সোদপুরের তরুনী সায়নীর মৃত্যু ঘিরে বাড়ছে রহস্য

0
75

দুর্ঘটনা না খুন? সোদপুরের দু’নম্বর দেশবন্ধু নগরের বাসিন্দা সায়নীর মৃত্যু নিয়ে ক্রমশ বাড়ছে রহস্য। স্থানীয় স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী সায়নী। পুজো উপলক্ষ্যে আগরপাড়ার মহাজাতি নগর মামার বাড়িতে যায় সে। বুধবার রাতে সেখান থেকেই বন্ধুদের সঙ্গে ঠাকুর দেখতে বেড়িয়েছিল। তারপর থেকেই নিখোঁজ হয়ে যায় সে। বৃহস্পতিবার আগরপাড়ার মাঝে ৫নং রেল গেটের ধারে একটি পুকুরের থেকে ওই সায়নীর দেহ উদ্ধার হয়। পরিবারের দাবি, তাকে খুন করেই পুকুরে ফেলে দেওয়া হয়েছে। খড়দা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তারা। এদিকে তদন্তে এক যুবকের সঙ্গে ঘনিষ্টতার কথা জানতে পারে পুলিশ। গ্রেফতার করা হয় প্রাক্তন প্রেমিক দীপ ও পাপাই, গুড্ডু, সৃজন নামের ৪ জনকে। যদিও দীপের দাবি, পুজোর রাতে তারা একসঙ্গে ওই পুকুরপাড়ে বসে মদ্যপান করেছিল। তারপর রাতে তাকে তার মামাবাড়ির সামনেও পৌঁছেও দেয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের কয়েকজনও দাবি করেন, কিছু তরুন-তরুণী দীর্ঘক্ষণ অনেক রাত পর্যন্ত পুকুরপাড়ে আড্ডা মারছিল। এদিকে মৃতদেহে কোনও আঘাতের চিহ্নও পাওয়া যায়নি। আবার পা পিছলে জলে গিয়ে পড়ারও কোনও প্রমাণ মেলেনি। সবমিলিয়ে মৃত্যু রহস্য নিয়ে ধন্দে পুলিশও। শুক্রবার ধৃতদের আদালতে তোলা হয়। অভিযযুক্ত পাপাই ও দীপকে পাঁচ দিনের পুলিশ হেপাজতের নির্দেশ দিয়েছে ব্যারাকপুর আদালত।