কর্নাটকে টাকা ঢালা হচ্ছে জলের মতো

0
194

দরজায় কড়া নাড়ছে কর্নাটক নির্বাচন। ক্ষমতা দখল করতে মরিয়া হয়ে রাজনৈতিক দলগুলি। চলছে যথেচ্ছ টাকার খেলাও। রাজ্যের নির্বাচন কমিশনের গত সপ্তাহের রিপোর্ট বলছে, এপর্যন্ত প্রচুর নগদ ও সোনাদানা বাজেয়াপ্ত করেছে কমিশন। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ১৫২ কোটি টাকা। রাজ্যের নিরিখেও যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। যদিও এটা হিমশৈলের চূড়ো মাত্র, এমনটাই বলছেন ওয়াকিবহাল মহল। বরাবরই কর্নাটকের নির্বাচনক ব্যয়বহুলের তালিকায় ফেলা হয়। সব রাজনৈতিক দলের প্রার্থী তালিকায় কোটিপতিদের উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো। এখন পর্যন্ত কোটিপতি তালিকার শীর্ষে রয়েছেন কংগ্রেসের এমএলএ প্রিয় কৃষ্ণ। টাকা দিয়ে ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগ তুলছে পক্ষ-বিপক্ষ। সূত্রের খবর, নির্বাচনী ব্যয়ের বিষয়টি সাধারণত দুটি পর্যায়ে বিভক্ত। সেখানে দুই ধাপে প্রার্থী পিছু সাড়ে তিন থেকে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ও নতুন কিছু নয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি জাতীয় রাজনৈতিক দলের সদস্য কিছুটা হলেও খরচের ধারণা দিয়েছেন । প্রচারের শেষ ১০ দিন একটি সিটের জন্য ২৫ লাখ টাকা খরচ ধরা হয়েছে। অর্থাৎ এক একটি নির্বাচনী এলাকায় গড়ে ২৫০টি বুথ রয়েছে। সবমিলিয়ে বুথ প্রতি ১০ হাজার। তাহলে ১০ দিনের মোট খরচ প্রায় আড়াই কোটি টাকা। এরসঙ্গে যোগ হবে প্রার্থীর নিজস্ব রোড শো, ব্যানার, প্রচারের খরচ। সবকিছু মিলিয়ে টাকার অঙ্কটা দাঁড়ায় সাড়ে তিন থেকে ৪ কোটি টাকা। যা কমিশনের বেঁধে দেয়া খরচের ঊর্ধ্বসীমারও ১৪ গুণ বেশি। তবে শেষ পর্যন্ত কমিশন কতটা লাগাম পড়াতে পারে সেটাই দেখার।