শিরোনাম
college-gardener-principal-iswar-villai-chattishgarh
Success story: কলেজের মালি থেকে প্রিন্সিপ্যাল!


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-18 12:12:25

জীবন যুদ্ধ বোধহয় একেই বলে। আর সেই যুদ্ধ শেষে মুখের হাসিটাই বলে দেয়, কী লড়াই আর কী অসম্ভব মনের জোর ছিল এই মানুষটির। না হলে মাসে মাত্র ১৫০ টাকা বেতনের চাকরি করে যাঁর সংসারটাই চলত না, পড়াশোনা তো দূরের রথা, সেই মানুষটি আজ সেখানকারই একটি কলেজের প্রিন্সিপ্যালের চেয়ারে বসতে পারেন?

ডঃ ঈশ্বর সিং বরগাহ। ছত্তিশগড়ের ভিলাইয়ের বাসিন্দা। ঘুটিয়া নামের একটি গ্রামে স্কুলের পড়াশোনা। তারপর ১৯ বছর বয়সে চলে আসেন ভিলাইয়ে। অভাবের সংসারে তখন একটাই চিন্তা, অর্থ। তার টানেই যোগ দিলেন একটি জামাকাপড়ের দোকানের সেলসম্যান হিসেবে। বেতন? মাসে মাত্র ১৫০ টাকা। এরপরই স্থানীয় চেনাজানার সুবাদে কাজ নিলেন ভিলাইয়ের কল্যাণ কলেজে। এখানের নানা কাজ দেখভাল করার পাশাপাশি চলত আর্টসে স্নাতকের পড়াশোনাও। কারণ, তাঁর চোখেমুখে সবসময়ই ছিল লেখাপড়ায় নিজেকে শিক্ষিত করে তোলার ইচ্ছা। এখানেই তিনি পেয়েছিলেন ক্র্যাফট বিভাগে শিক্ষকতার কাজ। কিন্তু তাতেও খরচ ওঠে না। তাই ওই কাজের পাশাপাশি বাগান দেখাশোনা এবং নাইট ওয়াচম্যানের কাজও চলত সমানতালে। এম এড, এম ফিল এবং শেষে ডক্টরেট। দৈনন্দিন কাজের পাশাপাশি পড়াশোনাতেও তাঁর যে ছিল ততোধিক আগ্রহ, তারই ফলস্বরূপ একে একে এইসব ডিগ্রি চলে আসে তাঁর অধ্যাবশায় এবং কঠোর পরিশ্রমের ফল হিসেবে।  

২০০৫ সাল। কল্যাণ শিক্ষা সমিতি সেই সময় একটি উল্লেখযোগ্য নাম শিক্ষা জগতে। তারা একটি নতুন কলেজ স্থাপন করল, যার নাম কল্যাণ শিক্ষা মহাবিদ্যালয়। সেখানেই মিলল প্রিন্সিপ্যালের কাজ। কারণ, ওই কলেজের কর্তৃপক্ষের কাছে তখন ঈশ্বর সত্যিই যেন ঈশ্বর সমান। তাঁর চেষ্টা, তাঁর উত্তরণের গল্প তখন অনেকেরই মুখে মুখে।

তিনি এই সাফল্যের জন্য অন্যদের ভুলে যাননি। জীবনের একরকম চূড়ায় পৌঁছে কলেজের প্রিন্সিপ্যাল থেকে শুরু করে সকলের প্রতিই তাঁর কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। 

বিবাহিত এবং দুই সন্তানের পিতা ঈশ্বর সিং বরগাহ এখন অনেকের কাছেই প্রেরণা, জেদ এবং অধ্যাবশায় শেষে সাফল্যের শিখরে পৌঁছনোর এক অনন্য উদাহরণ। তাঁর ঘটনা ইতিমধ্যেই বহু সোশ্যাল মিডিয়ায় গল্পের আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। যা পড়ে মুগ্ধ আপামর মানুষ।




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us