মূর্তি বিক্রি নিয়ে তুলকালাম

0
289

মিশরের আপত্তিতে কান না দিয়ে নিলামে বিক্রি হয়ে গেল টুটেনখামেনের ৩০০০ বছর পুরানো মূর্তির মাথা। কোয়ার্টজের এই প্রস্তরমূর্তির দাম উঠেছে প্রায় ৬০ লাখ ডলার। মিশর এই নিলামে আপত্তি জানিয়ে বলেছিল, এই মূর্তি অবৈধভাবে মিশর তেকে পাচার করা হয়েছে।
এবছরের সবথেকে বিতর্কিত নিলামে লন্ডনের ক্রিস্টি নিলামঘর ২৮.৫ সেন্টিমিটারের মূর্তিটি বিক্রি করেছে। কে কিনেছে তা জানানো হয়নি। টুটেনখামেন ৯ বছর বয়সে ফারাও হয়েছিলেন। দশবছর পর তিনি মারা যান। নিখুঁতভাবে খোদাই করা এই মূর্তি প্রাচীন মিশরীয় দেবতা আমেনের আদলে।
কান ও নাক সামান্য ভাঙা। এটি এসেছে মিশরীয় শিল্পের রেসান্দ্রো ব্যক্তিগত সংগ্রহশালা থেকে। মিশরের কর্তৃপক্ষের দাবি ছিল, নিলাম বন্ধ করে মূর্তি মিশরকে ফেরত দেওয়া হোক। এনিয়ে ইংল্যান্ডের বিদেশমন্ত্রক, কমনওয়েলথ অফিস এমনকী, রাষ্ট্রসংঘের ইউনেস্কোর কাছেও দরবার করেছে তারা।
নিলামঘরের সামেনও মিশরের পতাকা হাতে বিক্ষোভ দেখান একদল মিশরীয়। তাদের হাতে ছিল “মিশরের ইতিহাস বিক্রির জন্য নয়” লেখা ফেস্টুন। ইতিহাস সম্পর্কতে তারা সচেতন, এই দাবি করে ক্রিস্টিজের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তারা শিল্পের স্বচ্ছ, বৈধ বাজারের জন্য কাজ করছে।
অন্যদিকে, মিশরের দাবি, ক্রিস্টিজ কোনও প্রামাণ্য নথি দেখাতে পারেনি। তারা টুটেনখামেনের মূর্তি ফেরতের দাবিতে তাদের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবেই। তাদের দৃঢ় ধারণা, গত শতকের সত্তরের দশকে মিশরের নীল নদের দক্ষিণ পারে কারনাক মন্দির থেকে এটিকে চুরি করা হয়েছিল।