পাল্টা আক্রমণের পথ খুঁজছে বিসিসিআই

0
60

আইসিসির ভোটাভুটিতে জোড়া ধাক্কা খাওয়ার পর পাল্টা আক্রমণের পথ খুঁজছে বিসিসিআই। বোর্ডের একপক্ষের দাবি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে দল পাঠিয়ে নিজেদের কড়া মনোভাব বুঝিয়ে দিক ভারত। তবে বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বিসিসিআইযের বার্ষিক সাধারণ সভায়।
বিশ্বক্রিকেটের বিসিসিআইয়ের আধিপত্য কী কমতে চলেছে। বুধবারের গভীর রাতে আইসিসির সদস্যদের বৈঠকের পর এমন আশঙ্কায় প্রমাদ গুণতে শুরু করেছেন ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীরা। বুধবার দুবাইয়ে আইসিসির বৈঠকে একসঙ্গে জোড়া ধাক্কা খেল ভারতীয় শিবির। একদিকে যেমন আইসিসির তরফ থেকে ভারতের রোজগার এক ধাক্কায় প্রায় ৫০ শতাংশ কমছে, অন্যদিকে, নতুন প্রশাসনিক কাঠামোতেও কমছে বিসিসিআইয়ের আধিপত্য। বুধবার আইসিসির বৈঠকে একসঙ্গে দুটি নতুন প্রস্তাব পাস হয়েছে। একটি প্রস্তাব ছিল আইসিসির লভ্যাংশ বিন্যাস সংক্রান্ত। আর একটি প্রস্তাব ছিল নতুন গঠনকাঠামো সংক্রান্ত। আইসিসির লভ্যাংশের পুরনো বিন্যাস অনুযায়ী, মোট আয়ের ২১ শতাংশ টাকা পেত ভারত। কিন্তু নতুন বিন্যাস অনুযায়ী ভারত পাবে আগের পাওয়া অর্থের অর্ধেকের কিছু বেশি। এই প্রস্তাবটিতে ভোটাভুটির সময় বিসিসিআইয়ের পক্ষে একটিও ভোট পড়েনি, আইসিসির ১০ স্থায়ী সদস্যের মধ্যে ৯ সদস্যই ভোট দিয়েছে নতুন বিন্যাসের পক্ষে। অন্যদিকে, শ্রীনিবাসনের করা পুরনো গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করে নতুন গঠনতন্ত্র আনার পক্ষে ভোট দিলেন আইসিসির ৮ সদস্য। এর ফলে আইসিসির গঠনতন্ত্রেও ভারতের প্রভাব অনেক কমতে চলেছে। বুধবারের বৈঠকে আইসিসির তরফে, বোর্ডের গুরুত্বপূর্ণ কোনও কর্তা উপস্থিত ছিলেন না, অন্যদিকে, আইসিসির তরফে উপস্থিত ছিলেন, দু দুবারের বিসিসিআই সভাপতি শশাঙ্ক মনোহর। ভারতীয় বোর্ডের অভ্যন্তরে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে, শশাঙ্ক মনোহরের প্রতিহিংসারই শিকার হতে হল বিসিসিআইকে। আবার অনেকের মত, রাহুল জোহরি, এবং অনিরুদ্ধ চৌধুরীর পরিবর্তে শ্রীনি-অনুরাগদের মত কোনও দাপুটে রাজনীতিক বোর্ডের শীর্ষে থাকলে হয়ত বিসিসিআইকে আধিপত্য হারানোর দোরগোড়ায় এসে পড়তে হত না। এদিনের বৈঠকে বিসিসিআইয়ের পরাজয়ের সুদূরপ্রসারী প্রভাব পড়তে পারে ভারতীয় ক্রিকেটে । ইতিমধ্যেই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারতের অংশগ্রহণ করা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। অন্য সব দল চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দল ঘোষণা করে দিলেও ডেডলাইন পেরোনর পরও দল ঘোষণা করেনি ভারত । সূত্রের খবর, শীঘ্রই বিসিসিআইয়ের বিশেষ সাধারণ সভা ডাকা হবে, সেই সভাতেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলার ব্যাপারে। তবে, আইপিএল শেষ হওয়ার আগে এ বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে না। শ্রীনি সহ বোর্ডের বহিঃস্কৃত একাধিক কর্তা চাইছেন শক্ত অবস্থান নিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলতে অস্বীকার করুক ভারত। কিন্তু প্রশাসক প্যানেল সেই দাবি মানবেন কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়। তাছাড়া চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি বয়কট করলে বিপাকেও পড়তে পারে ভারত। কারণ ইতিমধ্যেই আইসিসির সব টুর্নামেন্ট খেলার জন্য একটি চুক্তিপত্রে সই করে ফেলেছে বিসিসিআই, যা না মানলে হতে পারে বড় মাপের জরিমানা। আপাতত যা পরিস্থিতি তাতে, সব দিক দিয়েই চাপে বিসিসিআই। শ্রীলঙ্কা ছাড়া আর কোনও ক্রিকেট সংস্থাই ভারতের পাশে নেই। ডালমিয়ার আমল থেকে ভারত আইসিসিতে যে প্রভাব বিস্তার করে চলেছে তা শেষের পথে, এমনটাই আশঙ্কা বিসিসিআইয়ের অন্দরে।

Submit your review
1
2
3
4
5
Submit
     
Cancel

Create your own review

CALCUTTA NEWS
Average rating:  
 0 reviews