০ টাকা, তা এখন বেড়ে দাঁড়িয়েছে  ১৫০০ থেকে ১৬০০ টাকায়। বেড়েছে ট্রাক্টরের খরচও। মহাজনের কাছে টাকা ধার করে চাষ করেছিলেন তাঁরা।  এখন সেই টাকা শোধ দিতে পারবেন কিনা, জানেন না। সরকারের থেকে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, যা ক্ষতি হবে তা শস্যবিমার মাধ্যমে পুষিয়ে দেওয়া হবে। কিন্তু তা আর হল কই? 

সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে তৃণমূল পরিচালিত কাঁকসা পঞ্চায়েত সমিতির কৃষি কর্মাধ্যক্ষ মধু রুইদাস অভিযোগ করেন, রাজ্য সরকারকে বেশ কয়েকবার জানানো হয়েছে সমস্যাটির বিষয়ে।  কিন্তু চিঠির কোনো সদুত্তর তাঁরা পাননি। সময়ে শস্যবিমার টাকা না মেলায় চাষিদের আর্থিক ক্ষতির বোঝা বয়ে নিয়ে ঘুরতে হচ্ছে। এতটাই ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে যে ক্ষতির পরিমাণ অনুমান করা সম্ভব হয়ে উঠছে না। যত সবজি বা ফসল ছিল, সব নষ্ট হয়ে গেছে। যদি এইভাবে চলতে থাকে, তাহলে রাস্তায় বসতে হবে বা আত্মহত্যা। এছাড়া আর কোনো রাস্তা খোলা থাকবে না। 

অন্যদিকে এই বিষয়ে সুর চড়িয়ে বিজেপির পূর্ব বর্ধমান জেলা সদর সহ সভাপতি রমণ শর্মার অভিযোগ, বিজেপি নয়, খোদ রাজ্যের শাসকদলের কৃষি পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ বলছেন শস্যবিমার টাকা মিলছে না। তাহলে কতটা মিথ্যে বলে সরকার মানুষকে বোকা বানাচ্ছে, সেটা বোঝাই যাচ্ছে। 





All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us