ব্রেকিং নিউজ
  Actress Death: সৌমির আত্মহত্যাতেও দায়ী সেই সাগ্নিকই, বিস্ফোরক অভিযোগ মৃতার বাবার     Weather Update: সপ্তাহের শেষে ভাসবে কি দক্ষিণবঙ্গ!      Heatwave: মৃত্যুমিছিল! তীব্র দাবদাহে ক্লান্ত হয়ে নীচে পড়ছে পাখিরা, দেখে যা করলেন স্বেচ্ছাসেবীরা     SSC: তথ্য লোপাটের আশঙ্কা, হাইকোর্টের নির্দেশে মাঝরাতেই এসএসসি অফিস ঘিরলো সিআরপিএফ     Anubrata Mandal: প্রায় ৪ ঘণ্টা জেরা, নিজাম প্যালেস থেকে বেরোলেন অনুব্রত     Habra: এবার হাবড়াতে শুট আউট, আহত ২     Corona Update: ফের ঊর্ধ্বমুখী দেশের সংক্রমণ     Aurangabad: ঘুমোচ্ছিলেন শ্রমিকরা, উপর দিয়ে চলে গেল ট্রাক, মৃত ৩     Footbridge: বিশ্বের দীর্ঘতম ঝুলন্ত সেতু খুলে গেল     Mamata Meet: 'শীত-গ্রীষ্ম-বর্ষা, তৃণমূল ভরসা, দিদির উপর ভরসা রাখবেন', ঝাড়গ্রামে মন্তব্য মমতার     Baby Food: বাজারে অমিল বেবিফুড, চিন্তায় টেক্সাসের মানুষ     Raj kundra: বেআইনি আর্থিক লেনদেন, এবার ইডি-র জালে রাজ কুন্দ্রা     CM BJP: 'এজেন্সি ব্যবহার করে বাংলার বদনাম করছে বিজেপি', তোপ মমতার, পাল্টা খোঁচা শমীকেরও     Mamata: কুকর্মের দায় নেবেন না মমতা     Gyanvapi Case: সওয়াল-জবাবের আগে অসুস্থ হিন্দুপক্ষের আইনজীবী, জ্ঞানবাপী শুনানি পিছল সুপ্রিম কোর্ট     Pallavi Death: মায়ের সামনেই পল্লবীকে জড়িয়ে ধরে যেভাবে প্রেম করতেন সাগ্নিক, সামনে এল ভিডিও     Paresh Adhikary: 'নিখোঁজ' শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীকে আজ ৩ টের মধ্যে সিবিআই অফিসে হাজিরার নির্দেশ হাইকোর্টের     Court: সিঙ্গল বেঞ্চকে চ্যালেঞ্জ, ডিভিশন বেঞ্চে পার্থ, শুনানি থেকে সরলেন বিচারপতি ট্যান্ডন-সামন্ত     Grennary: সবুজায়নের লক্ষ্যে ৫০ হাজার গাছ লাগানোর উদ্যোগ ইরাকে     Ratan Tata: ন্যানো গাড়িতে তাজ হোটেলে রতন টাটা     Bandel: উচ্ছেদের নেটিস, ব্যান্ডেল আরপিএফ অফিসে ঝাঁটা হাতে বিক্ষোভ তৃণমূল বিধায়কের     kashmir: জঙ্গিবাদে ষড়যন্ত্র, আর্থিক সাহায্য, ইয়াসিন মালিককে দোষী সাব্যস্ত করল এনআইএ কোর্ট     Cannes: বয়স শুধুই সংখ্যা মাত্র! 'কান'-এর রেড কার্পেটে প্রমাণ করলেন ঐশ্বর্য     Navjot Sidhu: তিন দশকের পুরনো মামলায় সিধুর ১ বছরের জেল, রায় সুপ্রিম কোর্টের     Paresh HC: কোচবিহার থেকে বিমানে কলকাতায় নেমে সোজা সিবিআইয়ের মুখোমুখি পরেশ অধিকারী     Alia University: রাতভর ঘেরাওয়ের পর গেট ভেঙে বেরতে হল শিক্ষক-শিক্ষিকাদের     QR Code: কিউআর কোড স্ক্যানে ৭০ হাজার লোপাট, তদন্তে নেমে কী জানল কলকাতা পুলিস?     Suvendu: বিরোধী দলনেতার অফিসে পুলিসি অভিযান দুর্ভাগ্যজনক, মন্তব্য হাইকোর্টের     Ladakh: লাদাখে তৎপর চিন, সেতু তৈরিতে আতঙ্ক     Gyanvapi Case: জ্ঞানবাপী মসজিদে মাছেদের বাঁচান, আদালতে আবেদন যোগী সরকারের     Jordanian: কোনও কনসার্ট নয়, রাস্তার মানুষকেই মজিয়ে রেখেছেন গানে-গানে      Alia Bhatt: বিয়ের এক মাসের মাথায় সুখবর দিলেন আলিয়া     Anubrata: কতটা অসুস্থ অনুব্রত?     Bangladesh: প্রয়াত 'আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি' গানের রচয়িতা আবদুল গফফর চৌধুরী     Agitation: পুলিসকর্তার সামনেই চাকরিপ্রার্থীর আত্মহত্যার চেষ্টা, উত্তপ্ত গান্ধিমূর্তির পাদদেশ     Economy: রেকর্ড পতন ভারতীয় মুদ্রার, বাজার বন্ধে এক ডলারে টাকার দাম ৭৭.৭৩     Kangana Ranaut: 'কাশীর প্রতি ধুলোকনায় মিশে মহাদেব', ছবির প্রচারে বেনারস এসে মন্তব্য কঙ্গনার     Firing: বারাকপুরে বিরিয়ানির দোকানে গুলির ঘটনায় গ্রেফতার অভিযুক্ত অনীশ ঝাঁ-এর ভাই     Anubrata CBI: অনুব্রতর মেডিক্যাল রিপোর্ট খতিয়ে দেখবে দিল্লি, ফের সিবিআই তলব বুধবার     SSC: ডিভিশন বেঞ্চের শুনানির আগেই সুপ্রিম কোর্টে পার্থ, শুক্রবারের শুনানির দিকে তাকিয়ে রাজ্য     Girl Death: মেয়ে মারা যাওয়ার পরমুহূর্তেই বাবা-মায়ের সিদ্ধান্তে বাঁচল ৫ জনের প্রাণ, কীভাবে জানুন     Maldah: কালিয়াচকের এক পরিবারকে জোর করে ধর্মান্তকরণ, সিবিআই-এনআইএ তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের     Fake Currency: খাগড়াগড়ের পাশেই জাল নোটের কারখানা, তৈরি হচ্ছিল ৫০০ টাকার নোট!     Corona Bengal: রাজ্যে করোনা সংক্রমণে ওঠানামা অব্যাহত     Temple: দেশের এই মন্দিরে প্রসাদ হিসেবে সুরার ব্যবহার প্রচলিত     KMC: শোভন মেয়র থাকাকালীন হেরিটেজ ভবন দুর্নীতি, সিবিআই তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের     Arjun Singh: অর্জুনের বড় জয়, উঠে যাচ্ছে পাটের দামের উর্ধ্বসীমা     GST: জিএসটি কাউন্সিলের সুপারিশ মানতে বাধ্য নয় কেন্দ্র-রাজ্য, রায় সুপ্রিম কোর্টের  
bardhaman-bank-robbery-bengal
robbery : বড়সড় ডাকাতি বর্ধমানের একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে, প্রায় ৩০লাখ টাকা নিয়ে চম্পট ডাকাতদল


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-01-21 17:12:25


সাত সকালে ব্যাঙ্ক খুলতেই ঢুকলো ডাকাত দল। আগ্নেয়াস্ত্র উঁচিয়ে খুন করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে চলে লুঠপাট। সূত্রের খবর, আনুমানিক ৩০ লক্ষ টাকার বেশি নিয়ে চম্পট ডাকাত দলের।

মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে ভল্ট খুলতে বাধ্য করা হয় ব্যাঙ্ক আধিকারিককে। ঘটনাস্থল বর্ধমান শহরের প্রাণকেন্দ্র কার্জন গেট চত্বর। সেখানেই একটি রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাঙ্কের শাখায় এই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে শহর জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিস।

ব্য়াঙ্ক সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকালে ঘড়ির কাঁটা তখন পৌনে দশটা পার করেছে। ব্যাঙ্ক কর্মী, অফিসাররা একে একে আসতে শুরু করেন। ততক্ষণেই এসে গিয়েছে কিছু আমানতকারীও। ঠিক সেই সময় বিনা বাধায় ব্যাঙ্কে ঢুকে পড়ে ৬ থেকে ৭ জন দুষ্কৃতী। ব্যাঙ্কের শাখায় ঢুকেই প্রত্যেকে স্বমূর্তি ধারণ করে। দুষ্কৃতীদের প্রত্যেকেরই হাতে আধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র ছিল। ব্যাঙ্ক কর্মীদের এক জায়গায় নিয়ে আসে তারা। মেঝেতে বসতে বাধ্য করা হয়। সেখানে বসানো হয় ব্যাঙ্কের কাজে আসা মানুষদেরও। প্রত্যেকের সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন দুষ্কৃতীদের একটি ব্যাগে রাখতে বাধ্য করা হয়। দীর্ঘ ৪৫ মিনিট ধরে ব্যাঙ্কের ভেতরে অপারেশন চালায় দুষ্কৃতীরা। এরপর নিজেদের সঙ্গে থাকা পিঠ ব্যাগে টাকার বান্ডিল ভর্তি করে নেয় তারা। সঙ্গে থাকা হাত ব্যাগও টাকার বান্ডিল ভর্তি করে নেওয়া হয়। এরপর বিনা বাধায় চম্পট দেয় তারা।

দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যাবার পর আশপাশের ব্যবসায়ী ও বাসিন্দারা ডাকাতির কথা জানতে পারে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় জেলা পুলিস সুপার কামনাশিস সেন সহ অন্যান্য পুলিস আধিকারিকরা। কিন্তু ততক্ষণে ধরা ছোঁয়ার বাইরে চলে যায় দুষ্কৃতীরা।

জনবহুল এলাকায় এত বড় ব্যাঙ্ক ডাকাতির ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে শহরজুড়ে। ঠিক কত টাকা লুট করেছে দুষ্কৃতীরা সে ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত হতে পারেনি কর্তৃপক্ষ এবং জেলা পুলিস। তবে প্রায় ৩০ লক্ষ টাকার বেশি ডাকাতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান জেলা পুলিসের। এ ব্যাপার নিশ্চিত হতে ভল্টে কত টাকা ছিল, এখন কত টাকা রয়েছে তা হিসেব করে দেখা হচ্ছে।

তবে ডাকাতির পর পরই ব্যাঙ্কের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন উঠেছে বর্ধমানে। ডাকাত ঢুকেছে বুঝতে পারার সঙ্গে সঙ্গে এমার্জেন্সি অ্য়ালার্ম বাজানো হলো না কেন? সেই প্রশ্ন তুলছেন আশপাশের ব্যবসায়ীরাও। ঘটনার তদন্তে নেমে ব্যাঙ্কের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন তদন্তকারী পুলিস অফিসাররা।

প্রশ্ন উঠছে ব্যাঙ্কের অন্যান্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েও। ব্যাঙ্কে ঢোকার মুখেই আগ্নেয়াস্ত্র সহ নিরাপত্তারক্ষী থাকার কথা। সঙ্গেই দরজা বন্ধ থাকার কথা। কর্মী, অফিসার থেকে শুরু করে আমানতকারী সকলকেই নিরাপত্তারক্ষীর নজরদারির মধ্যে থাকার কথা। একসঙ্গে আগ্নেয়াস্ত্রধারী এতজন দুষ্কৃতী একসঙ্গে ব্যাঙ্কে ঢুকে পড়ল অথচ নিরাপত্তারক্ষী তা টের পেল না কেন?

জেলা পুলিসের তদন্তকারী আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ব্যাঙ্কে সে সময় নিরাপত্তারক্ষী ছিল কীনা বা এমার্জেন্সি অ্য়ালার্ম ঠিক ছিল কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। সেই সঙ্গে ব্যাঙ্কের সিসিটিভি সে সময় কাজ করছিল কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এরপর জেলা পুলিস সুপার সাংবাদিকদের জানান, ঘটনার তদন্তে স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম গঠন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে শহর থেকে বেরোনোর সব রাস্তা, বাস স্ট্যান্ড, রেল স্টেশনে বাড়তি নজরদারি ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশাপাশি জেলার সব থানা এলাকায় নাকা তল্লাশি শুরু করা হয়েছে।

তবে সূত্র মারফত জানা গেছে, ব্যাঙ্কের সিঁড়িতে থাকা সি সি টিভি সেসময় কার্যকর অবস্থায় ছিল না। অন্যদিকে ব্যাঙ্কের ভিতরে থাকা সিসিটিভির হার্ডডিস্ক দুষ্কৃতীরা নিয়ে চম্পট দেয় বলে জানা গিয়েছে।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন