মণিকর্ণিকায় আপত্তিকর কিছুই নেই, বরং এই গুজবই নিম্ন রুচির পরিচয়ঃ কঙ্গনা

0
48

দীপিকা পাডুকোনের পদ্মাবতের পর এবার কঙ্গনা রাণাওয়াতের মণিকর্ণিকা। ফের বিতর্কের কেন্দ্রে চলচ্চিত্র। ছবিতে রানি পদ্মিনী বা পদ্মাবতী সহ রাজপুত সমাজকে কলুষিত করার চেষ্টা হয়েছে, এই যুক্তি খাড়া সঞ্জয় লীলা বনশালির পদ্মাবতের মুক্তি বন্ধ করে উঠেপড়ে লেগেছিল করনি সেনা। যদিও অনেক কাঠ-খড় পোড়ানোর পর তাদের তাণ্ডবকে অগ্রাহ্য করেই রুপোলি পর্দায় প্রকাশ পেয়েছে রানি পদ্মিনীর কাহিনী। সেই ঘটনার পর ফের একবার একই পরস্থিতি তৈরি হতে চলেছে বলে আশঙ্কা ওয়াকিবহাল মহলের। আর এবার সমাজের ধ্বজাধারীদের টার্গেট হল কঙ্গনা অভিনীত মণিকর্ণিকা।
রাজস্থানের সর্ব ব্রাহ্মণ মহাসভা নামে একটি সংগঠনের দাবি, মণিকর্ণিকায় ঝাঁসিরানি লক্ষ্মীবাইয়ের চরিত্রকে বিকৃত করার চেষ্টা হয়েছে। তাদের দাবি, ছবিতে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির এক কর্মীর সঙ্গে লক্ষ্মীবাইয়ের প্রেমের সম্পর্ক তুলে ধরা হয়েছে। যদিও এই অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন বলে জানিয়েছেন ছবির নির্মাতারা। বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন খোদ ছবির নায়িকা, বলিউডের কুইন কঙ্গনাও। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘রানি লক্ষ্মীবাইয়ের সম্পর্কে এরকম একটা ভাবনাই খুব নিম্ন রুচির পরিচয়। তাই ওঁরা যে অভিযোগ তুলেছেন, সেটা আমাদের কল্পনারও অতীত। বরং ওঁরা যেটা বলছেন, সেটাই রানি লক্ষ্মীবাইয়ের প্রতি অবমাননাকর। ছবিতে এমন কিছুই নেই। এসব একেবারেই ভিত্তিহীন কথাবার্তা। আর আমি জানি না, কেন এসব বলা হচ্ছে। এই ঘটনায় আমরা অত্যন্ত মর্মাহত ও হতাশ। যিনি এই ছবির গল্প লিখেছেন, সেই কে ভি বিজয়েন্দ্র প্রসাদ তাঁর মেয়ের নাম রেখেছেন মণিকর্ণিকা।’