ব্রেকিং নিউজ
  (11:17 AM)-ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা গোটা দেশে বেড়ে দাঁড়াল ৮২০৯, সুস্থ ৩১০৯     (11:14 AM)-করোনা রুখতে সকাল ১০টার পর থেকে বন্ধ গ্যালিফ স্ট্রিটের পাখিবাজার     (11:02 AM)-সিঁথি থানা এলাকায় রামলীলা বাগানের একটি বাড়িতে ভোররাতে আগুন লাগল     (08:54 AM)-প্রখ্যাত কত্থক শিল্পী পণ্ডিত বিরজু মহারাজ প্রয়াত     (08:48 AM)-সিরিয়াল দেখার ফাঁকে কসবায় দুঃসাহসিক চুরি     (08:48 AM)-রাজ্যের করোনা আক্রান্ত কমলেও মৃত্যুসংখ্যা উর্ধ্বমুখীই     (08:47 AM)-তাপমাত্রা স্বাভাবিকের নিচে, ফের বঙ্গে শীতের আমেজ  
Atleast-9-persons-died-after-consuming-spurious-liquor-in-Gopalgunj-Bihar
ফের বিষমদ পান করে গোপালগঞ্জে মৃত অন্তত ৯


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-04 19:45:54


একে করোনা মহামারীতে রক্ষে নেই, তার ওপর বিষ মদ দোসর। এমনই পরিস্থিতি বিহারে। একদিকে করোনা সংক্রমণে লাগাম টানতে নাজেহাল অবস্থা, ঠিক তখনই এই ঘটনায় কপালে ভাঁজ পড়েছে প্রশাসনের। 

ফের বিষমদ পান করে বিহারের গোপালগঞ্জে অন্তত মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের। হাসপাতালে ভরতি এখনও ৭জন। তাদের অবস্থা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে হাসপাতাল সূত্রে খবর।

 উল্লেখ্য, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার কুরসিতে বসার পর থেকেই বিহারকে মদমুক্ত করার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছিলেন। সেই মতো ২০১৬ সাল থেকেই বিহারে নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয় মদ। কাউকে মদ্যপ অবস্থায় রাস্তায় দেখতে পেলেও পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন তিনি। এমনকি সব মদের দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয় ওই রাজ্যে। 

তিনি আরও বলেন, এই পদক্ষেপে সমাজের কল্যাণ হবে। এই আইনে কোনো বাড়িতে মদ পাওয়া গেলে সে বাড়ির সকল প্রাপ্তবয়স্ক বাসিন্দাদের গ্রেফতার করা হবে এবং জেলও হবে তাদের।

তবে গাঁ-গঞ্জে এখনও প্রশাসনের নজর এড়িয়ে চলছে দেদার মদ বিক্রি। বিষমদ খেয়ে মৃত্যুর খবর প্রায়শই শোনা যায় এখানে। নিজেরা মদ বানাতে গিয়েই এমন বিপত্তিতে পড়ছে তারা। এতে চিন্তিত গ্রামবাসীরাও। 

প্রসঙ্গত, এই বছর জুলাই মাসে বিহারের চম্পারণে বিষমদ খেয়ে মৃত্যু হয়েছিল ১৬ জনের। আশেপাশের গ্রামগুলিতেও এমন মৃত্যুর ঘটনা প্রায়শই শোনা যাচ্ছে। এহেন ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেয় প্রশাসন।

স্থানীয় সূত্রে খবর, হঠাৎমদ্যপান নিষিদ্ধ করায় রীতিমতো ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল বিহারে। কেউ নেশার জ্বালায় সাবান খাচ্ছে , আবার কেউ নিজের পরিবারের সদস্যদের চিনতে পারছেন না। হঠাৎহঠাৎ করে চিৎকার উঠছে । কেউ আবার খাচ্ছিল প্রচুর পরিমাণে কাগজ ও  পেনকিলার ওষুধ।

চিকিৎসক মহলের একাংশের দাবি, মদ নিষিদ্ধ হওয়ার পর এমন পরিস্থিতি হবে তা জানা ছিল। আর সেই কারণে আগাম প্রস্তুতি নিয়েছিল হাসপাতালগুলি। নেশা না পেয়েও প্রচুর মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েছিল। তবে সরকারের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাচ্ছে তারা।

প্রশাসনিক সূত্রে খবর, মদ নিষিদ্ধ হওয়ার পরও কিভাবে মদ বিক্রি চলছে সেই বিষয়ে নজরদারি চালানো হবে। কারা এই নিষিদ্ধ মদ তৈরি করছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।  





All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us