টালিগঞ্জ থানায় হামলায় গ্রেফতার মূল অভিযুক্ত

0
632

সিসিটিভি ফুটেজ দেখেই পুলিশ বুঝতে পেরেছিল টালিগঞ্জ থানার ভিতর হামলার পিছনে রয়েছেন চেতলার মিতালিবাগানের পুতুল নস্কর। তাঁকে ওই অঞ্চলের মানুষ ও কয়েকটি থানার পুলিশ এক ডাকেই চেনে। শেষ পর্যন্ত এহেন পুতুল নস্করকে গ্রেফতার করল টালিগঞ্জ থানার পুলিশ। ফলে এই নিয়ে মোট ৪ জন গ্রেফতার হল থানার ভিতরেই পুলিশ পেটানোর ঘটনায়। রবিবার রাতের থানায় এক কন্সটেবলকে মারতে দেখা গিয়েছে পুতুলের ভাইপো আকাশকেও। তাঁকেও খুঁজছে পুলিশ। ওই পিসি ও ভাইপোই এই ঘটনার পিছনে মাস্টারমাইন্ড বলে মনে করছে তদন্তকারী আধিকারিকরা। কারণ সেদিনের হামলার ফুটেজে এই পুতুল নস্করের অনুগামী মহিলাদেরকেই দেখা গিয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।


রবিবার রাতে টালিগঞ্জ থানার ভিতরে হামলা চালায় বেপরোয়া এক বাইক আরোহীর আত্মীয় পরিজনরা। এই ঘটনা নিয়ে শোরগোল পরার ১১ ঘন্টা পর পুলিশ স্বত:প্রণোদিতভাবে একটি মামলা দায়ের করে। সোমবার রাত পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার না করতে পারায় ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন কলকাতার সিপি অনুজ শর্মাও। এরপরই নড়েচড়ে বসে পুলিশ, সোমবার গভীর রাতে ছোটকা দলুই ওরফে ভাই এবং দীপক অধিকারী ওরফে লালা নামে দুজনকে গ্রেফতার করে। দুজনেই তৃণমূল কংগ্রেসের ঘনিষ্ট বলেই জানা গিয়েছে। খুব শীঘ্রই বাকিদের গ্রেফতার করা হবে বলেও জানিয়েছে লালবাজার। রবিবার রাতের ওই ঘটানার জেরে টালিগঞ্জ থানার ওসি অনুপ ঘোষকে শোকজ করেছে পুলিশ কর্তারা। ঘটনার পর উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে না জানানো এবং দীর্ঘ সময় এফআইআর না করার জন্যই তাঁকে শোকজ করা হয়েছে বলে লালবাজার সূত্রে জানা গিয়েছে।