শিরোনাম
wife-birthday-moon-land-gift-bankura-bengal
Birthday gift: স্ত্রীর জন্মদিনে উপহার চাঁদের জমি


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-16 15:53:02

'চাইলে চাঁদও এনে দিতে পারি তোমার জন্য'। কমবেশি প্রতিটি প্রেমিক তাঁর প্রেমিকাকে এই কথা একবার হলেও বলে থাকেন। তবে একেই বাস্তব করে দেখিয়েছেন বাঁকুড়ার এক যুবক। সত্যি চাঁদই এনে দিয়েছেন তাঁর স্ত্রী-র জন্মদিনের উপহারস্বরূপ। একেবারে সৌরমন্ডলের বৃহত্তম গ্রহ বৃহস্পতির চাঁদ। আস্ত চাঁদ না হলেও সেই চাঁদেরই এক একর জমি কিনলেন স্ত্রীর নামে। 

বাঁকুড়ার সিমলাপাল ব্লকের কাহারাণ গ্রামের বাসিন্দা শুভজিৎ ঘোষ। পেশায় কেন্দ্রীয় সরকারের পাওয়ার গ্রিড কর্পোরেশনের ইঞ্জিনিয়ার। তিনি ফিল্ড সুপারভাইজার পদে নাগাল্যান্ডের প্রত্যন্ত লংলেং জেলায় কর্মরত। স্ত্রী রোমিলা সেনও পেশায় ইঞ্জিনিয়ার। হায়দরাবাদের একটি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায় কর্মরত। বছর খানেক আগেই গাঁটছড়া বেঁধেছেন দুজনে। পেশার কারণে একসঙ্গে থাকা না হলেও প্রতি বছরই নিজেদের স্মরণীয় দিনগুলি একটু অন্যভাবে পালন করেন এই দম্পতি। নিজেদের বিবাহ বার্ষিকী হোক বা জন্মদিন। কখনও পথশিশুদের খাবার দেওয়া, আবার কখনও হাসপাতালের গরিব সদ্যোজাত শিশুদের জামাকাপড় দেওয়া। এভাবেই বিভিন্ন দিন পালন করে থাকেন এই দম্পতি। 

গত ১৩ নভেম্বর ছিল স্ত্রী রোমিলা সেন-এর জন্মদিন। এবার স্বামী শুভজিৎ সাত সমুদ্র তেরো নদীর ওপারে থাকায় নিজের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে জন্মদিন পালনের কথা ভেবেছিলেন রোমিলা। শুক্রবার ঘড়ির কাঁটা ১২টা ছুঁতেই তাঁকে তাঁর স্বামী জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান ভার্চুয়াল মাধ্যমে। সঙ্গে বিস্ময়কর উপহার।

এমন উপহার পেয়ে কার্যত চক্ষু চড়কগাছ রোমিলার। তিনি জানিয়েছেন, তাঁকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানোর পর হোয়াটসঅ্যাপটা খুলে দেখতে বলেন শুভজিৎ। 

খুলে দেখেন, স্বামী তাঁর নামে চাঁদে জমি কিনে তার শংসাপত্রের ছবি পাঠিয়েছেন। এমন একটা উপহারে স্বভাবতই হতবাক রোমিলা। রোমিলা আরও বলেন, কখনও চাঁদের সেই জমিতে যেতে পারবেন কিনা তিনি জানেন না। কিন্তু পরবর্তী প্রজন্মকে জানাতে চান, যদি কখনো সেখানে যাওয়া সম্ভব হয়, তাহলে যে শিশুরা অর্থাভাবে কোনোদিন মহাকাশে যাওয়ার স্বপ্ন দেখার স্পর্ধাটুকুও দেখাতে পারে না,  তারা যেন তাদের নিয়ে যায়। 

মেয়ের জন্মদিনে জামাতার এমন উপহারে স্তম্ভিত রোমিলার বাপের বাড়ির লোকজন।  রোমিলার মা পাপিয়া সেন জানান, অকল্পনীয় একটা সারপ্রাইজ। ওর ভালোবাসা জাহিরের পদ্ধতিটা সবার থেকে একেবারে সম্পূর্ণ আলাদা। প্রচুর গরিব বাচ্চাদের জন্যও করে। এরকম বড় মনের মানুষ থাকুক তাই চাই। 

শুভজিৎ জানান, "ওর বার্থ ডেতে ইউনিক কিছু উপহার দেব ভাবছিলাম। কী দেব বুঝে উঠতে পারছিলাম না। তখন ইন্টারনেট ঘেঁটে এই আইডিয়াটা পাই। তারপরই খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারি, ডেইনি সোপ বলে এক ব্যক্তি এররকম একটি সংস্থা চালাচ্ছেন। তাঁর থেকেই আমি ওর নামে জমিটা কিনেছি। এক একর জমি কেনা হয়েছে। ভবিষ্যতে কী করা যায়, তা দেখা যাবে। আপাতত জমি কেনার সংশাপত্র এসে পৌঁছেছে। আগামী ৯০ দিনের মধ্যে মিলবে জমি কেনার চুক্তিপত্রও। "





All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us