সীমান্ত গলিয়ে দিল আবিদ

0
984

কৃষ্ণগঙ্গা নদীতে ভেসে এসেছিল সাতবছরের এক বালকের দেহ। ভেসে এসেছিল পাকিস্তান থেকে কাশ্মীরের গুরেজ উপত্যকার আচুরা গ্রামে।
বালকটি কে, কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই জানা যায় তা। ফেসবুকে হারিয়ে যাওয়া বাচ্চার ছবি দেখে তাকে শনাক্ত করেন গ্রামবাসীরা। ওপারের পাক অধিকৃত গিলগিট-বালতিস্তানের মিনিমাগ আস্তুর গ্রামের কেউ পোস্ট করেছেন ছবিটি। তার সঙ্গেই তাঁরা ভিডিওতে দেখেন সেই বাচ্চারটি পরিবারের আকুল কান্না। হারানো বাচ্চাকে তাঁরা ফেরত চান।
নিখোঁজ বাচ্চাটির নাম আবিদ। সোমবার থেকে নিখোঁজ। গ্রামবাসীরা তখন যোগাযোগ করেন সেনাবাহিনীর সঙ্গে। অনুরোধ করেন, তারা যেন পাক সেনাদের খবরটা জানায়। কিন্তু তারইমধ্যে আরেকটা বড় সমস্যা চিন্তায় ফেলে আচুরাকে। গ্রামে কোনও মর্গ নেই। গ্রামবাসীরাই পাহাড়ে জমে থাকা বরফ তুলে এনে আবিদের দেহ রেখে দেন।
কিন্তু তখনই আসে প্রথম ধাক্কা। দেহ পচে যাবে, তাই বুধবার সেনা চেয়েছিল দেহটি পাকিস্তানের হাতে তুলে দিতে। ২০০ কিলোমিটার দূরে কুপওয়ারা জেলার তিতওয়াল ক্রসিংয়ে দেহ নিয়েও যায় তারা। সেই পথের চতুর্দিকে মাইন বিছানো। কিন্তু সাড়া মেলেনি পাকিস্তানের তরফ থেকে।
ফিরিয়ে আনা হয় আবিদের দেহ। বৃহস্পতিবার সকালে সাড়া মেলে পাকিস্তানের। ফের মাইন বিছানো পথ পেরিয়ে ফিরিয়ে দেওয়া হয় আবিদের দেহ। পরিচয় নিশ্চিত করে দেহ নিয়ে যায় পাক সেনারা। মানবিকতার খাতিরেই জটিলতা বাড়াতে চাননি কোনও পক্ষই। (ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস)