পরীক্ষার খাতায় নিজের যৌন নির্যাতনের কাহিনি লিখল কিশোরী

0
176

স্কুলের পরীক্ষার খাতায় উত্তরের বদলে যৌন নির্যাতনের কাহিনী। এভাবেই প্রতিদিন ঘটে চলা অত্যাচারের কাহিনি শিক্ষকদের জানালেন একাদশ শ্রেণীর এক কিশোরী। শিক্ষকদের সহযোগিতায় পাকড়াও করা হয় অভিযুক্তদের। উত্তরপ্রদেশের বাদশাহপুরের ঘটনা। লজ্জায় বাড়ির কাউকেই বলতে পারেনি যৌন হেনস্থার কথা। অভিযুক্তরা তারই তুতো ভাই ও কাকা (ঠাকুরদার বোনের ছেলে)। শেষ পর্যন্ত আর না পেরে, স্কুলের পরীক্ষার খাতায় বিষয়টি লিখে রেখে আসে সে। ইউনিট টেস্টের খাতা দেখতে গিয়ে বিষয়টি নজরে আসে এক শিক্ষিকার। তিনি আবার প্রধান শিক্ষিকাকে বিষয়টি জানান। প্রধান শিক্ষিকা পুলিশের পরামর্শে শিশু সুরক্ষা কমিটির কাছে বিষয়টি জানান। জানা গেছে, অভিযুক্ত কাকার বয়স ২৩ বছর। আর তুতো ভাই এখনও নাবালক। বুধবার দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা দায়ের করা হয়। আদালতে পেশ করা হলে বিচারক যুবককে ফরিদাবাদ জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেন। নাবালক তুতো ভাইকে পাঠানো হয় ফরিদাবাদেরই একটি কারেকশনাল হোমে। জেলার অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার শকুন্তলা যাদব জানান, শিশু সুরক্ষা কমিশনের লোকেরা নাবালিকার বাড়ি গিয়ে বিষয়টি পরিবারের লোকেদের জানায়। জানা গেছে নির্যাতিতার মা ও অভিযুক্ত নাবালকের মা দুই বোন। একই বাড়িতে তাদের বিয়ে হয়েছে। শিশু সুরক্ষা কমিটির চেয়ারপার্সন শকুন্তলা ধুল জানিয়েছেন, নাবালিকা খুব আতঙ্কে আছে, তাই এখনও পর্যন্ত তার বয়ান রেকর্ড করা যায়নি।