নাগাল্যান্ডঃ ভোটের মুখে মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তরের তিন কর্মী-আধিকারিককে সমন এনআইএ-র

0
33

বিধানসভা নির্বাচনের আগে বেকায়দায় নাগাল্যান্ডের মুখ্যমন্ত্রী টিআর জেলিয়াং। সন্ত্রাসবাদীদের অর্থ সাহায্যের অভিযোগে তাঁর অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি সহ তাঁর দপ্তরেরই আরও দুই কর্মীকে সমন পাঠাল জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)। অভিযোগ, এনএসসিএন (কে), এনএসসিএন (আইএম) এবং নাগা ন্যাশনাল কাউন্সিলের মতো সংগঠনগুলি সরকারের অন্তত ১৪টি বিভাগ থেকে তোলা আদায় করেছে। এই ঘটনার সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তরের ওই কর্মী ও আধিকারিকরা জড়িত বলে অনুমান এনআইএ গোয়েন্দাদের।
আর কিছুদিনের মধ্যেই নাগাল্যান্ডে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু নাগা সংগঠনগুলি ইতিমধ্যেই এই ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির কাছে তাদের আবেদন, প্রস্তাবিত শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর না হওয়া পর্যন্ত তারা যেন নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালে নেইফিউ রিও সাংসদ হিসাবে লোকসভায় যোগ দেওয়ায় তাঁর কাছ থেকেই মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্বভার গ্রহণ করেছিলেন জেলিয়াং। সেই সময় তাঁরা দুজনেই নাগাল্যান্ড পিপল’স ফ্রন্ট (এনপিএফ)-এর সদস্য ছিলেন। আর কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপির সঙ্গে এনপিএফ গাঁটছড়া বেঁধেছিল ১৫ বছর আগে। এমনকি, রাজ্যের বর্তমান মন্ত্রিসভাতেও বিজেপি-র দুই প্রতিনিধি রয়েছেন। কিন্তু ইতিমধ্যে অভ্যন্তরীণ মনোমালিন্যের জেরে এনপিএফ ছেড়ে নতুন দল ন্যাশনালিস্ট ডেমোক্র্যাটিক প্রোগ্রেসিভ পার্টি (এনডিপিপি) তৈরি করেন রিও। এদিকে, বিজেপি-ও গত সপ্তাহে এনপিএফ-এর সঙ্গে তারে ১৫ বছরের সম্পর্কে ইতি টানে। এখন তাদের নতুন জোটসঙ্গী হল এনডিপিপি। জোটধর্ম মেনে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি রাজ্যের ২০টি আসনে এবং এনডিপিপি বাকি ৪০টি আসনে লড়াই করছে। লড়াইয়ের মুখ অবশ্যই রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী নেইফিউ রিও। এই অবস্থায় জেলিয়াংয়ের দপ্তরের কর্মী ও আধিকারিকদের সমন পাঠানোর ঘটনা রাজনৈতিকভাবে অত্যন্ত তাত্পর্যপূর্ণ বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের। গোটা ঘটনার জন্য সদ্য প্রাক্তন জোটসঙ্গী বিজেপি-কেই কাঠগড়ায় তুলেছে এনপিএফ।
এনপিএফ-এর প্রেস সচিব সইদ স্যাবাস্টিয়ান জুম্ভু এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘এনআইএ-র পদক্ষেপে আমরা একটুও অবাক হইনি। যেহেতু ওরা (বিজেপি) আর আমাদের সঙ্গে জোটে নেই, তাই এইসব কাণ্ড ঘটাচ্ছে। তবে এনআইএ একটা কেন্দ্রীয় সংস্থা। তাই নির্বাচনের আগে বিজেপি প্রার্থী ও তাঁদের আত্মীয়রা ব্যাঙ্কগুলি থেকে যে বিপুল পরিমাণ টাকা তুলছেন, আশা করি, সেই বিষয়টা খতিয়ে দেখতেও তাদের (এনআইএ) অসুবিধা হবে না।’
উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই গত ১৮ জানুয়ারি এনআইএ নাগাল্যান্ড সরকারের বিভিন্ন বিভাগের দপ্তরে অভিযান চালিয়ে বহু সামগ্রী বাজেয়াপ্ত করে। নথি মোতাবেক, যার মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা।