ঐতিহ্যের বাগান তাবুতে পা-রাখলেন কার্লোস ভালদেরামা

0
17

ঘড়িতে তখন তিনটে পঁচিশ৷ সবুজ-মেরুন জনতার প্রতীক্ষার যেন অবসান হল। ঐতিহ্যের বাগান তাবুতে পা-রাখলেন সস্ত্রীক কার্লোস ভালদেরামা। পরিকাঠামোয় এ দেশের ফুটবল সহস্র গুণ পিছিয়ে থাকলেও ফুটবলের এই শহর জয় করে নিল ভালদেরামার হৃদয়৷
আগামী মাসে ভারতে অনুর্ধ্ব ১৭ ফুটবল বিশ্বকাপ। তার প্রচারে এসে এই শহরেও ঘুরে গেলেন সাদা চুলের বিশ্বকাপার৷ ফুটবলের শহরে জাতীয় ক্লাবে পা-রাখলেন পেলে, মারাদোনার, কান ও মেসির পর আরেক কিংবদন্তি। কলম্বিয়ার বিশ্বকাপার কার্লোস আলবার্তো ভালদেরামা পালাসিও৷ ক্লাবের কফি মাগের সঙ্গেই ১০ নম্বর জার্সি তুলে দেওয়া হল ভালদেরামার হাতে। বাগান কর্তাদের মধ্যে এদিন হাজির ছিলেন সৃঞ্জয় বসু, দেবাশিস দত্ত ও সত্যজিৎ চট্টোপাধ্যায়। বাগান ফুটবলারদের মধ্যমণি হয়ে ছবি তুললেন কলম্বিয়ার বছর ছাপ্পানোর এই ফুটবলার৷
চূড়ান্ত ফিটনেসের প্রমাণ দিয়েছিলেন আগেই৷ ফুটবল নিয়ে জাগলিং করলেন বেশ কিছুক্ষণ। এরপর বাগান গোলকিপার শিলটন পালকে তে-কাঠির নিচে দাঁড় করিয়ে পেনাল্টি শট নিলেন। সঙ্গে সঙ্গে শিলটনকে ছুটে গিয়ে জড়িয়ে ধরে প্রমাণ করে দিলেন তিনি মাটির মানুষ৷ দেখতে দেখতে মিনিট চল্লিশ কাটিয়ে দিলেন বাগান তাঁবুতে। মাঝখানে ড্রেসিং-রুমেও ঢুঁ মেরে আসলেন। পরিকাঠামোয় এ দেশের ফুটবল সহস্র গুণ পিছিয়ে থাকলেও ফুটবলের এই শহর জয় করে নিল ভালদেরামার হৃদয়৷