উর্বর চাষজমি নষ্ট করছে বর্জ্য

0
54

গরিব চাষিদের জমি জোর করে দখল নেওয়ার অভিযোগ উঠল একটি কারখানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, কারখানা কর্তৃপক্ষ দরিদ্র মানুষের চাষযোগ্য জমিতে কোনও অনুমতিপত্র ছাড়াই কারখানা দূষিত বর্জ্য পদার্থ ফেলে দিচ্ছে। সেই সমস্ত চাষযোগ্য জমি একেবারে অনুর্বর হয়ে পড়ছে। মাথায় হাত পড়েছে বেশ কিছু চাষির। অভিযোগ জানানো সত্ত্বেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।
অভিযোগ, ঝাড়গ্রামের একটি সিমেন্ট কোম্পানির স্পঞ্জ আয়রন কারখানার বিরুদ্ধে। কারখানা লাগোয়া আদিবাসী আদিবাসী গ্রামের মানুষজনএকটি গণস্বাক্ষর করা অভিযোগপত্র দিয়ে জেলা প্রশাসনকে বিষয়টির সুরাহা করার দাবি জানিয়েছেন। অভিযোগ পাওয়ার পরই জেলা প্রশাসন তদন্ত শুরু করেছে। শুক্রবার ঝাড়গ্রামের মহকুমা শাসকের নির্দেশে ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে একটি দল এলাকায় গিয়ে তদন্ত করেছে। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরেই একটি শুনানির ব্যবস্থা করা হবে।

ঝাড়গ্রাম ব্লকের বাঘমুড়ি মৌজার স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, এই এলাকা লাগোয় জিতুশোল মৌজায় যে একটি সিমেন্ট কোম্পানির স্পঞ্জ আয়রন কারখানা রয়েছে সেই কারখানা থেকে স্থানীয় মানুষজনের জমির উপর কারখানার বর্জ্য ফেলা হচ্ছে এবং জমি দখল করা হচ্ছে। কারখনার যাবতীয় বর্জ্য, কয়লার গুঁড়ো সহ অন্যান্য যে সব গুঁড়ো ফেলা হচ্ছে তাতে চাষের জমি গুলির উর্বরতা ক্ষমতা হরাচ্ছে। চাষের জমি বন্ধ্যা হয়ে যাচ্ছে। স্থানীয়দের আরেও অভিযোগ ওই কারখানার ভাড়াটে গুন্ডারা স্থানীয়দের নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে।

স্থানীয়রা তাদের অভিযোগপত্রে জানিয়েছেন, বাঘমুড়ি মৌজায় আদাবাসী, কুড়মি, পান, ধোবা শ্রেণিভুক্ত অনগ্রসর ব্যক্তিদের চাষের জমি বেআইনিভাবে এবং জোরপূর্বক দখল করে সেই সব জমিতে কারখানার বজ্য পদার্থ ফেলছে কারখানা কর্তৃপক্ষ। বাসিন্দারা তাদের লিখিত অভিযোগ জেলাশাসকের দফতরে ২৮ নভেম্বর জামা করেন।