‘কিছু রাজ্যের জন্যই পিছোচ্ছে দেশ’

0
170

‘ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস’ বা সহজ ব্যবসা ক্ষেত্রে এগিয়ে চলেছে ভারত। তা সত্ত্বেও হিউম্যান ডেভলপমেন্ট ইনডেক্স বা মানবসম্পদ উন্নয়ন সূচকের নিরিখে পিছিয়ে রয়েছে দেশ। এমনটাই জানালেন নীতি আয়োগের সিইও অমিতাভ কান্ত। যদিও এই পিছিয়ে থাকার কারণ হিসেবে বিহার, উত্তরপ্রদেশ, ছত্তিশগড়, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থানের মতো বিভিন্ন রাজ্যের আর্থ-সামাজিক অনুন্নয়নই অনেকাংশে দায়ী। মঙ্গলবার একটি সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানালেন তিনি। এদিন তিনি আরও বলেন, মানবসম্পদ উন্নয়ন সূচকের তালিকায় ১৮৮টি দেশের মধ্যে ভারতের স্থান ১৩১। অর্থাৎ এখনও অনেকটাই পিছিয়ে। আবার সহজ ব্যবসা ক্ষেত্রের নিরিখে এটাও বলা যায় দ্রুত উন্নয়নের দিকে এগিয়ে চলেছে দেশ। বিশেষকরে দক্ষিণ ও পশ্চিম ভারতে গতি অনেকটাই দ্রুততর। কিন্তু তা সত্ত্বেও পিছিয়ে পড়ছি। মানবসম্পদ উন্নয়ন সূচকের উন্নতি ঘটাতে হলে সামাজিক পরিস্থিতির উন্নতির দিকেও জোর দিতে হবে। তাঁর মতে,‘শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের মতো গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলিতে আমরা এখনও পিছিয়ে রয়েছি। গোটা দেশের নিরিখে শিক্ষার মান এখনও যথেষ্ট নিন্মম্মুখী। একটি পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র, দ্বিতীয় শ্রেণির যোগ-বিয়োগ করতে অপারগ। এমনকি তাঁরা নিজের মাতৃভাষাও ঠিকঠাক পড়তে পারে না। শিশুমৃত্যুর হার এখনও যথেষ্ট বেশি। এই পরিস্থিতির পরিবর্তন না হলে নিরবিচ্ছিন্ন ও ধারাবাহিক উন্নয়ন সম্ভব নয়’। দেশের এই চিত্র পাল্টাতে নীতি আয়োগও কয়েকগুচ্ছ পদক্ষেপ নিয়েছে। এই লক্ষ্যে গত মাসে দেশের ১০১টি জেলাগুলিকে নিয়ে নীতি আয়োগ ‘নূন্যতম স্থান নির্ধারণ প্রক্রিয়া’ চালু করেছে। এর মাধ্যমে পিছিয়ে পড়া জেলাগুলির আর্থ-সামাজিক পরিকাঠামোর উন্নয়নে জোর দেওয়া হবে। পাশাপাশি দেশের নারী সমাজের অগ্রগতির জন্য সরকারি নীতির সুষ্ঠ প্রয়োগের উপরেও জোর দেওয়া প্রয়োজন বলেও জানান তিনি।