Duyare-Cha-by-Rajendra-Nayek
Duyare Cha: বেসরকারি উদ্যোগে 'দুয়ারে চা'


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-12 15:02:30

'দুয়ারে সরকার', 'দুয়ারে রেশন'-এর পর এবার 'দুয়ারে চা' প্রকল্প। তবে এই প্রকল্পের উদ্যোক্তা সরকার নন। এরূপ অভিনব ভাবনা নিয়ে এগিয়ে এসেছেন রাজেন্দ্র নায়েক(২৯)। লকডাউন-ই এই ভাবনার জন্ম দেয়। যখন সকলে ঘরবন্দি। বাইরে বেরিয়ে চা খেতে যেতে পারছেননা। তখন রাজেন্দ্র  চা নিয়ে পৌঁছে গেছেন দুয়ারে দুয়ারে।

রাজেন্দ্র নায়েক, বাড়ি উড়িষ্যায়। সেখানে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেন । তারপর কাজের খোঁজে বাবার হাত ধরে চলে আসেন কলকাতায় । বাবা অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মী। কলকাতায় লর্ড সিনহা রোডে বাবার সঙ্গেই থাকেন। স্নাতক স্তরের পড়াশোনার জন্য ভর্তি হলেও তা সম্পূর্ণ হয়নি। পরে ম্যানেজমেন্টের পড়া শুরু করলেও অর্থের অভাবে শেষ করতে পারেননি। তারপর লেগে পড়ে চায়ের ব্যবসায়। প্রথমে অন্যের দোকানে বসে চা বিক্রি করতে শুরু করেন। করোনাকালে তাও এক সময় বন্ধ হয়ে যায়। শেষমেশ সাইকেল কিনে সাধারণ মানুষের দুয়ারে গিয়ে চা বিক্রির সিদ্ধান্ত নেন রাজেন্দ্র। 

এক চা প্রেমী রাজেন্দ্রর চা খেতে খেতে জানিয়েছেন,"রাজেন্দ্র নায়েক এমন এক ছেলে যাকে ফোন করলেই পাওয়া যায়। ফোন করে ডাকলেই ও চা দিতে চলে আসে। সে সকাল ৭টা হোক কিংবা সকাল ৬টা। অন্যান্য দোকানের চায়ের চেয়ে ওর চা বেশি ভালো লাগে। ও অনেকসময় আমাদের বিনামূল্যেও চা খাওয়ায়। আবার পয়সা দিয়েও খাই।"

রাজেন্দ্র বলেন," আট-নয় বছর হয়ে গেছে। করোনাকালে এই পথ বেছেনি। এর আগে একটা অফিসে কাজ করতাম। অফিস বন্ধ হয়ে যাওয়ায় একটা চায়ের দোকানে কাজ করি। লকডাউনে সেই দোকানও বন্ধ হয়ে যায়। তারপর সাইকেল কিনে এইভাবে বাড়ি বাড়ি, অফিসে চা পৌঁছে দি। "

স্বল্প পুঁজিতেই নেমে পড়ে দুয়ারে চায়ের প্রকল্প মানুষের দরবারে পৌছে দিতে। 'দুয়ারে চা' লেখা এবং নীচে ফোন নম্বর দিয়ে গেঞ্জি ছাপিয়ে ফেলে সে। তারপর সাইকেলের ঝোলায় দুধ চা, লেবু চা, লিকার চা, বিস্কুট নিয়ে রাস্তায় বেরিয়ে পড়ে। করোনার সময় দোকান বন্ধ থাকায় ডাক পড়ত রাজেন্দ্রর।  মাত্র ৬ টাকা দিলেই তাঁর কাছে পাওয়া যায় ভাঁড় ভর্তি দুধ চা।  যদিও সাইকেলের বোর্ডে লেখা 'টাকা লাগবে না'। তবে তা শুধুমাত্র তাদের জন্য , যারা টাকা দিয়ে চা কিনতে পারছেন না অভাবের দরুন।  

আরেক চা ক্রেতা বলেন," আমার এমনিতে চা-এর নেশা নেই। তবে ওর চা আমার খুব ভালো লাগে। যখন ইচ্ছে করে খেতে তখন ওর থেকেই চা খায়। আমাদের যখন প্রয়োজন তখনই চলে আসে।" 

এখন চা বিক্রি করেই বড় হওয়ার স্বপ্ন দেখছে রাজেন্দ্র। সে তাঁর ফোন নম্বর পৌঁছে দিতে চাই সকলের কাছে। ভবিষ্যতে অনলাইন চা বিক্রির ইচ্ছা রয়েছে তাঁর।  তবে সবকিছুর জন্যই অর্থের সংস্থান এর দিকে তাকিয়ে রাজেন্দ্র নায়েক।




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us