জল বাঁচাতে

0
108

জলই জীবন, ছোটবেলা থেকে সকলেই শুনে আসে। কিন্তু যে হারে জলের অপচয় হচ্ছে বিশ্বজুড়ে তাতে তীব্র জল সঙ্কট দেখা দেবে অদূর ভবিষ্যতে। এমনটাই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। গোটা বিশ্বের বিজ্ঞানীরা জলসঙ্কট সমাধানের জন্য বিকল্প চিন্তাভাবনা শুরু করেছেন।
বিভিন্ন বাড়ি ও প্রতিষ্ঠানের ছাদের ট্যাঙ্কে জল ভরতে গিয়ে অনেকসময়ই জল পড়ে গিয়ে অপচয় হয়। এভাবে জল অপচয় বন্ধ করার ভাবনা থেকে বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর শহরের সেনহাটি কলোনির যুবক সন্তু মজুমদার বানিয়ে ফেলেছেন এক অভিনব যন্ত্র। তিনি মনে করেন, বর্তমানে যেভাবে জল সঙ্কট দেখা দিয়েছে তাতে একদিন আমাদেরও সেই ভয়ানক সঙ্কটের সম্মুখীন হতে হবে। তাঁর আশা, এই যন্ত্র আগামীদিনে অনেকটাই জল সংরক্ষণের কাজে আসবে।

সন্তু মজুমদারের তৈরি এই যন্ত্র ছাদে জলের ট্যাঙ্কে লাগাতে হয়। এই যন্ত্রের সেন্সর ভরা ও খালি ট্যাঙ্ক চিহ্নিত করতে পারে। ট্যাঙ্ক খালি থাকলে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই পাম্প চালিয়ে এই যন্ত্রটি জল তুলে ট্যাঙ্ক ভর্তি করে দেবে। আবার সেটি ভর্তি হয়ে গেলেই নিজে থেকেই বন্ধ হয়ে যাবে পাম্প। ফলে উপচে পড়ে জল অপচয় আর হবে না।
সন্তুর কথায়, জলের অপচয়ের জন্য আমি নিজেও দায়ী বলে মনে করি। আর তাই জল অপচয় বন্ধ করতে আমি এই যন্ত্রটি তৈরি করেছি।
বিষ্ণুপুরের এক বাসিন্দার কথায়, এই যন্ত্রটি লাগানোর ফলে আমরা দারুণভাবে উপকৃত হয়েছি। কেননা এতে জল অপচয় যেমন করা সম্ভব তেমনি বিদ্যুতের খরচ অনেকটাই কম হবে। তাছাড়া নিয়ম করে বারবার জলের ট্যাঙ্ক ভর্তি করতে হয় না, সময়মতো একাই জলের ট্যাঙ্ক ভর্তি হয়ে যায়। ইতিমধ্যেই সন্তুর আবিষ্কার করা জল সংরক্ষণের যন্ত্রটির বিষ্ণুপুর শহরে ব্যাপক চাহিদা তৈরি হয়েছে।