“বাঁচতে চাইলে ম্যানেজ করো বিজেপিকে”

0
359

বাঁচতে চাইলে ম্যানেজ করো বিজেপির দুই নেতাকে। ফোনে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের এক কর্তা জানিয়েছেন এক গুন্ডাসর্দারকে। সোশাল মিডিয়ায় সেই কথোপকথনের টেপ ছড়িয়ে পড়ার পর লজ্জিত প্রশাসন মৌরানিপুর থানার বড়বাবু সুনীতকুমার সিংকে সাসপেন্ড করেছে। গ্যাংস্টার লেখরাজ যাদবকে ফোনে তিনিই পরামর্শ দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ। ওই কথিত টেপে সুনীতকুমার লেখরাজকে বলছেন, ঝাঁসির বাবিনার বিজেপি এমএলএ রাজীব সিং পারিচা এবং জেলা সভাপতি সঞ্জয় দুবেকে ম্যানেজ করে ফেলো। সেইসঙ্গে গর্ব করে বলেছেন, “জানো না, কত লোককে আমি মেরে রাস্তায় ফেলে দিয়েছি।” মৌরানিপুর থানার বাসারি গ্রামে এনকাউন্টারে কেউ মারা যায়নি। পুলিশ জানিয়েছে, সবাই পালিয়েছে। এই এনকাউন্টারেরও তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি যৌগী আদিত্যনাথের উত্তরপ্রদেশে একের পর এক সংঘর্ষে মৃত্যুর ঘটনা বেড়ে চলেছে। তা নিয়ে উঠছে নানারকম প্রশ্ন। গত একবছরে ১৭৫৫টি এনকাউন্টারে মারা গিয়েছে ৪৮ জন অপরাধী। ওই টেপে লেখরাজ যাদবকে সুনীতকুমারকে বলতে শোনা যাচ্ছে, “মদত করো ইয়ার, মদত করো।” সুনীত বলছেন, মেরি মজবুরি সমঝিয়ে…ম্যায়নে আপকো বাতা দিয়া হ্যায়…সঞ্জয় দুবে জিলাধ্যক্ষ…রাজীব সিং পারিচা…দো আদমি কো ম্যানেজ কিজিয়ে। ওই দুই নেতা অবশ্য তাঁদের সঙ্গে লেখরাজের যোগ অস্বীকার করেছেন। ২০০৭ সালে রাজীবকুমার পুলিশ বাহিনী থেকে সাসপেন্ড হয়েছিলেন। অন্যদিকে, লেখরাজ যাদবের বিরুদ্ধে ৫৭টি ফৌজদারি মামলা রয়েছে। তার মধ্যে খুন, ডাকাতিও রয়েছে।