sskm-nurse-demonstration-demand-kolkata
Nurse: এসএসকেএম-এ নার্সদের অবস্থান-বিক্ষোভ অব্যাহত


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-24 16:29:51

একাধিক দাবি নিয়ে এসএসকেএম-এর নার্সেস ইউনিটির সদস্যদের অবস্থান-বিক্ষোভ জারি রয়েছে। যতদিন না তাঁদের দাবি মেনে নেওয়া হবে, ততদিন এই বিক্ষোভ চলবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। তাঁদের বারবার প্রতিশ্রুতি দিয়েও তা কেন পূরণ করা হয়নি, এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেই দ্বিতীয় দফার আন্দোলনে নেমেছেন তাঁরা।

বিক্ষোভরত নার্সেস ইউনিটির এক সদস্য জানান, আগামী দিনে এই বিক্ষোভ নিয়ে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, তার জন্য তাঁরা প্রত্যেক জেলার নার্সেস ইউনিটির সঙ্গে মিটিং-এ বসেছেন। অনলাইনে গুগল মিটে এই মিটিং করা হচ্ছে। প্রতি জেলার নার্সেস ইউনিটির সেক্রেটারি, ইন-চার্জ, প্রেসিডেন্ট, ভলান্টিয়ার প্রত্যেকের সঙ্গেই চলছে এই বৈঠক। অনেকে তাঁদের সিদ্ধান্তের সঙ্গে সহমত পোষণ করেছেন। আবার অনেকে অনেক রকম উপায় বলছেন। 

তিনি আরও বলেন, মঙ্গলবার কোর্টের শুনানি তাঁদের পক্ষে যায়। যা তাঁদের একপ্রকার প্রাথমিক জয়। সোমবার পরবর্তী শুনানি রয়েছে। তবে ততদিন তাঁরা চুপ করে বসে থাকবেন না, এই বার্তা প্রশাসনকে দিতে চান। বুধবারের মিটিং-এর পর তাঁরা বৃহত্তর আন্দোলনে নামবেন। তবে সবটাই করছেন রোগী পরিষেবা অব্যাহত রেখে। পরিষেবায় যাতে কোনওরকম সমস্যা না হয়, সেদিকটা তাঁরা নজর রাখছেন।

এসএসকেএম-এর নার্সেস ইউনিটির আন্দোলনের ১২ তম দিন এবং অনশন ১০ তম দিনে পড়েছে। তাঁরা যে দাবিগুলি নিয়ে অবস্থান-বিক্ষোভে নামেন, সেগুলির মধ্যে অন্যতম হল--

যে পে-স্কেলের যোগ্য তাঁরা, সেই পে-স্কেল তাঁদের দিতে হবে। 

যাঁদের বদলি করা হল, তাঁদের ফিরিয়ে আনতে হবে। 

সারা রাজ্যজুড়ে নার্সদের ওপর বিভিন্নভাবে প্রশাসনিক নিগ্রহ চলে। বারবার তাঁদের হুমকি দেওয়া হয় অন্য জায়গায় বদলি করে দেওয়ার। অবিলম্বে তা বন্ধ করতে হবে। 

প্রসঙ্গত,এই অবস্থান-বিক্ষোভের জেরে হাসপাতালের স্বাস্থ্য পরিষেবা বিঘ্নিত হচ্ছে বলে সোচ্চার হয় কয়েকটি সংগঠন। মামলাকারীদের বক্তব্য, হাসপাতালের ভিতরে মাইকিং চলছে। যার ফলে রোগীর পরিষেবা দিতে সমস্যা হচ্ছে। কলকাতা হাইকোর্টে এই বিক্ষোভ তুলে নেওয়ার আর্জি জানিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিল এই সংগঠনগুলি। মঙ্গলবার এই মামলার শুনানি হয় হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে। রায় নার্সদের পক্ষে যায়। 

আর শব্দদূষণ নিয়ে এসএসকেএমের নার্সদের নামে যে অভিযোগ করা হয়েছে, তা একেবারেই যুক্তিহীন বলে জানিয়েছিলেন বিক্ষোভরত নার্সদের একাংশ। কারণ, তাঁরা মাইক নয়, বক্স চালান। আর সেই বক্সের আওয়াজ বেশিদূর যাওয়া সম্ভব নয়। এমনকি হাসপাতালের মধ্যে সেই বক্সও বাজান না। আর তা রোগীদের কথা ভেবেই। এমনটাই দাবি তাঁদের। 




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us