নবান্নের সামনে আত্মহত্যার চেষ্টা, হাসপাতালে মৃত্যু যুবকের

0
248

হাসপাতালে নিয়ে গিয়েও বাঁচানো গেল না অগ্নিদগ্ধ বাপন সাহাকে। শরীরের প্রায় ৯০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল তার। নবান্নের সামনে দাঁড়িয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে বাপন। নবান্নের ভিআইপি গেটের কিছুটা দূরে দাঁড়িয়ে নিজেই গায়ে করোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। শুক্রবার পৌনে ৪টে নাগাদ ঘটনাটি ঘটে। জ্বলন্ত অবস্থাতেই গেটের দিকে ছুটে আসতে থাকেন। ঘটনার আকস্মিতায় হতভম্ব হয়ে যান নিরাপত্তাকর্মীরাও। দ্রুত যুবককে ধরতে ছুটে আসেন পুলিশকর্মীরা। কোনওরকমে আগুন নেভানো হয়। কিন্তু ততক্ষণে শরীরের বেশিরভাগটাই পুড়ে গেছে যুবকের। আশঙ্কাজনক অবস্থায় দ্রুত তাঁকে নিকটবর্তী নারায়ণী হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হয় এসএসকেএম হাসাপাতালে। কিন্তু সব চেষ্টাই শেষমেশ ব্যর্থ হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বাপনের বাড়ি হাওড়ার সালকিয়ায়। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময়ও ‘জয় মা কালী’ এই একটি কথাই তাকে বারবার বলতে শোনা যায়। আরও জানা গেছে, বাপন একসময় দিল্লিতে কাজ করতেন। কিছুদিন আগেই তার চাকরি চলে যায়। সেই থেকেই মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন। গত কয়েকদিন ধরেই বাড়ি থেকেও নিখোঁজ ছিলেন তিনি।