শিরোনাম
umbrella-capital-china-
ছাতার শহর লন্ডন, ছাতার রাজধানী চিন


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-10-30 19:25:27

চিনের শহর সোংজিয়া। পরিচিত “ছাতার রাজধানী” হিসেবে। কারণ বিশ্বে সবচেয়ে বেশি ছাতা তৈরি হয় এই চিনেই। রয়েছে এক হাজারেরও বেশি ছাতার কারখানা, যেখানে প্রতি বছর প্রায় অর্ধবিলিয়ন, অর্থাৎ চিনের মোট উৎপাদনের ৩০ শতাংশ ছাতা তৈরি হয়। এখানে একজন ছাতার কারিগর দিনে তৈরি করেন ৩০০টির বেশি ছাতা। 

এক সময় এই চিনেরই রাজদরবারগুলিতে অসংখ্য ছাতার ছবি আঁকা থাকত। চিন থেকেই রাজছত্রের ব্যবহার জাপান এবং কোরিয়ায় চালু হয়। সে সময় রাজার ছবি আঁকার উপরও নিষেধাজ্ঞা ছিল। শিল্পীরা ঘোড়ার উপর রাজছত্রের ছায়া এঁকেই রাজার উপস্থিতি বোঝাতেন।

বিশ্বের প্রথম ছাতার দোকান ‘জেমস স্মিথ অ্যান্ড সন্স’ চালু হয় ১৮৩০ সালে এবং এই দোকান লন্ডনের ৫৩ নিউ অক্সফোর্ড স্ট্রিটে আজও চালু আছে। ১৮৫২ সালে স্যামুয়েল ফক্স স্টিলের চিকন রড দিয়ে রানি ভিক্টোরিয়ার জন্য ছাতা তৈরি করেন। ইংল্যান্ড, বিশেষ করে লন্ডনে প্রচুর বৃষ্টি হয়। এ জন্য সেখানে ব্যাপকভাবে ছাতার ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। যে কারণেই লন্ডন পরিচিত ছাতার শহর হিসেবে।


ছাতার রয়েছে এক রাজকীয় ইতিহাসও। এক সময় অভিজাত ব্যক্তিরাই ছাতা ব্যবহার করতেন। মিশরে চারকোনা ছাতা আবিষ্কারের কয়েকশো বছর পর মেসোপটেমিয়া (বর্তমানে ইরাক) অঞ্চলে রাজছত্র আবিষ্কার হয়। প্রাচীন আসিরিয়া নগর ছিল টাইগ্রিস নদীর তীরে। সে নগরের নানিভে এক খোদাইচিত্রে দেখা যায়, গোলাকার একটি ছাতা রাজার মাথার উপর ধরে রাখা হয়েছে। পরে মেসোপটেমিয়ার পূর্ব ও পশ্চিমাঞ্চলেও রাজছত্রের প্রচলন হয়। আফ্রিকা মহাদেশেও ছিল রাজছত্রের প্রচলন। ইথিওপিয়ার দ্বাদশ শতকে আঁকা ছবি ও প্রাচীন গ্রন্থে প্রমাণ আছে রাজছত্র ব্যবহারের। এখনও সেখানে সেই ঐতিহ্য অক্ষুন্ন রয়েছে।