ব্রেকিং নিউজ
  (08:15 AM)-২৪ ঘণ্টায় দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪,৭৭৪, সুস্থ ২,৫১,৭৭৭      (08:07 AM)-করোনায় মৃত ৩৫, সংক্রমণের হার কমে ১২.৫৮ শতাংশ      (08:06 AM)-গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত ৯,১৫৪     (07:59 AM)-২২ থেকে ২৪ জানুয়ারি হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা     (07:58 AM)-পশ্চিমী ঝঞ্ঝার জেরে রাজ্য জুড়েই বৃষ্টির সম্ভাবনা  
elliot-road-teacher-death-sensation
ইলিয়ট রোডে শিক্ষকের রহস্যমৃত্যুতে চাঞ্চল্য


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-06 19:36:41


মধ্য কলকাতার ইলিয়ট রোডের একটি তিনতলা বাড়ির গ্রাউন্ড ফ্লোরে থাকতেন। তিনি পেশায় শিক্ষক। পঞ্চাশোর্ধ এই শিক্ষকের রহস্যমৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য গোটা এলাকায়। বিগত কয়েকদিন ধরেই তিনি ছাত্রছাত্রীদের বিকেলে তাঁর এই বাড়িতে পড়াতেন। আশপাশের বাসিন্দারা জানাচ্ছেন, এই বাড়িতে তিনি একাই ভাড়া থাকতেন। তাঁরা আদপে রাঁচির বাসিন্দা।

তাঁর প্রতিদিনের অভ্যাস ছিল, রাস্তার কুকুরদের খাওয়ানো। শুক্রবার সকালে তিনি ওই কাজে বেরিয়েওছিলেন। কিন্তু ছন্দপতন ঘটে বিকেলে। ছাত্রছাত্রীরা যখন পড়তে আসে, তারা দেখে, ভিতর থেকে দরজা বন্ধ। কিন্তু অনেক ডাকাডাকি করেও সাড়া মেলেনি। তারপর দরজা ভেঙে তারা ভিতরে ঢুকে দেখে, শিক্ষক সংজ্ঞাহীন অবস্থায়  মেঝেতে পড়ে রয়েছেন। তারা পুলিসে খবর দেয়। পুলিস এসে দেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। সেখানেই তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিস জানিয়েছে, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই ওই শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। যদিও ময়নাতদন্তের পরই মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

স্থানীয় এক গাড়িচালক জানালেন, সকালে এই ঘটনার কথা শুনে তিনি অবাকই হয়েছিলেন। কারণ, দীর্ঘ বহু বছর ধরেই ওই শিক্ষক এখানে রয়েছেন। তাঁর মধ্যে অস্বাভাবিক কিছু চোখে পড়েনি। তিনি যতদূর জানেন, ওই শিক্ষকের ভাই-বোন থাকলেও তারা থাকে রাঁচিতে। ওই শিক্ষক এলাকায় ভদ্র মানুষ হিসেবেই পরিচিত ছিলেন। সবার সঙ্গেই তাঁর সদ্ভাব ছিল। ফলে তাঁর কাছেও এই মৃত্যু যথেষ্ট রহস্যের।  

স্থানীয় এক মহিলা জানালেন, ওই শিক্ষকের পরিবার বলতে কিছু নেই। তবে তাঁরা এই বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে রয়েছেন দীর্ঘ ৫০-৬০ বছর ধরে। এই বাড়িতেই গত হয়েছেন তাঁর বাবা-মা। খবর পেয়ে রাঁচি থেকে তাঁর বোন এদিন বিকেলে এসেছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

কলকাতা শহরে গত কয়েকদিনে বেশ কয়েকটি এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে, যেখানে একাকী থাকা অবস্থায় কোনও না কোনও দুর্ঘটনা ঘটেছে। যেমন কালীপুজোর রাতে টালার খেলাৎবাবু লেনের একটি বাড়িতে এক বৃদ্ধাকে নৃশংসভাবে মারধর করে সোনাদানা সহ মূল্যবান জিনিস নিয়ে চম্পট দিয়েছিল দুষ্কৃতী। শেক্সপিয়র সরণি থানার থিয়েটার রোডের একটি অভিজাত আবাসনে এক বৃদ্ধাকে স্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছিল। ওই ঘটনায় সন্দেহের তালিকায় থাকা ওই বাড়িরই পুরনো এক গাড়ির চালককে পুলিস গ্রেফতার করে।

এক্ষেত্রেও এই শিক্ষকের মৃত্যু স্বাভাবিক, নাকি এর পিছনে অন্য কোনও রহস্য রয়েছে, তা সময়ই বলবে। 




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us