অপসারিত রবার্ট মুগাবে

0
36

মুগাবেকে নেতৃত্বপদ থেকে সরিয়ে দিল জিম্বাবোয়ের বর্তমান শাসকদল। মুগাবে যাঁকে কয়েকসপ্তাহ আগে ভাইস প্রেসিডেন্টের পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছিলেন, সেই এমার্সন মাংগাগোয়াকেই তাঁর জায়গায় বসানো হয়েছে।

শুধু রবার্ট মুগাবেই নয়, তাঁর ৫২ বছর বয়সী স্ত্রী গ্রেস মুগাবেকেও দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। মাংগাগোয়াকে সরিয়ে গ্রেসকেই দেশের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে বসাতে চেয়েছিলেন ৯৩ বছরের রবার্ট মুগাবে। প্রায় চার দশক ধরে দেশশাসন করছেন তিনি। স্বৈরাচারী শাসক হিসেবে তাঁর দুর্নাম ছড়িয়েছিল সারা বিশ্বেই। ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নিজের স্ত্রীকে বসানোর চেষ্টা এবং সেজন্য মাংগাগোয়াকে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত মুগাবের নিজের পায়ে কুড়ুল মারার মত সিদ্ধান্ত ছিল বলে মনে করা হচ্ছে।

সামরিক বাহিনীর ক্ষমতাদখল, দেশ জুড়ে তাঁর পদত্যাগের দাবিতে মিছিল, এসব সত্ত্বেও পদ থেকে সরতে রাজি হননি রবার্ট মুগাবে। শেষ পর্যন্ত জানু-পিএফের কয়েকশ বরিষ্ঠ আধিকারিকদের স্বাক্ষর জিম্বাবোয়ের প্রায় চল্লিশ বছরের ইতিহাস পাল্টে দিতে চলেছে।

এদিন মুগাবেকে সরিয়ে তাঁর জায়গায় মাংগাগোয়াকে বসানোর প্রস্তাব পাস হওয়ামাত্র গোটা সভাকক্ষ জুড়ে উতসবের মেজাজ তৈরি হয়। শুরু হয় করতালির ঝড়, বাজ যায়নি নাচ-গানও।

আপাতত মুগাবের সামনে একটাই রাস্তা। দেশত্যাগের। সে বন্দোবস্ত যত সম্মানজনক হয়, সম্ভবত তার জন্যই এখন চেষ্টা করে চলবেন জিম্বাবোয়ের ধিকৃত এই নেতা। প্রেসিডেন্ট পদ ছাড়ার জন্য তাঁকে নির্দিষ্ট সময়সীমাও দেওয়া হয়েছে।