kakdwip-cricket-academy-training
Cricket পেটে খিদে নিয়েই ওরা ২২ গজের প্রশিক্ষণে


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-18 20:01:20

দু চোখে হাজার স্বপ্ন। কিন্তু স্বপ্নকে সাকার করার সাধ্য কই ? তবু স্বপ্নের জাল বুনে চলে অজয়, পল্টু, প্রদীপরা। দুবেলা ভাতের সংস্থান করাই এদের কাছে আসল চ্যালেঞ্জ। তবু দামাল ছেলেরা ভবিষ্যতের ধোনি বা বিরাট হওয়ার স্বপ্ন দেখে। কারণ স্বপ্ন দেখায় তো মানা নেই। এদের কারও অভিভাবক রাজমিস্ত্রী, কেউ বা ভাগচাষির কাজ করে। ২২ গজে ছোটার স্বপ্ন কে দেখাবে তাদের ?

তবে এইসব ছেলের স্বপ্নকে এগিয়ে নিয়ে যেতে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে কাকদ্বীপ ক্রিকেট অ্যাকাডেমি। দক্ষিণ সুন্দরবনের ৭টি  ব্লকের শতাধিক ছাত্রদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে কাকদ্বীপ ক্রিকেট অ্যাকাডেমি। প্রশিক্ষণ দেওয়ার ক্ষেত্রেও রয়েছে নানা সমস্যা। অভাব খেলার সরঞ্জামের। অভাব একটি মাঠের। রয়েছে আর্থিক সংকটও। এই অসম লড়াইয়ে সাথ দিয়েছেন প্রদীপ নায়েক।  


অ্যাকাডেমির পথ চলা শুরু ২০১১ সালে । নির্দিষ্ট মাঠ না থাকায় এক সময় অনুশীলন চলত কালনাগিনীর চরে। ২০১৮ সালে কাকদ্বীপ স্পোর্টস কমপ্লেক্সে অনুশীলন শুরু হলেও সমস্যা কিন্তু থেকেই গেছে। বর্তমানে টেনিস কোর্টের ওপর চলছে অনুশীলন । অ্যাস্ট্রো ট্র্যাপ নেই, ট্র্যাপ উইকেট নেই, নেই বোলিং মেশিন। নিজস্ব জিম নেই।  সরঞ্জামের ভাঁড়ারে শুধু নেই আর নেই। মাঠে চড়ে বেড়ায় গবাদি পশু। মাঠের অবস্থা খারাপ থাকায় প্রশিক্ষণ নিতে গিয়ে চোট পাচ্ছেন খুদেরা।

সংসারে আর্থিক সংকট।  তবু স্বপ্ন দেখেন অভিভাবকরা। তাঁদের ছেলেরাও একদিন মহারাজার মতো খেলবে। শুধু চাইছেন রাজ্যের সাহায্য। 

কাকদ্বীপের প্রত্যন্ত গ্রামের ছেলেগুলি দাপাবে খেলার মাঠ। সরকার থেকে সহযোগিতা মিললেই স্বপ্ন পূরণ হবে। জানালেন কাকদ্বীপ ক্রিকেট অ্যাকাডেমির প্রধান কোচ প্রদীপ নায়েক। 

এদের মধ্য অনেকে সুযোগ পেয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্লাব, হাওড়া স্পোর্টিং  ইউনিয়ন,আন্ডার সিক্সটিন বেঙ্গল স্কোয়ারে। মাথা পিছু খরচ এক মরসুমে পাঁচ থেকে ছয় হাজার টাকা। তার ওপর ব্যাট, বল, উইকেট সহ অন্যান্য সরঞ্জামের খরচ। আশা করাই যায়, সরকারি সাহায্যে অবশ্যই ঘুরে দাঁড়াবে এই অ্যাকাডেমি। 




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us