eastbengal-mohunbagan-player
Football: ইস্ট-মোহন যুদ্ধে বিভক্ত বাঙালি


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-24 12:26:51

ইস্টবেঙ্গল, মোহনবাগান। দুই দলে খেলে গিয়েছেন বহু কৃতি ফুটবলার | কিন্তু ব্যতিক্রমও আছে। যেমন চূনী গোস্বামী, সুব্রত ভট্টাচার্য, সত্যজিৎ চ্যাটার্জি কোনওদিন ইস্টবেঙ্গলে খেলেননি। এর মধ্যে চূনী এবং সুব্রত ঘোরতর বাঙালবাড়ির ছেলে ছিলেন | অন্যদিকে, প্রশান্ত সিংহ, রামবাহাদুর, শান্ত মিত্র ইস্টবেঙ্গলে খেলে গিয়েছেন, কোনওদিনও মোহনবাগানে খেলেননি। অথচ শান্তবাবু ও প্রশান্তবাবুর এই বাংলায় দেশ বলেই শোনা যায় | রামবাহাদুর তো নেপালি ফুটবলার ছিলেন। কস্মিনকালেও বাঙাল বলা যাবে না | 


ইস্টবেঙ্গলের চোখের মণি ছিলেন মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য। তিনি একবার অভিমান করে মোহনবাগানে খেলেছিলেন। কিন্তু তাঁর পারফরম্য়ান্স ছিল খুব খারাপ। একই কথা বলা যায় তরুণদের বিষয়েও | অন্যদিকে সুব্রত ভট্টাচার্য একবার ইস্টবেঙ্গলের কোচ ছিলেন এবং সেবছর তাঁর দল খুব ভালো খেলেছিল | অনেকেই দুই দলে খেলেছেন এবং বেশ ভালো ছিল তাঁদের পারফরম্য়ান্স | এঁদের মধ্যে সুধীর কর্মকার, গৌতম সরকার, প্রশান্ত ব্যানার্জি, হাবিব, নাঈম, আকবর, চিমা, বাইচুং যখন যে দলে খেলেছেন, দুর্দান্ত ছিলেন | ভাস্কর গাঙ্গুলি ১৯৭৫ এ মোহনবাগানের গোলরক্ষক হিসাবে ৫ গোলের মধ্যে ৪ গোল খেয়েছিলেন | তাঁর এই ভয়াবহ পারফরম্য়ান্সে দল একপ্রকার তাঁকে বিদায় জানায় | ভাস্করকে ইস্টবেঙ্গলে নিয়ে আসেন কোচ অমল দত্ত। তারপর ইতিহাস | ভাস্কর ভারতের সর্বকালের অন্যতম গোলরক্ষক হয়েছিলেন | 


দুই ক্লাবের একটা বাঙালি সংস্কৃতি ছিল | যে দল যখন জিতেছে, অন্য দলে তারা মিষ্টি পাঠিয়েছে | ৭০ দশকের আগে টাকাপয়সার কোনও গল্প ছিল না | চালু হয় হাবিব, নাঈম থেকে। তাও তাঁরা যৎসামান্য টাকা পেতেন এবং দুবেলা খাওয়া আর মাথা গোঁজার একটা ঠাঁই দেওয়া হত | তারও আগে বহু অন্য প্রদেশের ফুটবলার এ রাজ্যে খেলে গিয়েছেন স্রেফ থাকা-খাওয়ার বিনিময়ে| দলকে ভালোবাসার খামতি থাকত না তাঁদের খেলার | একবার দেশে যাওয়ার জন্য টাকার দরকার ছিল হাবিবের। কিন্তু তাঁর বুকের পাটা ছিল না টাকা চাইবার।


শেষ পর্যন্ত তাঁর হয়ে সুধীর কর্মকার নাকি ইস্টবেঙ্গলের কর্মকর্তা জ্যোতিষ গুহর কাছে টাকা চেয়ে মাত্র একশো টাকা হাবিবের হাতে তুলে দেন | আসলে দল অন্ত প্রাণ ছিল তৎকালীন খেলোয়াড়দের | যান লড়িয়ে খেলতেন বলেই সমর্থকরা পাগলের মতো দলের জন্য গলা ফাটাতো | আজ পেশাদারির যুগ ভালো খেলোয়াড় নিশ্চই আছে, হয়তো আরও ভালো। কিন্তু তাদের খেলা পেশাদারিত্বতে ভরা, হৃদয়ের যোগ নেই বোধকরি |

(পরবতী পর্ব আগামীকাল) 




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us