চিদম্বরমের ৫ দিনের সিবিআই হেফাজতের নির্দেশ

0
358

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরমের ৫ দিনের সিবিআই হেফাজতের নির্দেশ দিল্লির সিবিআই আদালতের বিচারক। আগামী ২৬ আগষ্ট অর্থাৎ সোমবার পর্যন্ত সিবিআই হেফাজতেই থাকতে হবে বরিষ্ঠ এই কংগ্রেস নেতাকে। তবে এই প্রতিদিন তাঁর সঙ্গে পরিবারের লোকজন ও আইনজীবীরা ৩০ মিনিট করে দেখা করতে পারবেন বলেও জানিয়ে দিয়েছেন বিচারক। এদিন প্রায় দেড় ঘন্টা সাওয়াল-জবাব হয়।
উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার আদালতে সিবিআই চিদম্বরমকে পাঁচদিনের জন্য নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার আর্জি জানিয়েছিল। সেই আর্জিই মঞ্জুর করল সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত। এদিন শুনানী চলাকালীন কেন্দ্রের সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেন, আইএনএক্স মামলায় চিদম্বরম ষড়যন্ত্রে জড়িত। এই মামলা এখন চার্জশিট দেওয়ার আগের অবস্থায় রয়েছে। সিবিআইয়ের কাছে চার্জশিট নয়, কেস ডায়েরি রয়েছে। তাঁকে হেফাজতে নিয়ে জেরা করা প্রয়োজন। এটা টাকা পাচারের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। জামিন অযোধ্য পরোয়ানার ভিত্তিতেই চিদম্বরমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। চিদম্বরমের আইনজীবী কপিল সিবাল প্রশ্ন তোলেন, একজন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী কী করে অসহযোগিতা করতে পারেন। তাঁকে যখনই ডাকা হয়েছে, তিনি গিয়েছেন। আইএনএক্স মিডিয়ায় বিদেশি লগ্নির বিষয়টি একার সিদ্ধান্ত নয়। ৬ জন সচিব এতে যুক্ত ছিলেন। তাদের কেন গ্রেফতার করা হচ্ছে না। তাছাড়া, অভিযুক্ত বাকিরা সবাই জামিন পেয়ে গিয়েছেন। কেবলমাত্র খুনে অভিযু্ক্ত রাজসাক্ষী ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়ের বয়ানের ভিত্তিতেই অভিযুক্ত করা হচ্ছে চিদম্বরমকে। চিদম্বরম নিজে এদিন আদালতে বলেন, তিনি সব প্রশ্নেরই উত্তর দিয়েছেন।


এদিন সিবিআই আদালতে আনার আগেও চিদম্বরমকে তিনঘণ্টা জেরা করেছে সিবিআই। তাঁকে বুধবার রাতে রাখা হয়েছিল তাঁরই উদ্বোধন করা লক আপে। তাঁর পক্ষে এদিন ছিলেন কপিল সিবাল, অভিষেক মনু সিংভি, বিবেক তাঙ্কা। ছিলেন চিদম্বরমের স্ত্রী মলিনী ও ছেলে কার্তি। আদালতের বাইরে ছিল কড়া পুলিশ পাহারা।