বনগাঁ পুরসভায় জয় নিয়ে টানাপোড়েন দু’পক্ষেরই

0
3937

বনগাঁ পুরসভার আস্থা ভোটে জয়ের দাবি করল বিজেপি। তাদের দাবি, তাদের কাউন্সিলরদের আটকে রেখে ভোট হয়েছে। পরে প্রশাসনিক আধিকারিকের উপস্থিতিতে তাদের ১১ জন কাউন্সিলরই অনাস্থার পক্ষে ভোট দিয়েছেন। ফলে পুরসভা তাদেরই দখলে। অন্যদিকে, চেয়ারম্যান তৃণমূলের শঙ্কর আঢ্যের বক্তব্য, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পুরসভায় হাজির হতে পারেননি বিজেপি কাউন্সিলররা৷ জয় হয়েছে তৃণমূলেরই। প্রশাসনিক আধিকারিক গৌরাঙ্গ বিশ্বাস অবশ্য কারা জিতেছে তা পরিষ্কার করেননি। উল্লেখ্য, পুরসভায় বিজেপির দুই কাউন্সিলর কার্তিক মণ্ডল এবং হিমাদ্রি মণ্ডলকে আগামী সাতদিন পুলিশ গ্রেফতার করতে পারবে না বলে এদিনই নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট বিচারপতি জয়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চ। তৃণমূল কমিশনার শম্পা মহান্তি অভিযোগ করেছিলেন কার্তিক এবং হিমাদ্রি তাঁকে জোর করে তুলে নিয়ে মুক্তিপণ দাবি করা হয়েছে। বিজেপির অভিযোগ, দুই কাউন্সিলরের গ্রেপ্তারিতে হাইকোর্ট স্থগিতাদেশ দেওয়া সত্বেও তাঁদের পুরভবনে ঢুকতে দেয়নি পুলিশ৷ বনগাঁর চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনৈতিক কাজের অভিযোগে অনাস্থা প্রস্তাব এনেছিলেন ১১ জন পুরপ্রতিনিধি। বিষয়টি আদালতে গড়ায়। আদালতের নির্দেশে মঙ্গলবার হয় বনগাঁ পুরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচনের জন্য আস্থা ভোট। টানটান উত্তেজনার মধ্যে জারি হয়েছিল ১৪৪ ধারা। দুপক্ষেরই প্রচুর সমর্থক সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। পরে শুরু হয়ে যায় ইটবৃষ্টি। আহত হন বেশ কয়েকজন।