রাজনৈতিক নেতাদের নাম না করতে চাপ: কুণাল

0
738

প্রাক্তন সাংসদ কুণাল ঘোষ ও কলকাতার পুলিস কমিশনার রাজীব কুমারকে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদের পর্ব এদিনের মতো শেষ করল সিবিআই। রবিবারের পরে সোমবারও ফের দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। রবিবার প্রায় ১২ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় রাজীব কুমারকে। অভিযোগ, অনেক প্রশ্নেরই সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি। বয়ান রেকর্ডও রয়েছে অসম্পূর্ণ। এই কারণেই ফের এদিন আরও একবার রাজীবকে তলব করে সিবিআই। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদে উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। সূত্রের খবর, সিট বলে কিছু ছিল না বলে প্রথমে দাবি করেন কলকাতার পুলিস কমিশনার। তিনি বলেন, দল গঠন করা হলেও, কাজ করেনি। এরপরই সিবিআইয়ের প্রশ্নের মুখে বয়ান বদল করেন রাজীব কুমার। জানান, সিট কাজ করেছে। তবে তাঁর ভূমিকা সেখানে ছিল না। তিনি বিধাননগর কমিশনারেটের দাযিত্ব সামলেছেন। সিটের কাজ দায়িত্বের সঙ্গে করেছে পুলিস আধিকারিক অর্ণব ঘোষ। এদিন প্রায় সাড়ে আট ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় রাজীব কুমারকে। ফের তাঁকে মঙ্গলবার তলব করা হয়েছে। সেদিন তাঁর বয়ান রের্কড করা হবে।
রবিবারের পরে সোমবারও শিলঙের সিবিআই কার্যালয়ে হাজির হন প্রাক্তন সাংসদ কুণাল ঘোষকেও। সিবিআই সূত্রে খবর, তিনি জিজ্ঞাসাবাদে জানান, চিটফান্ড কাণ্ডে সিটের আধিকারিকরা কোনও রাজনৈতিক নেতার নাম না নেওয়ার জন্য তাঁর উপর চাপ সৃষ্টি করেছেন। তাঁর অভিযোগ, সিটের সদস্য ও কলকাতার বর্তমান পুলিস কমিশনার রাজীব কুমার তদন্তের বিষয়ে খুব নিরপেক্ষতা দেখাননি। কুণাল যে সব নাম ও নথি দিয়েছিলেন তা গুরুত্ব দিয়ে দেখা হয়নি বলে অভিযোগ। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে কুণাল ও রাজীব দুজনেই সন্ধে সাত থেকে সাড়ে সাতটার মধ্যে শিলঙের সিবিআই অফিস থেকে বেরিয়ে যান। সোমবারই কলকাতায় ফিরে আসতে পারেন কুণাল ঘোষ।